মানুষের মধ্যে কর্মস্পৃহা জাগিয়ে তুলতে হবে : বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী

269

ঢাকা, ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ (বাসস) : বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান বলেছেন, মানুষের মধ্যে কর্মস্পৃহা জাগিয়ে তুলতে হবে। লিডারশিপ সহজ কাজ নয় একজন লিডারের প্রতিটি পদক্ষেপ, ভাবনা সিদ্ধান্ত হতে হবে দূরদর্শী। যেটা ছিল বঙ্গবন্ধুর মধ্যে। তাঁর এক ডাকে সমগ্র বাঙালি জাতি মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছে এবং বিশ্ববাসী এ যুদ্ধের সমর্থন দিয়েছে। তারই পরিকল্পনার অংশ হিসেবে বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ এবং পৃথিবীর অন্যতম বৃহৎ প্রকল্প রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা হয়েছে।
আজ বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদ (বিসিএসআইআর)-এর ডিআরআইসিএম অডিটোরিয়ামে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় আয়োজিত ২ দিনব্যাপী সেক্টর লিডারস ওয়ার্কশপে তিনি এসব কথা বলেন।
পরমাণু শক্তির শান্তিপূর্ণ ব্যবহার শীর্ষক কী-নোট পেপার উপস্থাপন করেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ. আনোয়ার হোসেন।
অনুষ্ঠানে দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূইয়া এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সমন্বয়ক (এসডিজি) মো. আবুল কালাম আজাদ।
অনুষ্ঠানে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় এবং সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও গবেষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
ইয়াফেস ওসমান বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের ধারাবাহিকতায় আজ আকাশে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট, সমুদ্রে সাবমেরিন, তথ্য প্রযুক্তিতে সাফল্য, পদ্মাসেতু, মেট্রোরেল, গড় আয়ু, মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি ইত্যাদি সকল ক্ষেত্রের সাফল্য ও মানবিকতায় বিশ্ববাসীকে হতবাক করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বে এটি সম্ভব হয়েছে।
ভিশন-২০৪১ অর্জনে সরকারের গৃহীত কর্মসূচি বাস্তবায়নে বিসিএসআইআর এর কার্যক্রম শীর্ষক পেপার উপস্থাপন করেন বিসিএসআইআরের চেয়ারম্যান মো. ফারুক আহমেদ। অন্যান্য মন্ত্রণালয় ও সংস্থা হতে অনুরূপ বিভিন্ন বিষয়ে পেপার উপস্থাপন করা হয়।

image_printPrint