বাসস দেশ-৩৫ : বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি : ত্রাণ তৎপরতা অব্যাহত

202

বাসস দেশ-৩৫
বন্যা-সারাদেশ
বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি : ত্রাণ তৎপরতা অব্যাহত
ঢাকা, ৪ জুলাই, ২০২০ (বাসস) : দেশের উত্তর-পূর্বঞ্চলীয় ১০টি জেলার সার্বিক বন্যা-পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি লক্ষ্যনীয় হলেও মধ্যাঞ্চলীয় ৫টি জেলায় স্থিতিশীল রয়েছে।
তবে, ঢাকা জেলার দোহারের কয়েকটি গ্রাম নতুন করে বন্যা প্লাবিত হয়েছে। দোহার উপজেলার নয়াবাড়ী ধোয়াইর বাজার-সংলগ্ন ‘পদ্মা-রক্ষা বাঁধ’ উপচে পানি লোকালয়ে প্রবেশ করেছে। ফলে পশ্চিম ধোয়াইর এলাকার বাসিন্দারা পানিবন্দী হয়ে স্বাভাবিক জীবন যাত্রার ঝুঁকিতে রয়েছে।
গঙ্গা-পদ্মা বেসিনে নদ-নদীর পানি সমতলে স্থিতিশীল রয়েছে বলেই রাজবাড়ী, মানিকগঞ্জ, ঢাকা, ফরিদপুর ও শরিয়তপুর জেলার বন্যা পরিস্থিতি স্থিতিশীল রয়েছে। আগামী ২৪ ঘন্টা পর্যন্ত এই স্থিতিশীলতা অব্যাহত থাকতে পারে।
এদিকে, ব্রহ্মপুত্র-যমুনা বেসিনে এবং আপার-মেঘনা অববাহিকায় নদ-নদীর পানি সমতলে হ্রাস পেতে শুরু করেছে,যা আগামী ৪৮ ঘন্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। এরফলে কুড়িগ্রাম গাইবান্ধা, লালমনিরহাট, নীলফামারী, বগুড়া জামালপুর, সিরাজগঞ্জ, টাঙ্গাইল সিলেট ও সুনামগঞ্জ জেলার বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে।
বিভিন্ন জেলায় বন্যাকবলিত দূর্গত মানুষের মাঝে সরকারের ত্রাণ তৎপরতাও অব্যাহত রয়েছে।
বাসস’র জেলা প্রতিনিধি, ভ্রাম্যমান সংবাদদাতা ও বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান কার্যালয়স্থ বন্যা পূর্বভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তির ভিত্তিতে এসব তথ্য জানা গেছে।
উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা থেকে বাসস’র সংবাদদাতাদের পাঠানো রিপোর্ট এবং বাসস’র রংপুর অফিসের প্রতিবেদন অনুযায়ি,উজানে পানি প্রবাহের চাপ কমে যাওয়ায় যমুনা-ব্রহ্মপুত্র অববাহিকার নদ-নদীর পানি স্থিতিশীল থাকায় উত্তরাঞ্চলের ৭টি জেলার বন্যা পরিস্থিতি উন্নতির দিকে। তবে এসব জেলার নিম্নাঞ্চলে প্রায় ৫ লাখ মানুষ পানিবন্দী জীবন যাপন করছেন বলে বিভিন্ন জেলার স্থানীয় প্রমাসন সূত্রে জানা গেছে।
বাসস/সংবাদদাতা-পিআর/জেডআরএম/২১৩৫/এবিএইচ