BSS-BNhrch_cat_news-24-5
বাসস
  ২২ জানুয়ারি ২০২২, ১৫:৫১

নীলফামারীতে ইজিপিপি’র সুফলভোগি ১৩ হাজার ৫৫১ পরিবার

নীলফামারী, ২২ জানুয়ারি, ২০২২ (বাসস) : জেলায় সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনির আওতায় অতি দরিদ্রের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচিতে (ইজিপিপি) প্রথম পর্যায়ে কাজের সুযোগ পেয়েছেন ১৩ হাজার ৫৫১ জন। 
এসব সুফলভোগি গ্রামীণ বিভিন্ন অবকাঠামো উন্নয়নে মাটি কাটার কাজ করবেন ৪০ কর্মদিবস। এজন্য প্রতিদিন ৪০০ টাকা হারে প্রত্যেকে মজুরী পাবেন ১৬ হাজার টাকা করে। 
জেলার ছয় উপজেলায় ওই ১৩ হাজার ৫৫১ জনের মধ্যে নীলফামারী সদর উপজেলায় রয়েছেন ৩ হাজার ৩৬৫ জন, ডোমারে ২ হাজার ১০২, ডিমলায় ২ হাজার ৪৯৯ জন, জলঢাকায় ২ হাজার ৬৪৫ জন, কিশোরগঞ্জে ১ হাজার ৭২৩ জন ও সৈয়দপুর উপজেলায় ১ হাজার ২১৭ জন।
জেলা সদরের রামনগর ইউনিয়নের বাহালীপাড়া গ্রামের আবুবক্কর ছিদ্দিক (৪৫) অসুস্থতাজনিত কারণে কর্মক্ষমতা হারিয়েছিলেন পাঁচ বছর আগে। তার সংসার চলছির অনেক কষ্টে। সেই সিদ্দিকের স্ত্রী রোজিনা বেগমের (৪০) কাজের সুযোগ হয়েছে অতি দরিদ্রের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচিতে (ইজিপিপি)। এমন সুযোগ পেয়ে তিনি বলেন,‘বহুদিন থাকি ভালমন্দ খাওয়াতো দূরের কথা ওষুধ কিনিবার টাকা হাতোত নাই। সরকারের দয়াত হামার মতন মানষির উপকার হছে।’
ওই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ওবায়দুল ইসলাম বলেন, ‘আমার ইউনিয়নে সরকারের ওই কর্মসূচিতে সিদ্দিকের ন্যায় ২০৫ অতিদরিদ্র পরিবার উপকৃত হয়েছে। ৪০ দিন কাজের পর প্রতিটি পরিবার ১৬ হাজার করে অর্থের যোগান পাবে। এসব পরিবারে অনেকটাই অর্থকষ্ট দূর হবে।’
নীলফামারী সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. রিয়াজুল ইসলাম জানান, ২০০৮ সাল থেকে সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনির আওতায় কর্মসূচিটি চালু রয়েছে। এমন কর্মসূচিতে গ্রামীণ রাস্তাঘাটের যেমন উন্নয়ন হচ্ছে, তেমনি অতিদরিদ্র পরিবারগুলোর আর্থিক কষ্ট দূর হচ্ছে।
তিনি বলে, ‘২০২১-২০২২ অর্থবছরে কর্মসূচিটির প্রথম পর্যায়ের কাজ শুরু হয়েছে চলতি বছরের ২ জানুয়ারি থেকে। প্রতি সপ্তাহে কাজ হবে পাঁচদিন করে। শনিবার থেকে বুধবার পর্যন্ত কাজ করে বৃহস্পতিবার মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্য মজুরী প্রদান করা হচ্ছে। এভাবে প্রতিজন ৪০ কর্মদিবস কাজ করে পাবেন ১৬ হাজার টাকা করে।’
জেলা ত্রাণ ও পূর্ণবাসন কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) রমিজ আলম বলেন, ‘সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীকে আর্থিক সহায়তাসহ সম্ভাব্য সব ধরনের সহায়তা দিতে সরকার নিরলসভাবে কাজ করছেন। এজন্য জেলার অতিদরিদ্র এবং মৌসুমী বেকার শ্রমিকদের জন্য ইজিপিপি প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। ত্রাণ ও পূনর্বাসন মন্ত্রণালয়ের সহযোগীতায় এটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।’ 
উল্লেখ্য, ওই প্রকল্পে সরকারের খরচ হবে ২১ কোটি ৬৮ লাখ ১৬ হাজার টাকা। এছাড়াও  প্রকল্পের আওতায় বিভিন্ন অবকাঠামো মেরামত ও সংস্কার (নন ওয়েজ) কাজের জন্য বরাদ্দ রয়েছে ৯৯ লাখ ৫৪ হাজার ১২০ টাকা।
 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
বেটা ভার্সন