শ্রীলংকা সফরকে সামনে রেখে অনুশীলন শুরু করেছেন মাশরাফি

414

ঢাকা, ১৪ জুলাই ২০১৯ (বাসস) : আসন্ন শ্রীলংকা সফরকে সামনে রেখে মিরপুরের শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আজ অনুশীলন শুরু করেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্তাজা।
স্টেডিয়ামে আজ ব্যস্ত সময় কাটিয়েছেন মাশরাফি। প্রথমে জিমনেসিয়ামে দীর্ঘ সময় কাটানোর পর স্টেডিয়ামে দৌঁড়াতে দেখা যায় টাইগার দলের লড়াকু অধিনায়ককে। এতেই মনে হচ্ছে চলতি মাসের শেষভাগে শ্রীলংকায় তিন ম্যাচের ওডিআই সিরিজে অংশ নেবেন মাশরাফি।
আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত সর্বশেষ ত্রিদেশীয় সিরিজের সময় হ্যামস্ট্রিং ইনজুরিতে আক্রান্ত হন টাইগার অধিনায়ক। যে কারণে এ সময় তার পারফর্মেন্স খুব একটা ভাল হয়নি। পরবর্তীতে বিশ্বকাপটিও তিনি কাটিয়েছেন বাজে পারফর্মেন্সের মধ্যে। গ্রুপ পর্বের আট ম্যাচ থেকে মাত্র একটি উইকেট সংগ্রহ করতে পেরেছেন তিনি। যার গড় ছিল ৩৬১। এটি মাশরাফির জন্য ছিল গোটা ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বাজে পারফর্মেন্স।
ওই পারফর্মেন্সের কারণেই মাশরাফির ভবিষ্যৎ নিয়ে গুঞ্জন শুরু হয়। তিনি বিশ্বকাপের দলে থাকতে পারেন কি-না এমন প্রশ্নও সামনে চলে আসে। একই সময় তার অবসর নিয়েও শুরু হয় কানাঘুষা।
কিন্তু সংসদ সদস্য মাশরাফি আগেই বলেছিলেন, এবারের বিশ্বকাপই তার ক্যারিয়ারের শেষ বিশ্বকাপ। যদিও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিজের অবসর গ্রহণের বিষয়ে মুখ খোলেননি তিনি। সবাই ধারণা করেছিল বিশ্বকাপ আসর শেষ করেই হয়তো অবসর গ্রহণের ঘোষণা দেবেন মাশরাফি। তবে এখনো পর্যন্ত সেই পথে হাটেননি তিনি।
বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন অবশ্য বলেছেন দেশের মাটিতে কোন টুর্নামেন্ট থেকে আনুষ্ঠানিক বিদায় সংবর্ধনা দেয়া হবে মাশরাফিকে। তবে চলতি বছরে এখনো পর্যন্ত বাংলাদেশে কোন টুর্নামেন্টের সূচি নেই। তিনি শুধুমাত্র ওডিআই ফর্মেটেই খেলছেন। কারণ ইতোমধ্যে টি-২০ ফর্মেট থেকে অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন । টেস্ট থেকে আনুষ্ঠানিক অবসরের ঘোষণা না দিলেও ২০০৯ সালের পর কোন টেস্টেও অংশ নেননি মাশরাফি। যে কারণে শ্রীলংকা সফরে মাশরাফির খেলার সম্ভাবনা রয়েছে।
যদিও নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন বলেছেন, দলে জায়গা পেতে হলে ফিটনেস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে মাশরাফিকে। আর বিসিবি সভাপতি পাপন বলেছেন, ইনজুরির কারণে হয়তো শ্রীলংকা সফর থেকে বঞ্চিত হতে পারেন নড়াইল এক্সপ্রেস।
শনিবার বিসিবি প্রধান লন্ডনে সাংবাদিকদের বলেন, ‘এমআরআই করানো না হলেও আমি শুনেছি মাশরাফি পুরোপুরি সুস্থ নন। সাকিব যাচ্ছেন হজ্জ করতে। তিনি আসন্ন সিরিজে থাকছেননা। বিয়ের কারণে ছুটি চেয়েছেন লিটন। যে কারণে তিন জনেরই শ্রীলংকা সিরিজে না থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।’
এদিকে ২০১৪ সালে অধিনায়ক নির্বাচিত হওযার পর কোন সিরিজ খেলা থেকে বিরত থাকেননি মাশরাফি। তার দুই পায়ের হাঁটুতেই অস্ত্রোপাচার করানো হয়েছে। কিন্তু লড়াকু এই ক্রিকেটার ওই ইনজুরিকে সঙ্গী করেই নেতৃত্ব দিয়ে গেছেন দলের। ২০১৪ সাল থেকে বেশীরভাগ সিরিজ তিনি খেলেছেন ইনজুরি নিয়েই।
এর আগে অবশ্য পাপন বলেছিলেন, মাশরাফির কোন বিকল্প নেই। ভবিষ্যতে তার মত একজন অধিনায়ক পাওয়া দুষ্কর হবে বলেও মন্তব্য করেছিলেন তিনি।