BSS-BNhrch_cat_news-24-5
বাসস
  ০৩ জুলাই ২০২২, ১৭:৪১

টেস্টের পর টি-টোয়েন্টিতেও রেকর্ড গড়লেন বিজয়

ডোমিনিকা, ৩ জুলাই, ২০২২ (বাসস) : ২০১৫ সালের নভেম্বরের পর গতরাতে বাংলাদেশের হয়ে টি-টোয়েন্টি খেলতে নেমেই রেকর্ড বইয়ে নাম লিখেছেন ব্যাটার এনামুল হক বিজয়। 
কারণ, প্রায় সাড়ে সাত বছর পর দেশের হয়ে টি-টোয়েন্টি খেলতে নামেন বিজয়। ওপেনিং এ ব্যাটার  জাতীয় দলের বাইরে থাকা অবস্থায় টি-টোয়েন্টিতে ৭৯টি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। সর্বশেষ ম্যাচ খেলার পর বিরতি দিয়ে দেশের আর কোন ক্রিকেটারের এমন নজির নেই। ৭৯ ম্যাচ বিরতির পর খেলতে নামায় রেকর্ড বইয়ে নাম উঠলো বিজয়ের। 
বিজয়ের  আগে এমন রেকর্ডটি ছিল আবুল হাসান রাজুর। ২০১২ সালে অভিষেকের পর চারটি টি-টোয়েন্টি খেলে দল থেকে বাদ পড়েন তিনি। এরপর ২০১৮ সালে আফগানিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি খেলার সুযোগ পান আবুল। এই বিরতির সময় বাংলাদেশ খেলে ৫০টি টি-টোয়েন্টি। 
বিজয় -আবুলের পর শফিউল ৩৭টি, নুরুল হাসান ৩৪টি ও ইমরুল কায়েস ২৭টি ম্যাচে বিরতি দিয়ে জাতীয় দলে ফিরেছিলেন। 
এই তালিকায় বিশ^ রেকর্ড ওয়েস্ট ইন্ডিজের ডেভন থমাসের দখলে। ২০০৯ সালে অভিষেকের পর ২০১৩ সালে ক্যারিয়ারের তৃতীয় ম্যাচ খেলেন থমাস। এরপর ১০২টি ম্যাচে জাতীয় দলের বাইরে ছিলেন  তিনি। ২০২১ সালে এসে দীর্ঘ বিরতির পর ক্যারিয়ারের চতুর্থ টি-টোয়েন্টি খেলেন থমাস। আর গতরাতে বাংলাদেশের বিপক্ষে ক্যারিয়ারের পঞ্চম ম্যাচ খেলতে নামেন থমাস। 
চলমান ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে ৭ বছর ৯ মাস পর টেস্ট খেলার সুযোগ পেয়েও রেকর্ড বইয়ে নাম তুলেছেন বিজয়। বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে দীর্ঘ বিরতির পর টেস্ট খেলার রেকর্ড গড়েন তিনি। ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে টেস্ট খেলার পর গত ২৪ জুন আবারও টেস্ট খেলার সুযোগ পান বিজয়।  ৭ বছর ৯ মাস ১১ দিন পর টেস্ট খেলতে নামেন তিনি। 
বাংলাদেশের হয়ে এর আগের রেকর্ডটি ছিলো পেসার নাজমুল হোসেনের। ২০০৪ সালের ১৭ ডিসেম্বর অভিষেক টেস্ট খেলার ৭ বছর পর, অর্থাৎ ২০১১ সালে নিজের দ্বিতীয় টেস্ট খেলতে নেমেছিলেন পেসার নাজমুল হোসেন। 
দীর্ঘ বিরতির পর টেস্টে খেলতে নেমে দুই ইনিংসে ২৩ ও ৪ রান করেছিলেন বিজয়। আর টি-টোয়েন্টিতে ১৬ রান করেন আনামুল। 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
বেটা ভার্সন