বাংলাদেশ আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক অর্থনেতিক উদ্যোগের জন্য উন্মুক্ত : মোমেন

131

ঢাকা, ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ (বাসস) : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেছেন, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক প্রকৃতির এবং অর্থনেতিক উন্নয়নে সহায়ক যে কোনো আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক উদ্যোগের জন্য উন্মুক্ত।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী আজ ঢাকার ইন্টার কন্টিনেন্টাল হোটেলে আয়োজিত ‘ঢাকা গ্লোবাল ডায়ালগ-১৯’ এর তৃতীয় ও শেষ দিনে বলেন, ‘যথেষ্ট প্রমাণ রয়েছে যে আমাদের অঞ্চলে বর্ধিত আন্তঃআঞ্চলিক বাণিজ্য কোনো দেশের প্রবৃদ্ধি টেকসই করতে এবং দারিদ্র্য নিরসনে সহায়তা করে।’
তিনি বলেন, আমাদের সুষ্টু প্রতিযোগিতা দরকার, তবে ভূ-কৌশলগত বা রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী নয়।
ইন্দো প্যাসিফিক বিশ্বের সবচেয়ে ভাইব্রান্ট অঞ্চল। বিশ্বের অর্ধেক বাণিজ্য এ অঞ্চলেই হয়। আমাদের প্রয়োজন স্থায়ী অর্থনীতি।
তিনি বলেন, ‘বর্তমান বিশ্বে একা কেউ চলতে পারবে না। একে অন্যকে সম্মানজনক ও সাম্যের ভিত্তিতে সহযোগিতার মনোভাবে এগিয়ে যেতে হবে।’
ড. মোমেন বলেন, ‘বিশ্বের যেকোনো অঞ্চলে সংকট দেখা দিলে তার প্রভাব সব দেশে পড়ে। এ ধরনের ডায়ালগ একে অন্যকে সম্মান করতে সহযোগিতা করে। রোহিঙ্গা সংকট আমরা সংলাপের মাধ্যমে সমাধান করার চেষ্টা করছি।’
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, টেকসই উন্নয়নের জন্য প্রয়োজন শান্তি ও স্থিতিশীলতা। এটা ছাড়া কোনোভাবেই উন্নয়ন সম্ভব নয়।
তিনি আরো বলেন, ‘সহযোগিতার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ও ভারত অন্যন্য উদাহরণ। দুই দেশ একে অপরের মধ্যে নানা ক্ষেত্রে সহযোগিতা করে চলেছে। আমরা প্রতিবেশী দেশ ভারত ছাড়াও সবার সঙ্গে সহযোগিতার সম্পর্কে বিশ্বাসী’।
সমাপনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন পরারাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, অবজার্ভার রিসার্চ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সঞ্জয় যোশি, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য নাহিম রাজ্জাক এমপি।
গত সোমবার ঢাকা গ্লোবাল ডায়ালগের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ (বিস) ও ভারতের অবজার্ভার রিসার্চ ফাউন্ডেশন (ওআরএফ) যৌথভাবে এই ডায়ালগের আয়োজন করে।

image_printPrint