কুড়িগ্রামের চরাঞ্চলে ভুট্টার বাম্পার ফলন

449

কুড়িগ্রাম, ১৩ মে, ২০২০ (বাসস) : জেলার ফুলবাড়ীর চরাঞ্চলে এবার ভুট্টার বাম্পার ফলনে কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে। চাষিরা ভুট্টার ভাল দাম পাবেন বলেও আশাবাদী।
উপজেলার বিভিন্ন চরাঞ্চল ঘুরে দেখা গেছে, কোন জমি আর পতিত নেই। বিস্তৃর্ণ কৃষকের মাঠে-মাঠে দু’চোখ জুড়ানো সবুজের সমারোহ। যেন চারিদিকে ভুট্টার সবুজ রঙে ভরে উঠেছে ফসলের মাঠ। সেই সাথে এ বছর ভুট্টার বাম্পার ফলনও হয়েছে। যে সব চাষিদের নিজস্ব জমি নেই, তারাও অন্যের জমি লিজ নিয়ে ভুট্টা চাষ করে সচ্ছলভাবে জীবন-জীবিকা নির্বাহ করছে। ভুট্টা চাষে খরচ কম, লাভ বেশি। তাই চাষিরা অধিক লাভের আশায় এ অঞ্চলের কৃষকরা ভুট্টা চাষ করে লাভবান হচ্ছেন। চাষিরা লাভবান হওয়ায় বেশি করে ভুট্টা চাষে আগ্রহ বাড়ছে। তাই গত বছরের চেয়ে এ বছর ব্যাপক হারে চাষিরা ভুট্টা চাষ করছেন কৃষকরা। আবহাওয়া অনুকুল থাকায় ভুট্টার বাম্পার ফলনও হয়েছে।
ফুলবাড়ী উপজেলার বালাতাড়ি গ্রামের কৃষক শংকর চন্দ্র পাল ও গজেরকুটি গ্রামের কৃষক বিদেশি চন্দ্র রায় জানান, তারা প্রতেকেই দুই বিঘা করে ভুট্টা চাষ করেছে। আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় ফলনও ভালই হয়েছে। আশা করছেন ১৫ থেকে ২০ দিনের মধ্যেই ভুট্টা ঘরে তুলতে পারবেন। তাদের প্রতি বিঘায় ভুট্টা চাষ করতে খরচ হয়েছে ৫ থেকে ৬ হাজার টাকা। তারা বিঘা প্রতি ৩০ থেকে ৩৫ মন ভুট্টা পাবেন। এতে ১৮-২৫ হাজার টাকা বিঘাপ্রতি পাবেন বলে আশা করছেন তারা।
একই উপজেলার চর-গোরকমন্ডল চরাঞ্চলের কৃষক আব্দুল সোবান ১০ বিঘা ভুট্টা চাষ করেছেন। নিজের জমির পাশাপাশি তারা অন্যের জমি লিজ নিয়ে ভুট্টা চাষ করেই আসছেন। এ বছরও ভুট্টার আগাম চাষ করে বাম্পার ফলন হয়েছে।
ফুলবাড়ী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাহাবুবুর রশীদ জানান, চাষিদের ভুট্টা চাষে উদ্বুদ্ধ করা এবং সার-বীজসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা দেওয়ায় এ অঞ্চলের কৃষকরা ভুট্টা চাষে ঝুঁকে পড়েছেন। এ অঞ্চলের মাটিতে ভুট্টা চাষের উপযোগী হওয়ায় চলতি মৌসুমে এ উপজেলায় ১ হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে কৃষকরা ভুট্টা চাষ করেছেন। যারা আগাম ভুট্টা চাষ করেছে তারা ভুট্টা ঘরে তুলতে শুরু করেছেন। আগামী ১৫ থেকে ২০ দিনের মধ্যেই অধিকাংশ চাষি ক্ষেতের ভুট্টা ঘরে তুলবেন। আবহাওয়া অনুকুল থাকায় ভুট্টার বাম্পার ফলন হয়েছে।

image_printPrint