উন্নয়শীল দেশে উন্নীত হওয়া স্বাধীনতার পর বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অর্জন : স্পিকার

338

ঢাকা, ১ নভেম্বর, ২০১৮ (বাসস) : স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়শীল দেশে উন্নীত হওয়া স্বাধীনতার পর বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অর্জন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মতো দক্ষ ও যোগ্য নেতৃত্বে সব খাতে গত দশ বছরে সাফল্যের ফলেই অর্জন সম্ভব হয়েছে। তিনি আজ নিজ নির্বাচনী এলাকা পীরগঞ্জের বড়বিলায় প্রস্তাাবিত হাইটেক পার্ক নির্মাণের জন্য স্থান নির্বাচন কাজ সরেজমিনে পরিদর্শন এবং বিভিন্ন স্থানে জনসংযোগ ও মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন। তিনি পীরগঞ্জের কেন্দ্রীয় পূজা মন্ডপ, প্রজাপাড়া, ও বড়বিলা এলাকায় জনসংযোগ ও স্থানীয় জনসাধারণের সাথে মতবিনিময় করেন। সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়।
স্পিকার বলেন, জনগণের অব্যাহত সমর্থনের মাধ্যমে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে, ২০২৪ সালের মধ্যে পরিপূর্ণ উন্নয়নশীল দেশে এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত সমৃদ্ধ দেশ গঠন করা হবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আজীবন জেল-জুলুম, নির্যাতন আর অত্যাচার সহ্য করে বাঙ্গালী জাতিকে স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ উপহার দিয়ে গেছেন। আর ক্ষুধা, দারিদ্র ও বৈষম্যমুক্ত বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আগামি দিনেও জনগেণর অব্যাহত সহযোগিতা ও সমর্থন প্রয়োজন। তিনি সরকারের আমলে সূচিত দেশের ব্যাপক উন্নয়নের কথা তুলৈ ধওে বলেন, পীরগঞ্জের জনগণ আর পিছিয়ে থাকবেনা। ইতিমধ্যেই তাদের উন্নয়নের মূল স্রোতে সম্পৃক্ত করা হয়েছে। ভবিষ্যতে আরও সুযোগ তৈরির মাধ্যমে ক্ষুধা,দারিদ্র ও বৈষম্যমুক্ত করতে কাজ করে যাবে সরকার।
স্পিকার বলেন, পীরগঞ্জ অঞ্চলের তরুণ সমাজ তথ্য প্রযুক্তির সাথে নিজেদের সম্পৃক্ত করে দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে। পীরগঞ্জে হাইটেক পার্ক চালু হলে দেশী-বিদেশী বিনিয়োগ এখানে আসবে এবং নতুন নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে। এসময় তিনি পীরগঞ্জের মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য হাইটেক পার্ক সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচন করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তথ্যপ্রযুক্তি খাতে তরুণদের কর্মসংস্থানের পাশাপাশি আইটি খাত থেকে রফতানি আয় বাড়োনোর স্বপ্ন নিয়েই তৈরি হচ্ছে এই পার্কগুলো। সরকারের লক্ষ্য, ২০২১ সালের মধ্যে দেশে তথ্য প্রযুক্তিতে পাঁচ বিলিয়ন ডলার আয়। সেটিকে ত্বরান্বিত করতে হাইটেক পার্ক অন্যতম অবদান রাখবে।
স্পিকার বলেন, বিগত ৫ বছরে সারাদেশের ন্যায় পীরগঞ্জেও সুষম উন্নয়ন হয়েছে। আজ প্রধানমন্ত্রী আরও অনেকগুলো উন্নয়ন প্রকল্পের সাথে ওয়াজেদ মিয়া টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ এর শুভ উদ্বোধন করেছেন। এটিও এ অঞ্চলের কর্মসংস্থানে ভূমিকব রাখবে। তিনি বলেন বর্তমান সরকার পীরগঞ্জের রাস্তাঘাট, ব্রীজ-কালভার্ট, স্কুল-কলেজ, মসজিদ-মাদ্রাসা-মন্দিরসহ নানা অবকাঠামো উন্নয়ন করেছে। এ অঞ্চলের নারীদের উন্নয়নে সেলাই মেশিন বিতরণ ও তাদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে অর্থনৈতিক ক্ষমতায়ন করা হয়েছে। এসময় তিনি উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখে ভবিষ্যতেও পীরগঞ্জের উন্নয়নে নিজেকে সম্পৃক্ত রাখার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।
পৌর মেয়র এস এম তাজিমুল ইসলাম শামীমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রাণালয়ের যুগ্ম সচিব জাহাঙ্গীর আলম বুলবুল, জেলা পরিষদের প্রশাসক সাফিয়া খানম,জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি সায়াদাত হোসেন বকুল, জেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক সাইদুর রহমান পিন্টু এবং রংপুর জেলা পরিষদের সদস্য মোনায়েম সরকার মানু।

image_printPrint