BSS-BNhrch_cat_news-24-5
বাসস
  ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ১৯:৫৬

ব্যালন ডি’অর : পর্তুগালের ভোটটিও পাননি রোনাল্ডো

প্যারিস, ৬ ডিসেম্বর, ২০২১ (বাসস) : খেলোয়াড়ী জীবনের সবচেয়ে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী লিওনেল মেসিকে ছাড়িয়ে যাবার একটি অদৃশ্য লড়াই সবসময়ই রয়েছে ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোর মধ্যে। আর্জেন্টিনার মত একটি ফুটবল বান্ধব দেশের খেলোয়াড় হিসেবে মেসিকে নিয়ে হয়ত কিছুটা হলেও নাড়াচাড়া হয়েছে বেশী। কিন্তু পর্তুগালকে অনেকটা একাই বিশ্ব দরবারে পরিচিত করার দক্ষতা বেশ কয়েকবারই প্রমান করেছেন রোনাল্ডো।
বিশেষজ্ঞ ছাড়িয়ে পুরো ফুটবল বিশ্বই হয়ত একদিন এই দুই তারকার বিদায়ের পর একের পর এক আলোচনা চালিয়ে যাবেন, দুজনের মধ্যে কে সেরা। মাঠের লড়াইকে ছাড়িয়ে এই আলোচনা অনেক সময় পুরস্কারের সংখ্যার উপরেও বিবেচিত হয়। তেমনই এক আলোচনা এবারের মর্যাদাকর ব্যালন ডি’র ঘোষনা পর উঠে এসেছে। সপ্তমবারের মত এই পুরস্কার জয় করে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড তারকা রোনাল্ডোকে পিছনে ফেলেছেন মেসি। তার থেকে দুটি পুরস্কার কম পেয়েছেন রোনাল্ডো। কিন্তু এবারের পুরস্কারের আগে রোনাল্ডো নাকি বলেছিলেন মেসির থেকে একটি বেশী হলেও ব্যালন ডি’অর জিতে তিনি অবসরে যেতে চান। যদিও পরবর্তীতে এই ধরনের মন্তব্য তিনি করেননি বলে অস্বীকার করেছেন।
২০১৭ সালে সর্বশেষ ব্যালন ডি’অর জয় করেছিলেন রোনাল্ডো। এবার তালিকায় ষষ্ঠ স্থান পেয়েছেন। তার থেকে বেশী ভোট পেয়ে এই তালিকায় শীর্ষস্থানগুলোতে রয়েছেন রবার্ট লিওয়ানোদোস্কি, এন’গোলো কান্টে, জর্জিনহো ও করিম বেনজেমা।
বিশ্বজুড়ে জাতীয় দলের কোচ ও নির্বাচিত সাংবাদিকদের ভোটে শীর্ষ পাঁচজনকে বাছাই করা হয়। সকলের ভোট গণনা করে এই তালিকা প্রকাশ করা হয়। রোনাল্ডো এবার নিজ দেশের সাংবাদিকের ভোটটিও পাননি। পর্তুগালের গণমাধ্যম এসআইসি’র সাংবাদিক জোয়াকুইম রিটা শীর্ষ পাঁচজনের মধ্যে রোনাল্ডোকে বিবেচনা করেননি। চেলসিকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা উপহারে মূখ্য ভূমিকা রাখা ফরাসী তারকা কান্টেকে রিটা সর্বোচ্চ ভোট দিয়েছেন। তার দ্বিতীয় ভোটটি গেছে পোলিশ তারকা রবার্ট লিওয়ানোদোস্কির দিকে। রিটা অবশ্য কিলিয়ান এমবাপ্পে, জর্জিনহো ও মোহাম্মদ সালাহকে মেসির থেকেও এগিয়ে রেখেছেন।
ফুটবলের সবচেয়ে মর্যাদার পুরস্কার ব্যালন ডি’অর জয়ী নির্বাচনের ক্ষেত্রে বিশেষ এক প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়। প্রথমে ১৮০ জন নির্বাচিত সাংবাদিকের ভোটে ৩০ শীর্ষ ফুটবলারের প্রাথমিক তালিকা প্রকাশ করা হয়। এরপর সেখান থেকে ৫০ জন বিশেষজ্ঞ সাংবাদিক সেরা পাঁচ খেলোয়াড় নির্বাচন করেন। প্রত্যেক সাংবাদিক পাঁচজন খেলোয়াড়কে ক্রমানুসারে ভোট দিতে পারেন। প্রথমে থাকা খেলোয়াড় পাবেন ৬ পয়েন্ট। এভাবে ক্রমানুসারে ওই সাংবাদিকের তালিকায় দ্বিতীয়, তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে থাকা ফুটবলার পাবেন যথাক্রমে ৪, ৩, ২ ও ১ পয়েন্ট।
এভাবে ৫০ জন বিশেষজ্ঞ সাংবাদিকের মোট ভোট থেকে হিসাব করা হয় কোন খেলোয়াড় মোট কত পয়েন্ট পেয়েছেন। যার প্রাপ্ত পয়েন্ট বেশি হয়, তার হাতেই উঠে ব্যালন ডি’অর। এবার সর্বোচ্চ পয়েন্ট পাওয়া মেসির হাতেই উঠেছে ব্যালন ডি’অর পুরস্কার।
মেসির পয়েন্ট ছিল ৬১৩। ৫৮০ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন লিওয়ানোদোস্কি। এছাড়া জর্জিনহো ৪৬০, করিম বেনজেমা ২৩৯ পয়েন্ট, এনগোলো কান্তে ১৮৬ পয়েন্ট ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ১৭৮ পয়েন্ট পেয়েছেন।
ব্যালন ডি’অরের এবারের আসরে রোনালদোর চেয়ে এগিয়ে ছিলেন ৫ জন। ২০১০ সালের পর এটাই ব্যালন ডি’অরে রোনালদোর সবচেয়ে খারাপ তালিকা।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
বেটা ভার্সন