বাঙালি জাতি ভাগ্যবান, কারণ বঙ্গবন্ধুর মত একজন মহান নেতাকে পেয়েছিল : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

238

ঢাকা, ২৭ আগস্ট, ২০১৯ (বাসস) : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে. আব্দুল মোমেন বলেছেন, বাঙালি জাতি ভাগ্যবান, কারণ বঙ্গবন্ধুর মত একজন মহান নেতাকে পেয়েছিল। পৃথিবীর মধ্যে খুব কম সংখ্যক ব্যক্তি আছেন দেশের জন্য যাদের ত্যাগ এত বেশী। তাঁর জন্যই আমরা স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশকে প্রতিষ্ঠা করতে পেরেছি। বাংলাদেশের জন্য যা যা দরকার সবই করেছেন তিনি।
আজ ঢাকার সিরডাপ মিলনায়তনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
ড. মোমেন বলেন, বঙ্গবন্ধু মাত্র ৫৬ বছর জীবিত ছিলেন। তার মধ্যে প্রায় ১৪ বছর জেলে কাটিয়েছিলেন তিনি মানুষের ভোট এবং ভাতের অধিকার আদায়ের জন্য। তিনি ছাত্রকাল থেকে মানুষের অধিকার আদায়ে সোচ্ছার ছিলেন। ছাত্রাবস্থায় ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারিদের অধিকার আদায়ের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিস্কৃত হয়েছিলেন।
তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতা লাভের মাত্র দুই মাসের মধ্যে বিদেশী সৈন্যদের দেশে পাঠাতে সক্ষম হয়েছিলেন। জাতির জনক ছিলেন পৃথিবীর বিখ্যাত কূটনৈতিক। পৃথিবীতে খুব কম সংখ্যক দেশ বাংলাদেশের মত এত কম সময়ে অধিক সংখ্যক দেশের স্বীকৃতি পেয়েছিল। এটা সম্ভব হয়েছিল বঙ্গবন্ধুর দূরদর্শী নেতৃত্বের কারণে।’
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাঙালি জাতি তাঁকে পছন্দ করত, তাই সারা দেশ তাঁর এক আঙ্গুলের হুকুমে চলত। বঙ্গবন্ধু অসহযোগ আন্দোলনের ডাক দিলে স্বল্প সংখ্যক পাকিস্তানের দালাল ছাড়া সবাই তা পালন করেছে। তিনি ছিলেন আত্মবিশ্বাসে বলিয়ান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে ও বাঙালিকে তাঁর বাবার মত চিনেন।
ড. মোমেন বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল সরকারকে জনগণের দোর গোড়ায় পৌঁছে দেয়া। তাঁর দৌহিত্র সজিব ওয়াজেদ জয় সেবাকে মানুষের দোর গোড়ায় পৌঁছে দেয়া এবং সেবাকে সহজ করার জন্য ডিজিটাল সিস্টেম চালু করেছেন।
পানি স¤পদ মন্ত্রণালয়র সচিব কবির বিন আনোয়ারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক ও পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এ. কে. এম এনামুল হক শামীম।

image_printPrint