BSS-BNhrch_cat_news-24-5
বাসস
  ১৬ আগস্ট ২০২২, ১৪:১১

প্রিমিয়ার লিগ: নুনেজের লাল কার্ড: প্যালেসের সাথে ড্র করতে বাধ্য হলো লিভারপুল

লন্ডন, ১৬ আগস্ট, ২০২২ (বাসস) : সোমবার প্রিমিয়ার লিগে ঘরের মাঠ এ্যানফিল্ডে ১০ জন নিয়ে খেলে ক্রিস্টাল প্যালেসের সাথে শেষ পর্যন্ত ১-১ গোলের ড্র নিয়ে মাঠ ছেড়েছে লিভারপুল। এর মাধ্যমে  ২০১৭ সালের পর প্রথমবারের মত ঘরের সমর্থকদের সামনে প্রিমিয়ার লিগের কোন ম্যাচে পরাজয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে অল রেডরা।
প্রথমার্ধে উইলফ্রিড জাহার গোলে এগিয়ে গিয়েছিল প্যালেস। লুইস দিয়াজের দুর্দান্ত স্ট্রাইকে ৬১ মিনিটে সমতায় ফিরে স্বাগতিকরা। কিন্তু তার আগে ৭৫ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে বেনফিকা থেকে দলে আসা উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার নুনেজের লাল কার্ডে ১০ জনের দলে পরিনত হয়েছিল লিভারপুল। ৫৭ মিনিটে জোয়াকিম এন্ডারসনকে মাথা দিয়ে গুঁতো দেবার অপরাধে লাল কার্ড দেখতে হয়েছে নুনেজকে। এর আগে লিভারপুলের জার্সি গায়ে প্রথম দুই ম্যাচে অবশ্য নুনেজ গোল পেয়েছেন। কমিউনিটি শিল্ডে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে ও গত সপ্তাহে ফুলহ্যামের বিপক্ষে বদলী হিসেবে খেলতে নেমে ২-২ গোলের ড্রয়ের ম্যাচটিতে গোল করে তিনি লিভারপুলকে রক্ষা করেছিলেন। এই ড্রয়ে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ও টেবিলের শীর্ষে থাকা সিটির তুলনায় লিগের দুই ম্যাচ পরে চার পয়েন্টে পিছিয়ে থাকলো জার্গেন ক্লপের দল। 
এই ঘটনায় নুনেজ সতীর্থদের প্রতিপক্ষের কাছে নীচু করেছেন কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে লিভারপুল বস ক্লপ বলেছেন, ‘এটা সে নিজেই জানে। অবশ্যই লাল কার্ডটা সঠিক ছিল। তবে তাকে প্ররোচিত করা হয়েছিল। কিন্তু তার অর্থ এই নয় যে সে এই ধরনের ব্যবহার করবে।’
দিয়াজের অসাধারণ গোলে লিভারপুল শেষ পর্যন্ত ম্যাচে সমতা ফিরিয়েছিল। মৌসুম শুরুর আগেই ইনজুরির তালিকাটা দীর্ঘ হওয়ায় এমনিতেই দুঃশ্চিন্তায় ছিলেন ক্লপ। যে কারনে দুই ড্রয়ে মৌসুম শুরুর বিষয়টি নিয়ে খুব একটা অস্বস্তিতে নেই ক্লপ। ইনজুরির কারনে ইতোমধ্যেই দলের বাইরে রয়েছেন রবার্তো ফিরমিনো, থিয়াগো আলচানতারা, দিয়োগো জোতা, জোয়েল মাটিপ ও ইব্রাহিমা কোনাটে। বদলী বেঞ্চ থেকে মাঠে নামার জন্য একমাত্র ফিট খেলোয়াড় হিসেবে নিজেকে প্রমান করেছেন জো গোমেজ। ২০২০/২১ মৌসুমের শেষ ম্যাচের পর প্রিমিয়ার লিগের প্রথম ম্যাচে মূল একাদশে খেলার সুযোগ পেয়েছেন সেন্টার-ব্যাক ন্যাট ফিলিপস।
ক্লপ বলেন, ‘এই মুহূর্তে আমার মধ্যে যে অনুভূতিটা আসছে সেটা হলো গর্ব। যে ধরনের দূর্বল প্রস্তুতি নিয়ে আমরা মৌসুম শুরু করেছি তা অবিশ্বাস্য। প্রতি ম্যাচেই কেউ না কেউ সমস্যায় পড়ছে।’
মৌসুমের প্রথম ম্যাচে নতুন উন্নীত ফুলহ্যামের বিপক্ষে দুই পয়েন্ট নষ্ট করা কোনভাবেই উচিৎ হয়নি বলে মনে করেন ক্লপ। ঐ ম্যাচে শুরুটা ভাল না হলেও কাল নিজেদের মাঠে আক্রমনাত্মক মেজাজেই খেলা শুরু করেছিল লিভারপুল। জেমস মিলনার, নুনেজ ও মোহাম্মদ সালাহ প্রত্যেকেই বড় সুযোগ পেয়েও তা কাজে লাগাতে পারেননি। হার্ভে এলিয়টের শট কোনমতে ব্লক করে দেন এন্ডারসন। প্রথম ৩০ মিনিটে প্যালেস খুব কমই প্রতিপক্ষের অর্ধে খেলতে পেরেছে। কিন্তু প্যাট্রিক ভিয়েরার গেমপ্ল্যান দারুনভাবে দলকে এগিয়ে দিতে কাজে এসেছে। ৩২ মিনিটে এবেরেচি এজের নিখুঁত পাসে অফসাইড ট্র্যাপ ফাঁকি দিয়ে জাহা কোনাকুনি শটে এ্যালিসন বেকারকে পরাস্ত করলে এগিয়ে যায় প্যালেস। বিরতির আগে সমতা ফেরানোর সুযোগ পেয়েছিল স্বাগতিকরা। কিন্তু নুনেজের ব্যর্থতায় তা সম্ভব হয়নি। 
৫৭ মিনিটে এন্ডারসনের সাথে বিতর্কে জড়িয়ে লাল কার্ডে উল্টো মাঠ ছাড়তে হয় নুনেজকে। এর অর্থ হচ্ছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, বোর্নমাউথ ও নিউক্যাসেলের বিপক্ষে হয়ত তাকে দর্শক হয়েই থাকতে হতে পারে। বেশ কিছু অসুবিধা সত্বেও ঘরের মাঠে লিভারপুল তাদের অসাধারন রেকর্ড ভাঙ্গতে দেয়নি। ৬১ মিনিটে দিয়াজ অনেকটা একক প্রচেষ্টায় লিভারপুলকে সমতায় ফেরান। লিভারপুলের একজন খেলোয়াড় কম থাকার সুবিধাটা অবশ্য কাউন্টার এ্যাটাক থেকে কোনবারই কাজে লাগাতে পারেনি প্যালেস। ম্যাচ শেষের ১২ মিনিট আগে শিচেক ডুকোর্সের ক্রসে জাহার শটটি পোস্টে না লাগলে তখনই হয়ত দলের জয় নিশ্চিত করতে পারতো প্যালেস।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
বেটা ভার্সন