সংখ্যালঘুসহ বিভিন্ন স্থানে প্রার্থীদের উপর হামলার অভিযোগ নির্বাচন কমিশনে

436

ঢাকা, ২২ ডিসেম্বর, ২০১৮ (বাসস) : ঠাকুরগাঁওয়ে সংখ্যালঘুসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রার্থীদের উপর হামলার অভিযোগ করেছে আওয়ামী লীগ। রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে আজ সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দল এ সংক্রান্ত অভিযোগ জমা দেয়।
প্রতিকার চেয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) কাছে লেখা আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সম্বনয়কারী ড. সেলিম মাহমুদ স্বাক্ষরিত অভিযোগে হামলার ঘটনার স্থান ও সময় উল্লেখ করে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরা হয়।
অভিযোগপত্র জমা দেয়ার পর দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মো. আক্তারুজ্জামান সাংবাদিকদের বলেন, আমরা হঠাৎ করে লক্ষ্য করলাম, ওবায়দুল কাদেরের প্রচারণায় হামলা, চট্টগ্রামে আফসারুল আমিনের মিছিলে হামলা, শুক্রবার রাতে মুক্তগাছায় পুলিশের ওপর ককটেল নিক্ষেপ করা হয়। দুঃখজনক ঘটনা হলো- ঠাকুরগাঁওয়ের জগন্নাথপুরে হিন্দুদের ওপর হামলা করা হয়েছে। এছাড়াও ওখানে গান পাউডার ব্যবহারের তথ্যও আমরা পেয়েছি। এই ঘটনাগুলো আমরা ২০১৩, ১৪ ও ১৫ সালে লক্ষ্য করেছি। আমরা আশঙ্কা করছি, জনগন্নাথপুরের এই ঘটনা সারাদেশে ছড়িয়ে পড়তে পারে।’
তিনি বলেন, ‘সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে কিছু কিছু আসনে বিএনপির প্রার্থীদের প্রার্থিতা বাতিল হয়েছে। আমরা জানতে পেরেছি, বিএনপি ওই সকল আসনে পুন:তফসিলের আবেদন করেছে। জাতীয় সংসদ নির্বাচন সম্পর্কিত মূল আইন গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশের (আরপিও) বিধানের আওতায় ওই সকল আসনে পুনঃতফসিলের সুযোগ নেই। সুপ্রিম কোর্টের আদেশেও ওই সকল আসনে পুনঃতফসিলের নির্দেশনা নেই। নির্বাচন কমিশনের কাছে এই ধরণের পুনঃতফসিলের জন্য বিএনপির আবেদনের জোরালোভাবে বিরোধীতা করেছি।’
লিখিত আবেদনে তারা জানায়, ঠাকুরগাঁও জেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের সিংগিয়া শাহাপাড়া গ্রামের কৃঞ্চ ঘোষের বাড়িতে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। আগুন দ্রুতই চারপাশে ছড়িয়ে পড়ে এবং বাড়িঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়। আগুনে ৮টি ঘর, ৭টি ছাগল, ৬০ মন ধান ও আসবাবপত্র পুড়ে ছাই হয়ে যা। এতে প্রায় ৫ লাখের বেশি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়।