বাসস দেশ-৫০ : ‘মাস্ক নেই, বই বিক্রি নেই’ শ্লোগান লিখে রাখার আহবান বাংলা একাডেমির

83

বাসস দেশ-৫০
বইমেলা-
‘মাস্ক নেই, বই বিক্রি নেই’ শ্লোগান লিখে রাখার আহবান বাংলা একাডেমির
ঢাকা, ২৪ মার্চ, ২০২১ (বাসস) : বইমেলায় অংশগ্রহণকারী প্রতিটি প্রকাশনীর অভ্যন্তরে ‘মাস্ক নেই, বই বিক্রি নেই’ এই শ্লোগান লিখে রাখার আহবান জানিয়েছে বাংলা একাডেমি কর্র্তৃপক্ষ।
আজ বুধবার বিকেল ৫ টায় বাংলা একাডেমির শহিদ মুনীর চৌধুরী সেমিনার কক্ষে চলমান করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে ‘অমর একুশে বইমেলা ২০২১’ বিষয়ে এক পর্যালোচনা সভায় এ আহবান জানানো হয়।
অমর একুশে বইমেলার ৭ম দিনে আজ নতুন বই এসেছে ১৯৪টি।
প্রতিদিনকার মতো আজ বিকেল ৪ টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী : মুক্তিযুদ্ধে সংবাদ সাময়িকপত্র শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান।
এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জাফর ওয়াজেদ। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন মোহাম্মদ সেলিম এবং কুতুব আজাদ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক সৈয়দ মোহাম্মদ শাহেদ।
আলোচকবৃন্দ বলেন, পাকিস্তানি শাসনামলে সংবাদপত্র যেমন বাঙালির অধিকার আদায়ের আন্দোলনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে তেমনি মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে সংবাদপত্র ও সাময়িকপত্রের ছিল গৌরবজনক ভূমিকা। আর তাই মুক্তিযুদ্ধে সংবাদপত্র ও স্বাধীনতাকামী মুক্তচিন্তার অধিকারী সাংবাদিকদের পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর কঠোর নজরদারি ও নিষেধাজ্ঞার সম্মুখীন হতে হয়। সে সময় বাংলাদেশের মুক্তি আন্দোলনের সমর্থক অকুতোভয় সাংবাদিকগণ ত্যাগের অতুলনীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।
লেখক বলছি অনুষ্ঠানে নিজেদের বই নিয়ে আলোচনা করেন হাবিব আনিসুর রহমান, সুদীপ্ত সালাম, সাকিরা পারভীন সোমা।
আগামীকাল ২৫শে মার্চ গণহত্যা দিবসের কালরাত্রি স্মরণে রাত ৯ টা থেকে ৯:০১টা পর্যন্ত এক মিনিট ‘ব্লাক আউট’ কর্মসূচি পালন করা হবে।
বৃহস্পতিবার অমর একুশে বইমেলার ৮ম দিন। মেলা চলবে বিকেল ৩ টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত।
বিকেল ৪ টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী : বাংলাদেশের গণহত্যা ও গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন স্বদেশ রায়। আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী সাজ্জাদ আলী জহির (বীর প্রতীক), আহম্মেদ শরীফ এবং চৌধুরী শহীদ কাদের। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন।
বাংলা একাডেমরি মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজীর সভাপতিত্বে পর্যালোচনা সভায় গত এক সপ্তাহে চলমান বইমেলার সার্বিক পরিস্থিতির মূল্যায়ন ও পর্যালোচনা করে কিছু সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। পূর্বঘোষণা অনুযায়ী আগামী ১৪ই এপ্রিল পর্যন্ত বইমেলা চালু রাখার অবস্থান পুনর্ব্যক্ত করা হয়।
সভায় ক্রমবর্ধমান করোনা-পরিস্থিতিতে বাংলা একাডেমি, প্রকাশকবৃন্দ এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর যৌথ উদ্যোগে মেলায় আগতদের স্বাস্থ্য-সুরক্ষা নিশ্চিত করতে মেলায় অংশগ্রহণকারী প্রতিটি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানে হ্যান্ডওয়াশ, হ্যান্ড স্যানিটাইজার সরবরাহ এবং মাস্ক ব্যতীত বই বিক্রয় নিষিদ্ধ করার কথা বলা হয়। মেলা প্রাঙ্গণে কেউ যেন মাস্ক ছাড়া ঘোরাফেরা না করে, সে বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য সমন্বিত দলের পদক্ষেপের পাশাপাশি মাইকে সচেতনামূলক প্রচারণাও চালানো হবে বলে উল্লেখ করা হয়।
আগামী ২৬ মার্চ শুক্রবার মহান স্বাধীনতা দিবস এবং ২৭ মার্চ শনিবার সরকারি ছুটির দিন থাকায় মেলায় জনসমাগম বৃদ্ধি পেতে পারে- এ বিবেচনায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে বইমেলায় প্রবেশ ও অবস্থানের বিষয়ে পর্যাপ্ত প্রচারণার জন্য একাডেমির পক্ষ থেকে দেশের সংবাদমাধ্যমের কাছে আহবান জানানো হয়।
বাসস/সবি/এসএস/২১৪৩/এমএবি