উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের ডায়বেটিসের ঝুঁকি বেশি

224

ঢাকা, ১৭ মে, ২০১৯ (বাসস) : উচ্চ রক্তচাপে প্রতি চারজনে একজন মারাত্মক ডাইবেটিস ঝুঁকিতে রয়েছে। এক গবেষণায় দেখা গেছে, বাংলাদেশের গ্রামাঞ্চলে শতকরা ২৩ জন লোক রোগে ভূগছে।
আইসিডিডিআর,বি এর এক ওয়েব পোস্টে বলা হয়েছে, আইসিডিডিআর,বি ২০১৬ সাল থেকে কয়েকটি দেশে এই গবেষণা শুরু করে। গবেষণায় বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও শ্রীলংকা এই তিনটি দেশের গ্রামাঞ্চলে বসবাসকারী ২ হাজার ৫০০ উচ্চ রক্তচাপ বা হাইপারটেনশনসম্পন্ন লোকের ডাটা সংগ্রহ করা হয়।
জার্নাল অব অবেসিটি’র সাম্প্রতিক প্রকাশিত গবেষণায় আইসিডিডিআর,বি-এর হেড অব ইনিশিয়েটিভ ফর নন-কমিউকেবল ডিজিজেস ডা. আলেয়া নাহিদ বলেন, বাংলাদেশের গ্রামাঞ্চলে বসবাসরত শতকরা ২৩ ভাগ লোক ডাইবেটিসে আক্রান্ত।’
তিনি আরো বলেন, গবেষণায় দেখা গেছে শতকরা ২৪ ভাগ প্রি-ডায়বেটিসে ভুগছে। এদের শতকরা প্রায় ৪৭ জন হাইপারটেনশনের সঙ্গে ডায়বেটিস জাতীয় জটিলতার ঝুঁকিতে রয়েছে।
অনুমিত হয়েছে, বাংলাদেশ হাইপারটেনশনের সঙ্গে প্রি-ডায়বেটিস বা ডায়বেটিস আক্রান্ততায় শ্রীলংকার নীচে ও পাকিস্তানের উপরে অবস্থান করছে। শ্রীলংকায় হাইপারটেনশনের সঙ্গে ডায়বেটিস ও প্রি-ডায়বেটিসে আক্রান্ততার হার সর্বোচ্চ (৭৩.১শতাংশ)। পাকিস্তানে আক্রান্তের হার সর্বনি¤œ (৩৯.২শতাংশ)।
ডা. নাহিদ বলেন, ‘আমাদের গবেষণায় দেখা গেছে, ডায়বেটিসের সম্ভাবনা তাদের বেশি যাদের বয়স বেশি, উচ্চশিক্ষিত এবং আর্থসামাজিক দিক থেকে তুলনামূলক ভালো অবস্থানে রয়েছেন।’
আইসিডিডিআর,বি-এর গবেষক পরামর্শ দেন, হাইপারটেনশনের রোগীরা পেট বেড়ে যাচ্ছে এমনটি টের পেলে শারীরিক কার্যক্রম বাড়িয়ে দেবেন।
তিনি গণস্বাস্থ্যকর্মী ও গণমাধ্যমকে হাইপারটেনশনের রোগীদের ডাইবেটিসের ঝুঁকি সংক্রান্ত সচেতনতা বাড়ানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লিউএইচও) মধ্য ও নি¤œ আয়ের দেশগুলোয় ডায়বেটিস আক্রান্তা দ্রুততার সঙ্গে বেড়ে যাচ্ছে বলে সতর্ক করেছে।

image_printPrint