নোয়াখালী ইজেড স্থাপনে বেজা ৪,৮৩৫.৯১ একর খাস জমি বরাদ্দ পেয়েছে

230

ঢাকা, ১ এপ্রিল, ২০২১ (বাসস) : প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের (পিএমও) অনুমোদনে ভূমি মন্ত্রণালয় নোয়াখালী জেলার কোম্পানিগঞ্জে নোয়াখালী অর্থনৈতিক অঞ্চল (ইজেড) স্থাপনে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) অনুকূলে ৪,৮৩৫.৯১ একর খাস জমি বরাদ্দ দিয়েছে। নোয়াখালি জেলা প্রশাসন ইতোমধ্যেই জেলার সুবর্ণচর উপজেলায় নোয়াখালি ইজেড’র কাছে একটি অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তুলতে বেজার কাছে প্রস্তাব পাঠিয়েছে।
বাসস’র সঙ্গে আলাপকালে বেজার চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর (বিএসএমএসএন) সাথে নোয়াখালি ও সুবর্ণচর অর্থনৈতিক অঞ্চল যুক্ত করায় বিপুল সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তিনি বলেন, দেশকে পরিকল্পিত শিল্পায়নের পথে এগিয়ে নিতে এটি একটি বিশাল পদক্ষেপ।
তিনি বলেন, বেজা শিল্পের বৈচিত্রকরণ এবং কর্মসংস্থান, উৎপাদন ও রফতানি বৃদ্ধিও মাধ্যমে দ্রুত অর্থনৈতিক বিকাশকে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে দেশের সম্ভাব্য অঞ্চলগুলোকে অর্থনৈতিক অঞ্চলরূপে গড়ে তোলার চেষ্টা করছে।
চৌধুরী বলেন, বেজা পরিচালনা কমিটি ইতোমধ্যে ৯৭ টি অর্থনৈতিক অঞ্চলে জমির অবস্থান ও পরিমাণ অনুমোদন করেছে।এরমধ্যে ৬৮ টি সরকারী অর্থনৈতিক অঞ্চল এবং ২৯ টি বেসরকারী অঞ্চল। তিনি বলেন, অঞ্চলগুলোর মধ্যে ৯ টি ইতোমধ্যে উৎপাদনে গেছে, ২৮ টি অঞ্চলের উন্নয়ন দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। ২৬ টি শিল্পকারখানা উৎপাদনে গেছে এবং ৩৫ টির নির্মান কাজ চলছে। অর্থনৈতিক অঞ্চল ইতোমধ্যে ৩৯ হাজার লোকের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করেছে।
বেজা প্রধান বলেন, নতুন বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের জন্য বেজা স্থানীয় ও বিদেশী ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে প্রায় ২৭.০৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগের প্রস্তাব পেয়েছে। প্রস্তাবিত বিনিয়োগ হলে দেশে ১০ লাখ লোকের কমৃসংস্থান হবে। বিনিয়োগ প্রস্তাবের ২৩.৯৭ বিলিয়ন ডলার সরকারী ইজেডগুলোতে এবং ৩,১ বিলিয়ন ডলার প্রস্তাব এসেছে বেসরকারী ইজেডে। সরাসরি বিদেশেী বিনিয়োগ (এফডিআই) প্রস্তাব এসেছে প্রায় ১,৬২ বিলিয়ন ডলারের।