বাসস ক্রীড়া-২ : চ্যাম্পিয়ন্স লিগে প্রথম জয়ের মুখ দেখলো বরুসিয়া ডর্টমুন্ড

14

বাসস ক্রীড়া-২
ফুটবল-চ্যাম্পিয়ন্স লিগ
চ্যাম্পিয়ন্স লিগে প্রথম জয়ের মুখ দেখলো বরুসিয়া ডর্টমুন্ড
ডর্টমুন্ড, ২৯ অক্টোবর ২০২০ (বাসস) : জেডন সানচো ও আর্লিং ব্রট হালান্ডের গোলে বুধবার জেনিথ সেইন্ট.পিটার্সবার্গকে ২-০ গোলে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে প্রথম জয়ের স্বাদ পেয়েছে বরুসিয়া ডর্টমুন্ড।
৭৭ মিনিটে সানচোর স্পট কিকের পর স্টপেজ টাইমে হালান্ডের গোলে ঘরের মাঠ সিগন্যাল ইডুনা পার্কে ডর্টমুন্ডের জয় নিশ্চিত হয়। এতে করে গ্রুপ-জি’তে দ্বিতীয় ম্যাচে জয় তুলে নিল জার্মান জায়ান্টরা।
স্কাই স্পোর্টসকে হালান্ড বলেছেন, ‘আজকের ম্যাচটি বেশ কঠিন ছিল। আমরা ম্যাচে প্রচুর বল পেয়েছি, কিন্তু তারপরেও তাড়াহুড়া না করে ধৈর্য্য ধরতে বাধ্য হয়েছি। আমরা জানতাম সুযোগ আসবেই। দিনের শেষে এই তিন পয়েন্ট অনেক বেশী গুরুত্বপূর্ণ ছিল।
গত সপ্তাহে ল্যাজিওর কাছে ৩-১ গোলের পরাজয় দিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের এবারের মৌসুম শুরু করেছিল ডর্টমুন্ড। সে কারনেই তিন পয়েন্ট নিশ্চিতে বেশ চাপের মধ্যেই ছিল বুন্দেসলিগার দলটি। ডর্টমুন্ডের স্পোর্টিং ডাইরেক্টর মাইকেল জর্ক বলেছেন, ‘ল্যাজিও ম্যাচের পরে আমাদের জয়টা দরকার ছিল। সবাই দেখেছে আজ আমরা কতটা চাপে ছিলাম। এই জয়টা অনেক বড় স্বস্তি এনে দিয়েছে।’
সম্প্রতি বেশ কিছু ম্যাচে হাজারখানেক সমর্থক উপস্থিত থাকলেও হঠাৎ করেই করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় জার্মান সরকার আবারো দর্শকের উপস্থিতি বাতিলের সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছে। যে কারনে বুধবারের ম্যাচটিতে সমর্থকের উচ্ছাস ছাড়াই খেলতে হয়েছে ডর্টমুন্ডকে। ৮০ হাজার ধারনক্ষমতা সম্পন্ন ইডুনা পার্কে কাল প্রচন্ড বৃষ্টির মধ্যে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয়। লুসিয়েন ফাভরির দল রাশিয়ান দলটির দারুন গোছানো রক্ষন ভাগের সামনে বারবার ব্যর্থ হয়েছে। পুরোপুরি রক্ষনাত্মক কৌশলেই কাল মাঠে নেমেছিল জেনিত। আর সেই সুযোগে ডর্টমুন্ড আগ্রাসী খেলা উপহার দেয়। যদিও তাদের আক্রমনগুলো বারবার রুখে দিয়েছে জেনিথের শক্তিশালী রক্ষনভাগ। ডর্টমুন্ডের অভিজ্ঞ সেন্টার-ব্যাক ম্যাটস হামেলস এক সময় বিরক্ত হয়ে বলতে বাধ্য হন, ‘এটা খুবই কঠিন হয়ে যাচ্ছে।’
বিরতির আগে দুটি সযোগ সৃষ্টি করেছিলেন সানচো। কিন্তু মার্কো রেয়াস ও হালান্ড জেনিথের গোলরক্ষক মিখাইল কারজাকভকে পরাস্ত করতে পারেননি। দ্বিতীয়ার্ধে রেয়াস পোস্টে বল লাগান। ৬৬ মিনিটে ডাহুদের দুর পাল্লার শট দারুন দক্ষতায় ফিরিয়ে দেন কারজাকভ। অবশেষে ৭৮ মিনিটে এগিয়ে যাবার সুযোগ পায় স্বাগতিকরা। ডি বক্সের ভিতর ভায়াচেস্লাভ কারাভায়েভের বিপক্ষে পেনাল্টি আদায় করে নেন ডর্টমুন্ডের বদলী মিডফিল্ডার থ্রোগান হ্যাজার্ড। স্পট কিক থেকে কোন ভুল করেননি সাম্প্রতিক সময় ফর্মহীনতার কারনে গণমাধ্যমের সমালোচনার মুখে পড়া সানচো। স্টপেজ টাইমে জুড বেলিংহ্যামের সহায়তায় ডর্টমুন্ডের জয় নিশ্চিত করেন হালান্ড।
বাসস/নীহা/১৭০০/স্বব