BSS-BNhrch_cat_news-24-5
বাসস
  ২১ জানুয়ারি ২০২২, ১৭:১২
আপডেট  : ২১ জানুয়ারি ২০২২, ১৮:৩২

বগুড়ায় আলু উত্তোলনে ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষক

বগুড়া, ২১ জানুয়ারি, ২০২২(বাসস) : জেলায় ক্ষেত থেকে আলু উত্তোলনে ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষক। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর এবার বগুড়ায় আলু চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে ৫৮ হাজার ৬০০ হেক্টর জমিতে। কিন্তু  এবার বগুড়াতে প্রায় ১ হাজার হেক্টর জমিতে আলু চাষ কম হয়েছে। এবার আলু চাষ হয়েছে ৫৭ হাজার ৫১৫ হেক্টর জমিতে। 
গতবছর জেলায়  আলু উৎপাদন হয়েিেছল ১১ লাখ ৬৯ হাজার ৬৮০ টন।এখন পর্যন্ত ঠিক কি পরিমাণ আলু উত্তোলন হয়েছে অনুমান করা যাচ্ছেন বলে জানান- জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক এনামুল হক। 
কারন আলু উত্তোলন চলমান রয়েছে। কৃষক আব্দুল লতিফ জানান, এবার আলু ক্ষেতে রোগবালই ছিল না। বা লেটব্রøইট রোগেও আক্রান্ত হয়নি, তাই উৎপদান বেশি হওযার আশা করছেন। বগুড়ায় নানা জাতের আলু উৎপাদন হয়ে থাকে। এখানে স্থানীয় লাল ফাটা পাখড়ি, রুমান, উচ্চ ফলনশীল আলু কার্ডিনাল, গ্রানুলা, লেডি রোজেটা, বিনোলা, এস্টিনিক্স। 
এ মূহুর্তে জেলায় লাল ফাটা পাখড়ি, গ্রানুলা বেশি উৎপাদন হয়ে থাকে। এর মধ্যে লাল ফাটা পাখড়ির জনপ্রিয়।  
এছাড়া স্থানীয় একটি জাতের আঠালো আলু (হাগড়াই)  ভর্তার জন বেশি জনপ্রিয়। 
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক এনামুল হক জানান আলুর দাম এখন কিছুটা কম হলেও সংরক্ষণের জন্য যখন আলু ব্যবসাীয়রা হিমাগারে রাখার জন্য কিনবে তখন আলুর ন্যায্য মূল পাবে। কৃষক যাতে ন্যায্য মূল্য পায় তার সব রকমসব রকম পরমর্শ দেয়া হচ্ছে।
শাখারিয়ার আনু চাষি রফিক মোল্লা জানান, ভাল দাম পাবার জন্য তারা মাঠ থেকে আলু তুলেন না। সংরক্ষণের জন্য যখন হিমাগারে আলু ব্যবসায়ীরা কেনা উদ্যোগ নেবে তখনই তারা আলু ক্ষেত থেকে উঠাবে। এই আলু বিদেশে রফতানী উপযোগী হয়ে উঠবে।
জেলায় ৩৭ টি হিমাগার আছে যার ধান ক্ষমতা প্রায় ৩লাখ ৫১ হাজার ৬শ’ টন। জেলায় সংরক্ষিত আলু ছাড়াও  জেলার আশে পাশের জেলাতে সংরক্ষনের জন্য ব্যবসায়ীরা নিয়ে যায়। তখন আলুর ভাল মূল্য পায় কৃষক।

 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
বেটা ভার্সন