BSS-BNhrch_cat_news-24-5
বাসস
  ০১ অক্টোবর ২০২২, ১৬:৩০
আপডেট  : ০১ অক্টোবর ২০২২, ১৬:৩৫

সল্টের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজে সমতা আনলো ইংল্যান্ড

লাহোর, ১ অক্টোবর, ২০২২ (বাসস) : ওপেনার ফিল সল্টের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে সমতা আনলো সফরকারী ইংল্যান্ড।
গতরাতে সিরিজের ষষ্ঠ টি-টোয়েন্টিতে সফরকারী ইংল্যান্ড ৮ উইকেটে হারিয়েছে পাকিস্তানকে। এর মাধ্যমে  সাত ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে ৩-৩ সমতা আনলো ইংল্যান্ড। ৪১ বলে অপরাজিত ৮৮ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলে ইংল্যান্ডের জয়ের নায়ক সল্ট।
৩-২ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে ষষ্ঠ ম্যাচ জিতলেই সিরিজ নিশ্চিত, এমন সমীকরনে ফর্মের তুঙ্গে থাকা মোহাম্মদ রিজওয়ানকে বিশ্রাম দেয় পাকিস্তান। তার জায়গায় অভিষেক হয় উইকেটরক্ষক মোহাম্মদ হারিসের। অধিনায়ক বাবর আজমের সাথে ইনিংস শুরু করতে হয় হারিসকে।
টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নাাম পাকিস্তানকে ভালো সূচনা এনে দিতে পারেননি অভিষিক্ত হারিস। তৃতীয় ওভারেই ব্যক্তিগত ৭ রানে বিদায় নেন তিনি। তিন নম্বরে নামা শান মাসুদ খালি হাতে বিদায় নিলে  ১৫ রানে ২ উইকেট হারায় পাকিস্তান।
শুরুর চাপটা সামলে উঠেন বাবর ও হায়দার আলি। ৩২ বলে ৪৭ রান তুলেন তারা। জুটিতে ১৮ রান অবদান রেখে ফিরেন হায়দার। তার ১৪ বলের ইনিংসে ১টি করে চার-ছক্কা মারেন তিনি।
হায়দারের বিদায়ে উইকেটে বাবরের সঙ্গী হন ইফতেখার। এই জুটি পাকিস্তানের রান ১শ পার করেন। ৩৫ বলে ৪৮ রানের জুটি গড়েন বাবর-ইফতেখার। মারমুখী ইফতেখার ২১ বলে ২টি করে চার-ছক্কায় ৩১ রান করে আউট হন ।
১৪তম ওভারে টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের ২৭তম হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নেন বাবর। ৪১ বলে অর্ধশতকের পর মারমুখী হন বাবর। তার সাথে তাল মিলিয়ে দ্রুত রান তুলেন আসিফ আলি ও মোহাম্মদ নাওয়াজ। ষষ্ঠ উইকেটে আসিফের সাথে ১৫ বলে ২৬ ও সপ্তম উইকেটে নাওয়াজের সাথে ১৮ বলে ৩৩ রান যোগ করেন বাবর। ফলে ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৬৯ রানের লড়াকু সংগ্রহ পায় পাকিস্তান।
আসিফ ৯ বলে ৯ ও নাওয়াজ ৭ বলে ১২ রান করেন। ৭টি চার ও ৩টি ছক্কায় ৫৯ বল খেলে অনবদ্য ৮৭ রান করেন বাবর। এই ইনিংস খেলার পথে টি-টোয়েন্টিতে পঞ্চম ব্যাটার হিসেবে ৮৬তম ম্যাচেই তিন হাজার রান পূর্ণ করেছেন বাবর। বাবরের আগে এই তালিকায় নাম তুলেন ভারতের রোহিত শর্মা-বিরাট কোহলি, নিউজিল্যান্ডের মার্টিন গাপটিল ও আয়ারল্যান্ডের পল স্ট্রার্লিং।
বল হাতে ইংল্যান্ডের ডেভিড উইলি ও স্যাম কারান ২টি করে উইকেট নেন।
আগের দুই ম্যাচে ১৬৭ ও ১৪৬ রান তাড়া করতে গিয়ে ম্যাচ হেরেছিলো ইংল্যান্ড। এবার ইনিংসের শুরু থেকেই আক্রমনাত্মক ইংল্যান্ডের দুই ওপেনার সল্ট ও অ্যালেক্স হেলস। প্রথম ৩ ওভারেই ৫০ রান তুলে ফেলেন তারা। ৪টি করে চার ও ১টি করে ছক্কা মারেন সল্ট ও হেলস।
স্পিনার নাওয়াজের প্রথম ওভারে ১১, শাহনাওয়াজ দাহানির পরের ওভারে ২২ ও মোহাম্মদ ওয়াসিমের করা তৃতীয় ওভার থেকে ১৭ রান তুলেন সল্ট-হেলস।
চতুর্থ ওভারের চতুর্থ বলে শাদাব খানের শিকার হয়ে বিদায় নেন  ৪টি চার ও ১টি ছক্কায় ১২ বলে ২৭ রান করা হেলস।  ২৩ বলে ৫৫ রানের উদ্বোধনী গড়েন হেলস ও সল্ট।
নাওয়াজের করা পঞ্চম ওভার থেকে ৩টি চার ও ১টি ছক্কায় ১৯ রান নেন সল্ট। পাওয়ার প্লেতে ১ উইকেটে ৮২ রান তুলে ম্যাচের লাগাম নিয়ে নিয়ে ইংল্যান্ড।
ইনিংসের সপ্তম ওভারে  এবং মুখোমুখি হওয়া ১৯ বলেই টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় হাফ-সেঞ্চুরি করেন সল্ট। ইংল্যান্ডের কোন ব্যাটারের তৃতীয় দ্রুততম হাফ-সেঞ্চুরি এটি। সল্টের হাফ-সেঞ্চুরি পাওয়া ওভারেও ২০ রান পায় ইংল্যান্ড। আমের জামেলের করা ঐ ওভারে সল্ট ২টি চার ও ১টি ছক্কা এবং ডেভিড মালান ১টি চার মারেন। এমন অবস্থাতে ৭ ওভারেই ইংল্যান্ডের রান ১শতে পৌঁছায়।
দ্রুত রান তোলার গতি ধরে রাখেন সল্ট ও মালান। ৯ ওভার শেষে ১২৮ রানে পৌঁছে যায় ইংল্যান্ড। দশম ওভারে মালানকে নিজের দ্বিতীয় শিকার বানান শাদাব। ১৮ বলে ২৬ রান করেন মালান। সল্ট-মালান দ্বিতীয় উইকেটে ৩৪ বলে যোগ করেন ৭৩ রান ।
মালান যখন ফিরেন তখন জয় থেকে ৪২ রান দূরে ইংল্যান্ড। ৩৩ বল বাকী রেখে দলকে জয় নিশ্চিত করেন সল্ট ও বেন ডাকেট। তৃতীয় উইকেটে ৩০ বলে ৪২ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়েন তারা। ১৯ বলে ৪টি চারে অপরাজিত ২৬ রান করেন ডাকেট। সল্টের ৪১ বলের ইনিংসে ১৩টি চার ও ৩টি ছক্কা ছিলো।
আগামীকাল সিরিজ সপ্তম ও শেষ ম্যাচে আবারও মুখোমুখি হবে পাকিস্তান ও ইংল্যান্ড। এমন ম্যাচের জয়ী দল সিরিজ জিতে নিবে।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়