BSS-BNhrch_cat_news-24-5
বাসস
  ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৯:২৫

বক্তব্য খণ্ডিত ও বিকৃত করে একটি পক্ষ অপপ্রচার চালাচ্ছে : চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক

চট্টগ্রাম, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ (বাসস) : জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে সকলের প্রবেশাধিকার রয়েছে। হাজার মানুষের ভিড়ে কে মোনাজাত ধরলো, কে গীতা পাঠ করলো, কে বাইবেল পড়লো এটা জেলা প্রশাসকের দেখার বিষয় না। মোনাজাতে অংশ নেওয়াকে সামনে এনে বক্তব্য খণ্ডিত ও বিকৃত করে একটি পক্ষ অপপ্রচার চালাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান।  
শনিবার  দুপুরে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।
জেলা প্রশাসক বলেন, গত ১৫ সেপ্টেম্বর ছিল জেলা পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন। বিভিন্ন প্রার্থীর অনেক কর্মী, সমর্থক, দলীয় নেতা এবং উৎসুক জনতায় পরিপূর্ণ ছিল জেলা প্রশাসকের কার্যালয়। এমনকি বারান্দা থেকে নীচতলা পর্যন্ত উৎসুক জনতা। জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে একই তারিখে সকাল ১০ টা হতে সম্প্রীতি সমাবেশ, আসন্ন দুর্গাপূজার প্রস্তুতিমূলক বিশেষ সভা, বিভিন্ন দুর্ঘটনায় নিহত ও আহত ব্যক্তিদের চেক বিতরণের কর্মসূচী ছিল। সম্প্রীতি সমাবেশের প্রস্তুতিমূলক সভা চলাকালীন জেলা পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলকারীরা একযোগে সম্মেলন কক্ষে প্রবেশ করেন এবং হুড়োহুড়ি করে জেলা প্রশাসকের নিকট মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।  
তিনি আরও বলেন, মানুষের ভিড়ের কারণে সভাকক্ষে এক বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। সাম্প্রতিক সময়ে বিএম কন্টেইনার ডিপোতে অগ্নিকা-ে নিহত ব্যক্তিবর্গ, মিরসরাইতে রেলক্রসিং দুর্ঘটনায় নিহত ব্যক্তিবর্গ ও গত ১৪ সেপ্টেম্বর জোরারগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪ জন ব্যক্তির আত্মার মাগফেরাত কামনায় পূর্ব থেকেই মোনাজাতের সিদ্ধান্ত ছিল। মনোনয়নপত্র দাখিলকালীন ভিড়ের মধ্যে একজন মোনাজাত ধরেন। বিক্ষিপ্তভাবে সম্মেলন কক্ষে উপস্থিত অনেকেই মোনাজাতে অংশ নেয়। হৈ চৈ এবং বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির মধ্যে সকলকে মোনাজাত পরিচালনায় নিবৃত্ত করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হই। মোনাজাতে দেশের উন্নয়ন অগ্রগতি, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা এবং দুর্ঘটনায় নিহত ও আহত ব্যক্তিদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয়। জেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে কোনো প্রকার কথা মোনাজাতে বলা হয়নি।  
মমিনুর রহমান বলেন, জেলা প্রশাসক দুর্গাপূজা এবং সম্প্রীতি সমাবেশের প্রস্তুতিমূলক সভায় দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা এবং কোনো ষড়যন্ত্র বা নাশকতাকারীদের দ্বারা যাতে আসন্ন দুর্গাপূজায় কোনোরূপ অনাকাঙ্খিত ঘটনা না ঘটে সে জন্য সকলের সহযোগিতা চাওয়া হয়। কোনো দলের পক্ষে ভোট চাওয়া বা জেলা পরিষদ নির্বাচনকে প্রভাবিত করার মতো কোনো বক্তব্য সেদিন দেওয়া হয়নি।  
এদিকে, চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসককে পরিকল্পিতভাবে বিতর্কিত করার চেষ্টা হচ্ছে বলে মনে করছেন চট্টগ্রামের বিশিষ্টজনেরাও। তারা মানববন্ধন, প্রতিবাদ সমাবেশ ও সংবাদ সম্মেলন করে এর প্রতিবাদ জানাচ্ছেন।
জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধে অপপ্রচারসহ ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে শনিবার চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব চত্ত্বরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সমাবেশ শেষে প্রধানমন্ত্রী ববরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেন চট্টগ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধারা।
সমাবেশে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড চট্টগ্রামের কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আহমদ বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে ডিসি’র উদ্যোগে উত্তর কাট্টলী মৌজার প্রায় ৩০ একর জায়গা নিয়ে গড়ে উঠা অবৈধ ইটভাটা উচ্ছেদ করা হয়। মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত এ স্থানে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিসৌধ ও যাদুঘর নির্মাণে ডিপিপি প্রস্তুতের কাজ চলছে। ডিসি’র নেতৃত্বে সীতাকু-ের জঙ্গল সলিমপুরে ভূমিদস্যু ও পাহাড়খেকোদের কবল থেকে প্রায় ৮ হাজার কোটি টাকার ৩ হাজার ১’শ একর সরকারী খাসজমি উদ্ধার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। একইসাথে চট্টগ্রামের পরিবেশ, প্রতিবেশ ও জীববৈচিত্র সংরক্ষণ করে এখানে কেন্দ্রীয় কারাগার স্থাপন ও নাইট সাফারী পার্কসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা তৈরী করতে মাস্টারপ্ল্যান প্রণয়নের কাজ চলছে। চট্টগ্রামের গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা পরীর পাহাড় থেকে ২ শতাধিক অবৈধ স্থাপনা ও নগরীর বিভিন্ন ঝুকিঁপূর্ণ পাহাড়ের পাদদেশের ৫৮৭টি অবৈধ স্থাপনা অপসারণ করেন তিনি। জেলা প্রশাসকের এ সকল দুঃসাহসিক কর্মকা-ে একটি চক্র ক্রমাগতভাবে জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধে নানামুখী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। আমরা চট্টগ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধারা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়