ঢাকা, মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী ২০, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

প্রধানমন্ত্রী : ২১ বিশিষ্ট নাগরিককে প্রধানমন্ত্রীর একুশে পদক প্রদান   |   আবহাওয়া : রাত এবং দিনের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে   |   বিনোদন ও শিল্পকলা : বিজয় সরকারের ১১৬তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে তিনদিনব্যাপী উৎসব শুরু   |    বিভাগীয় সংবাদ : জয়পুরহাটে স্কাউটিং বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন কোর্স অনুষ্ঠিত *চুয়াডাঙ্গা সাহিত্য সম্মাননা পদক পাচ্ছেন ইবি শিক্ষক ড. রবিউল * জয়পুরহাটে অমর একুশে উদযাপনে কর্মসূচি গ্রহণ *সিলেট নগরীর বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় গ্রীন ভ্যালিসহ নতুন পরিকল্পনা   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : ফিলিপাইনে ডায়রিয়ায় ১০ জনের মৃত্যু   |   

খালেদা ও তারেক যে দুর্নীতিবাজ তা আদালতের রায়ে প্রমাণ হলো : আওয়ামী লীগ

ঢাকা, ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ (বাসস) : আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, খালেদা ও তারেক যে দুর্নীতিবাজ তা আদালতের রায়ে প্রমাণ হলো।
তিনি বলেন, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ের মাধ্যমে প্রমাণ হয়েছে, যে যতই ক্ষমতাবান হোক না কেন- আইনের দৃষ্টিতে সকলেই সমান।
ড. হাছান মাহমুদ বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলার রায়ের ওপর আওয়ামী লীগের এক তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় এ কথা বলেন।
আওয়ামী লীগের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ বলেন, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৫ বছর এবং বিএনপি নেতা তারেক রহমানসহ অন্য আসামীদের ১০ বছর কারাদন্ড ও প্রত্যেককে ২ কোটি করে টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
তিনি বলেন, এ মামলার রায় আদালতের বিষয়। তবে কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়। খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান যে দুর্নীতিবাজ তা আদালতের রায়ের মাধ্যমে প্রমাণ হলো।
বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. হাছান বলেন, বিএনপির নেতা-কর্মীরা খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলার বিচার কার্যক্রমকে বাধাগ্রস্ত করার জন্য যেভাবে নাশকতা করেছেন তা অত্যন্ত ন্যক্কারজনক। তাঁরা আজও দেশে একটি ভীতিকর পরিবেশ তৈরি করে মামলার রায়কে ভন্ডুল করার জন্য চেষ্টা অব্যাহত রেখেছিল।
তিনি বলেন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সতর্ক অবস্থানের জন্য বিএনপির নেতা-কর্মীদের রায় ভুন্ডুল করার চেষ্টা সফল হয় নি।
সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক ও আব্দুল মান্নান খান, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, একেএম এনামুল হক শামীম, সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ফজিলাতুন্নেসা ইন্দিরা, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্য নির্বাহী সংসদের সদস্য এস এম কামাল হোসেন ও মারুফা আক্তার পপি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।