BSS-BNhrch_cat_news-24-5
বাসস
  ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৫:২৫

ফুটবল-বিশ্বকাপ-প্রিভিউ: পরাজয়ের বৃত্ত থেকে বেরিয়ে এগিয়ে যেতে চায় ফ্রান্স-পোল্যান্ড

দোহা, ৩ ডিসেম্বর, ২০২২ (বাসস) : গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে পরাজিত হওয়া নেয়া দুই দল ফ্রান্স ও পোল্যান্ড কাতার বিশ্বকাপে কাল আল থুমামা স্টেডিয়ামে শেষ ষোলর তৃতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে। 
লেস ব্লুজরা গ্রুপ-ডি’র শীর্ষ দল হিসেবে নক আউট পর্বে উঠলেও আর্জেন্টিনার পর গ্রুপ-সি’র দ্বিতীয় দল হিসেবে পরের রাউন্ডে এসেছে সিজিল মিশিনিউইচের দল পোল্যান্ড। 
পোল্যান্ডের কোচ হিসেবে প্রথমবারের মত দলকে নক আউট পর্বে পৌঁছে দেবার জন্য প্রশংসা পেতেই পারেন মিশিনিউইচ। তবে  তিউনিশিয়ার বিপক্ষে ১-০ গোলের পরাজয় দিয়ে গ্রুপ পর্ব শেষ করা ফ্রান্সকে নিয়ে মোটেই চিন্তিত নন কোচ দিদিয়ের দেশ্যম। তবে একটি বিষয় নিশ্চিত হয়েছে বিশ^কাপের মত আসরে বেঞ্চের খেলোয়াড়দের নিয়ে খেলতে নামলে তা যেকোন সময় ব্যুমেরাং হতে পারে। গতকাল ক্যামেরুনের কাছে যে  শিক্ষা পেয়েছে ব্রাজিল। পুরো বদলী বেঞ্চকে মূল একাদশে খেলিয়ে গ্রুপের শেষ ম্যাচটিতে ফ্রান্সের মতই ১-০ গোলের পরাজয় মেনে নিতে হয়েছে সেলেসাওদের। 
আগেই নক আউট পর্ব নিশ্চিত হয়ে যাওয়ায় শেষ ম্যাচে দেশ্যম দলের তারকা খেলোয়াড়  কিলিয়ান এমবাপ্পে, ওসমানে ডেম্বেলে ও আঁতোয়ান গ্রীজম্যানকে রিজার্ভ রেখেছিলেন। আর এই সুযোগটিই কাজে লাগিয়ে অল আউট ফুটবল খেলে স্মরণীয় এক জয় আদায় করে নিয়েছে তিউনিশিয়া। ৫৮ মিনিটে ওয়াহবি খাজরির গোলে তিউনিশিয়ার জয় নিশ্চিত হয়। ম্যাচের একেবারে শেষভাগে গ্রীজম্যান একটি গোল দিলেও ভিএআর অফসাইডের কারনে তা বাতিল করে দেয়। গোল বাতিলের এই সিদ্ধান্ত নিয়ে ফিফার কাছে অভিযোগ করার ইঙ্গিত দিয়েছে ফ্রান্স। তবে পরাজয় সত্তেও অস্ট্রেলিয়াকে গোল ব্যবধানে পিছনে ফেলে গ্রুপের শীর্ষস্থান ঠিকই ধরে রেখেছিল ফরাসিরা।  
১৯৯৮ ও ২০১৮ চ্যাম্পিয়ন দলটি এনিয়ে প্রথমবারের মত টানা তিনটি আসরে নক আউট পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করলো। একইসাথে ২০০৬ সালে ব্রাজিলের পর প্রথম গ্রুপ  চ্যাম্পিয়ন হিসেবে নক আউট পর্বের টিকিট পেয়েছে ফ্রান্স। লেস ব্লুজরা সর্বশেষ পাঁচটি শেষ ষোলর ম্যাচেই জয়ী হয়ে শেষ আটের টিকিট পেয়েছে। তবে তিউনিশিয়ার কাছে হেরে বিশ^কাপে টানা সাত জয় তুলে নিতে ব্যর্থ হলো ফ্রান্স। 
যদিও এবারের বিশ্বকাপে শট নেবার ক্ষেত্রে প্রায়শই মনস্থির করতে না পারা পোল্যান্ডের বিরুদ্ধে দেশ্যমের দল আক্রনমনভাগে এগিয়ে রয়েছে। পোলিশ গোলরক্ষক ওজিচে সিজিসনি শেষ ম্যাচে লিওনেল মেসির পেনাল্টি রুখে দিয়ে দারুন আত্মবিশ^াসী অবস্থানে আছেন। মেসির এই পেনাল্টি মিস নিয়ে বিশ^জুড়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। কিন্তু সিজিসনি তার দায়িত্বটুকু পালন করে নিজ দলকে ঠিকই নক আউটের টিকিট উপহার দিয়েছেন। যদিও ম্যাচটিতে আর্জেন্টিনার কাছে ২-০ গোলে হেরেছে পোল্যান্ড। কিন্তু ব্যবধান বেশী হলে তাদের সামনে বিদায়ের শঙ্কা ছিল। এ্যালেক্সিস ম্যাক এ্যালিস্টার  জুলিয়ান আলভারেজের দ্বিতীয়ার্ধের গোলে লা আলবিসেলেস্তেদের জয় নিশ্চিত হয়। 
গ্রুপ-সি’র তিন ম্যাচ থেকে চার পয়েন্ট অর্জন করার পরও মেক্সিকোর সাথে গোল ব্যবধানে এগিয়ে থেকে  দ্বিতীয় স্থান পেয়ে শেষ ষোল নিশ্চিত করে পোল্যান্ড। ১৯৮৬ মেক্সিকো বিশ^কাপের পর এই প্রথমবারের মত পোল্যান্ড নক আউট পর্বে খেলতে যাচ্ছে। 
এবারের আসরে মিশিনিউইজের দলের শ্যুটিং নিয়ে দ্বিধার বিষয়টি সকলের চোখে পড়েছে। এ পর্যন্ত তিন ম্যাচে তারা টার্গেটে মাত্র পাঁচটি শট নিয়েছে। এর মধ্যে দুটি ছিল সৌদি আরবের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচে জয়ের দিনে। যদিও ম্যাক এ্যালিস্টারের গোলের আগে তারা কোন গোলও হজম করেনি। 
৪০ বছর আগে সর্বশেষ ১৯৮২ সালে একটি প্রীতি ম্যাচে  পোল্যান্ডের কাছে পরাজিত হয়েছিল ফ্রান্স।  ম্যাচটিতে ৪-০ গোলে জয়ী হয়েছিল পোলিশরা। কিন্তু এরপর টানা সাত ম্যাচে তাদের বিরুদ্ধে অপরাজিত ছিল লেস ব্লুজরা। সর্বশেষ ২০১১ সালে প্রীতি ম্যাচে ফ্রান্স ১-০ গোলে জয়ী হয়েছিল। 
রোববারের ম্যাচের জন্য ফরাসি বস দেশ্যম পুরো ফিট একটি স্কোয়াড হাতে পাচ্ছেন। গোলরক্ষক আলফোনসে আরেয়োলা পিঠের ইনজুরি কাটিয়ে তিউনিশিয়ার বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছিলেন। গোঁড়ালির ইনজুরিতে থাকা থিও হার্নান্দেজ শুক্রবার অনুশীলনে না থাকলেও কালকের আগে পুরো ফিট হবার আশা করা হচ্ছে। তিউনিশিয়ার সাথে মূল দলে না খেলা এমবাপ্পে, গ্রীজম্যান, ডেম্বলে ও অলিভার গিরুদ আবারো ফিরে আসছেন। মধ্যমাঠে জর্ডান ভেরেটুট ও ইউসুফ ফোফানার জায়গায় অরেলিয়েন টিচুয়ামেনি ও আদ্রিয়ের রাবোয়িতের ফেরার সম্ভাবনাই বেশী। 
এদিকে রোববারের নক আউট ম্যাচকে সামনে রেখে পোল্যান্ডও পুর্ন শক্তির  দলই হাতে পাচ্ছে। এই ম্যাচে হলুদ কার্ড পেলে সম্ভাব্য কোয়ার্টার ফাইনালে ছয়জন খেলোয়াড় খেলতে পারবেন না। পোলিশ ম্যানেজারের মনে অবশ্য এই মুহূর্তে নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি নিয়ে শঙ্কা নেই। আর্জেন্টিনার বিরুদ্ধে প্রিজিমিসল ফ্রাঙ্কোভস্কি ও ক্যারল সুইডারিস্কিকে বদলী বেঞ্চে নিয়ে আসা হয়েছিল। তবে ক্যারলের আবারো মূল দলে থাকা প্রায় নিশ্চিত। রবার্ট লিওয়ানদোস্কি ও ক্যারলের সাথে তৃতীয় উইঙ্গার হিসেবে আরকাদিয়াস মিলিক অথবা কিরিজিসট পিয়াটেকের যেকোন একজনের সুযোগ ঘটবে।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়