বিলুপ্তপ্রায় দেশীয় ফল চাষ সম্প্রসারণে বিশেষ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে : কৃষিমন্ত্রী

291

সংসদ ভবন, ২ জুলাই, ২০১৮ (বাসস) : কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, দেশে বিলুপ্ত প্রায় ১২টি দেশী ফল অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সম্প্রসারণে মন্ত্রণালয় থেকে বিশেষ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।
তিনি আজ সংসদে সরকারি দলের রহিম উল্লাহ’র এক প্রশ্নের জবাবে আরো বলেন, পদক্ষেপের অংশ হিসেবে দেশের ৭৫টি হর্টিকালচার সেন্টারে ১৮ লাখ ৭১ হাজার ৩শ’টি চারা বা কলম উৎপাদনের কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।
মন্ত্রী বলেন, বিলুপ্তপ্রায় এ ১২টি ফল হলো দেশী টক কুল, তেঁতুল, কাঁঠাল, বরিশালী আমড়া, জাম, বেল, কদবেল, ডালিম, তাল, সজিনা, বীচি কলা ও এসপ্যারাগাস।
কৃষিমন্ত্রী বলেন, এছাড়া উল্লেখিত ফলসহ হাওর এলাকার রাস্তা ও বাঁধের ওপর বীচি কলা এবং সারা দেশে বারোমাসি সজিনা, তাল, খেজুর ইত্যাদি সম্প্রসারণের কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।
তিনি বলেন, বিলুপ্ত প্রায় ফুলের জাত সংরক্ষণ ও সম্প্রসারণের লক্ষ্যে ভবিষ্যতে কৃষি গবেষণা ও কৃষি সম্প্রসারণের যৌথ উদ্যোগে গৃহিত কর্মসূচির বাস্তবায়ন করা হবে। বর্তমানে ফুলের চাহিদা বৃদ্ধির ফলে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে ফুল চাষে চাষীদের আগ্রহ বেড়েছে।
মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ বেশ কিছু অপ্রচলিত বা স্বল্প প্রচলিত ফল লুকলুকি, ফলসা, ডেফল, ডেউয়া, চাপালিশ, বেতলফল, তেঁতুল, আমলকী, ক্ষুদিজাম, আতা, শরীফা, চালতা, পানিফল, অরবরই, ডুমুর, করমচা, বিলিম্বি, বেল প্রভৃতি জন্মে। সঠিক ব্যবস্থাপনা ও রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে অনেক দেশীয় ফল বিলুপ্তির পথে।
তিনি বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের ফল বিভাগে ‘স্ট্রেন্দেনিং রিসার্চ অন ড্রট, ওয়াটারলগিং, সেলাইনটি এন্ড আদার স্ট্রেস টলারেন্ট ইনডিজিনাস ফ্রুট ক্রপস’ শীর্ষক গবেষণা কার্যক্রম বাস্তবায়িত হচ্ছে, যার মাধ্যম দেশীয় বিলুপ্ত ফলের জার্মপ্লাজম সনাক্তকরণ, সংগ্রহ, মূল্যায়ন এবং সংরক্ষণ করা হচ্ছে।
তিনি বলেন, অধিকন্তু, উদ্যানতত্ত্ব গবেষণা কেন্দ্র, বিএআরআই এ ‘উদ্যানতাত্ত্বিক ফসলের গবেষণা জোরদারকরণ এবং চর এলাকায় উদ্যান ও মাঠ ফসলের প্রযুক্তি বিস্তার’ শীর্ষক বাস্তবায়নাধীন প্রকল্পের মাধ্যমে দেশে বিলুপ্তপ্রায় ফলসহ অন্যান্য ফলের গুণগতমানসম্পন্ন জার্মপ্লাজমসমূহ সনাক্তকরণ এবং বিএআরআই-এর গবেষণা কেন্দ্রসমূহে সংগ্রহ, মূল্যায়ন ও সংরক্ষণ করা হচ্ছে।
মন্ত্রী বলেন, ইতোমধ্যে বিএআরআই কিছু বিলুপ্তপ্রায় ফলের উন্নত গুণগতমানসম্পন্ন জাত উদ্ভাবন করেছে এবং মাতৃকলম সম্প্রসারণের উদ্দেশ্যে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, বিএডিসি ও আগ্রহী কৃষকদের মাঝে বিতরণ করা হচ্ছে।
তিনি বলেন, ভবিষ্যতে বিলুপ্তপ্রায় দেশীয় ফলের জার্মপ্লাজমসমূহ সংরক্ষণ কার্যক্রম আরও শক্তিশালী করা হবে।