বাসস
  ১৭ জুন ২০২৪, ১৫:৩৬

ইউরোতে বড় কিছুর প্রত্যাশা করছেন পর্তুগালের রেকর্ডধারী রোনাল্ডো

লিপজিগ, ১৭ জুন ২০২৪ (বাসস/এএফপি) : ইউরোপীয়ান চ্যাম্পিয়নশীপে আরো কিছু ইতিহাস রচনার দৃঢ় সঙ্কল্প নিয়েই মাঠে নামতে যাচ্ছেন পর্তুগালের সুপারস্টার ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডো।
২০১৬ ইউরো জয়ী পর্তুগালকে আরো একটি বড় আন্তর্জাতিক শিরোপা উপহার দেয়াই এখন ৩৯ বছর বয়সী অভিজ্ঞ রোনাল্ডোর মূল লক্ষ্য।
আগামীকাল লিপজিগে চেক প্রজাতন্ত্রের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে ইউরো মিশন শুরু করতে যাচ্ছে পুর্তগাল। রোনাল্ডোর জন্য এটি রেকর্ড ষষ্ঠ ইউরো টুর্নামেন্ট হতে যাচ্ছে।
বাছাইপর্বে শতভাগ জয় নিয়ে রবার্তো মার্টিনেজের দল দুর্দান্ত ফর্মে থেকে চূড়ান্ত পর্বের টিকেট পেয়েছিল। তুরষ্ক, জর্জিয়া ও চেক প্রজাতন্ত্রের বিপক্ষে গ্রুপ-এফ’র লড়াই শেষে পর্তুগালের পরের রাউন্ডে যাওয়া এখন সময়ের ব্যপার।
জার্মানীতে এসে রোনাল্ডো সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘আমি বিশ^াস করি  ইউরো জয়ের পুরো সক্ষমতা আমাদের এই প্রজন্মের দলটির আছে।’
রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক এই তারকা স্ট্রাইকার ২০১৬ ইউরো জয়ী পর্তুগালের অন্যতম নির্ভরযোগ্য খেলোয়াড় ছিলেন। এবারও তার উপরই দল অনেকটা নির্ভরশীল। সৌদি আরবের পেশাদার লীগে আল নাসরের হয়ে খেলে নিজের খেলোয়াড়ী ক্যারিয়ারে ভিন্ন এক মাত্রা যোগ করেছেন রোনাল্ডো। গত সপ্তাহে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচেও তিনি দুই গোল করেছেন। এর মাধ্যমে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে গোলের রেকর্ড বাড়িয়ে নিয়ে গেছেন ১৩০’এ।
ইউরোপীয়ান চ্যাম্পিয়নশীপ ইতিহাসে  তিনি সর্বোচ্চ ১৪ গোল করেছেন। ফ্রান্সের কিংবদন্তী মিশেল প্লাতিনি ৯ গোল করে এই তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে।
ঘরের মাঠে ২০০৪ সালের ইউরো চ্যাম্পিয়নশীপে রোনাল্ডো প্রথমবারের মত খেলতে নেমেছিলেন। অভিষেকেই গ্রীসের বিপক্ষে গোলও করেছিলেন। এরপর থেকে প্রতি আসরেই তিনি গোল করার কৃতিত্ব দেখিয়েছেন। চূড়ান্ত পর্বে এ পর্যন্ত খেলেছেন ২৫টি ম্যাচ। শেষ পাঁচ আসরে একটি মাত্র ম্যাচে খেলতে পরেননি।
জার্মানীতে যদি তিনি গোল করতে পারেন তবে সবচেয়ে বেশী বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে ইউরোতে গোলের রেকর্ড গড়বেন। বর্তমানে অস্ট্রিয়ার ইভিচা ভাসটিচ এই রেকর্ড ধরে রেখেছেন। ২০০৮ সালে ৩৮ বছর ২৫৭ দিন বয়সে তিনি গোল করেছিলেন, যে রেকর্ড এখানো অক্ষুন্ন আছে।
রোনাল্ডো বলে, ‘আমি ফুটবল উপভোগ করি। রেকর্ড তার পরিনাম। আমার কাছে রেকর্ড গড়া লক্ষ্য নয়। কারন আমি মনে করি এগুলো স্বাভাবিক ভাবেই আসবে। ক্যারিয়ারে  ষষ্ঠ ইউরোপীয়ান চ্যাম্পিয়নশীপে খেলতে পেরে আমি দারুন খুশী। যতটা সম্ভব সেরা ভাবে এই আসরকে উপভোগ করা যায়, সেই চেষ্টাই আমার থাকবে। ভাল খেলা, দলের জয় নিশ্চিত করা, এসবই আমার মাথায় থাকবে।
২০২২ বিশ^কাপে পুর্তগালের শেষ দুই ম্যাচ থেকে বাদ পড়ার পর অনেকেই ভেবেছিল রোনাল্ডোর আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার হয়তো শেষের পথে। গ্রুপের তিন ম্যাচে মাত্র একটি গোল করার পরেই অভিজ্ঞ কোচ ফার্নান্দো সান্তোস রোনাল্ডোকে মূল দল থেকে বাদ দিয়েছিলেন।
ইউরো বাছাইপর্বে নতুন কোচ মার্টিনেজ আবারো পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর বিজয়ী রোনাল্ডোকে ফিরিয়ে আনেন। বাছাইপর্বের প্রতিটি ম্যাচেই তিনি মূল দলে খেলে আট গোল করেছেন। দীর্ঘ ও বর্ণাঢ্য আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে রোনাল্ডো পর্তুগালের জার্সিতে সর্বোচ্চ ২০৭টি ম্যাচ খেলেছেন। তারপরও প্রতি ম্যাচের আগেই আলাদা একটি অনুভুতি  তার মনের মধ্যে কাজ করে, ‘প্রতি ম্যাচের আগের দিনই কেমন যেন আলাদা একটি অনুভূতি অনুভব করি। কিন্তু এটাই স্বাভাবিক। আমি খুশী যে এই ধরনের অনুভূতি আমার মধ্যে কাজ করে। এখনো আমি একই ধরনের উদ্দীপনা অনুভব করি। এবারের ইউরোর জন্য আমরা পুরোপুরি প্রস্তুত।’
রোনাল্ডোর এই আত্মবিশ^াস পুরো দলকেই উজ্জীবিত করে তুলেছে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ডিফেন্ডার দিয়োগো ডালোট এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, রোনাল্ডোকে যারা চিনে তারা জানে সবসময় তার মধ্যে দল নিয়ে কত বড় চিন্তা কাজ করে। আমরা সবাই তাকে দলে পেয়ে দারুন সৌভাগ্যবান।’
শিরোপা জয়ে পর্তুগালকে অন্যতম ফেবারিট মানা হলেও চেক প্রজাতন্ত্র ২০ বছর ধরে কোয়ার্টার ফাইনালের উপরে উঠতে পারেনি। যদিও পর্তুগালের মতই ১৯৭৬ সালে চেকোস্লোভাকিয়া হিসেবে একবার তারা ইউরোর শিরোপা হাতে নিয়েছিল।
স্লাভিয়া প্রাগের টমাস হোলসের নেতৃত্বে তিন জনের রক্ষনভাগ ও দুই উইং-ব্যাক মিলে রোনাল্ডোকে আটকানোর পরিকল্পনা করেছে। যদিও দুই দশক ধরে পর্তুগালের এই সুপারস্টারকে কোন দলই সেভাবে প্রতিরোধ করতে পারেনি।

 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়