বাসস দেশ-৩৫ : বহিঃপ্রচার অনুবিভাগের নাম পরির্বতন করে জনকূটনীতি অনুবিভাগ করার সিদ্ধান্ত

119

বাসস দেশ-৩৫
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়-জনকূটনীতি
বহিঃপ্রচার অনুবিভাগের নাম পরির্বতন করে জনকূটনীতি অনুবিভাগ করার সিদ্ধান্ত
ঢাকা, ৮ নভেম্বর ২০২০ (বাসস) : পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বহিঃপ্রচার অনুবিভাগের নাম পরির্বতন করে জনকূটনীতি অনুবিভাগ হিসেবে নামকরণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।
আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে বাংলাদেশের স্বার্থ সংরক্ষণ ও জনকূটনীতির প্রয়োজনীয়তার বিষয় বিবেচনায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া বলে আজ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশে কার্যকর গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা বর্তমান সরকারের অন্যতম প্রধান লক্ষ্য। গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রকাঠামোয় রাষ্ট্র পরিচালনার সর্বস্তরে জনগণের অংশগ্রহণ এবং জনমতের প্রতিফলন অপরিহার্য। রাষ্ট্র পরিচালনার অন্যান্য ক্ষেত্রের ন্যায় পররাষ্ট্রনীতি প্রণয়ন ও বাস্তবায়নেও তাই জনগণকে সম্পৃক্ত করা প্রয়োজন। একইসাথে বিদেশে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উন্নয়নে ও দেশের স্বার্থ সংরক্ষণে বিদেশী সরকার, রাজনীতিক, ব্যবসায়ী, বিনিয়োগকারী, গবেষণা সংস্থা, গণমাধ্যম এবং অন্যান্য স্বার্থসংশ্লিষ্ট অংশীদারদের সম্পৃক্ত করারও ব্যাপক প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়, সাম্প্রতিককালে প্রযুক্তি ও যোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নয়নের ফলে ভৌগলিক দূরত্ব ও রাষ্ট্রীয় সীমানাকে অতিক্রম করে বিশ্ব পরিমন্ডলে মানুষ এখন অবাধে বিচরণ করছে। এমন পরিপ্রেক্ষিতে, বাংলাদেশের অভ্যন্তরে জনগণকে সম্পৃক্ত করে পররাষ্ট্রনীতি প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন এবং আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে বাংলাদেশের স্বার্থ সংরক্ষণে জনকূটনীতির প্রয়োজনীয়তা অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশি।
তাই পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রধান কার্যাবলীর একটি হিসেবে শক্তিশালী বহিঃপ্রচার কার্যক্রম ও সার্বিক জন-কূটনীতি পরিচালনা উল্লেখিত হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের মধ্যমেয়াদী কৌশলগত উদ্দেশ্য ও অগ্রাধিকার ব্যয় খাত হিসেবেও বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। এ উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাংগঠনিক কাঠামোতে বিদ্যমান ‘বহিঃপ্রচার অনুবিভাগের কার্যক্রম ঢেলে সাজানোর উদ্যোগের অংশ হিসেবে এই অনুবিভাগের নাম পরির্বতনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে নলা হয়, দেশে ও প্রবাসে বসবাসরত বাংলাদেশি জনগণকে সরকারের পররাষ্ট্রনীতি সম্পর্কে অবহিত করা এবং দেশীয় ও আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে নেতিবাচক প্রচারণার বিপরীতে ইতিবাচক ও সঠিক ভাবমূর্তি গড়ে তোলার লক্ষ্যে জনকূটনীতি অনুবিভা কাজ করবে। বিভিন্ন মাধ্যম ব্যবহার করে অংশীদারগণের সাথে নিয়মিত মতবিনিময়ের মাধ্যমে এ অনুবিভাগ বৈদেশিক সম্পর্ক উন্নয়নে সরকারের গৃহীত কার্যক্রম সর্ম্পকে জনসচেতনতা সৃষ্টি করবে। একইসাথে পররাষ্ট্রনীতিতে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার জনগণের মতামতের প্রতিফলন ঘটাতে সচেষ্ট থাকবে।
বাসস/সবি/এমআর/২২২৪/আরজি