ঢাকা, শুক্রুবার, ফেব্রুয়ারী ২৩, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

শিক্ষা : জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্স শেষপর্ব পরীক্ষা আগামীকাল থেকে শুরু   |    বিভাগীয় সংবাদ : গাজীপুরে ১৪তম স্কাউট সমাবেশের উদ্বোধন * দেশে দারিদ্র্যের হার শতকরা ১২ ভাগে নেমে এসেছে : মন্ত্রিপরিষদ সচিব * মাদারীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় স্বামী-স্ত্রী নিহত   |    জাতীয় সংবাদ : আওয়ামী লীগকে পুনরায় নির্বাচিত করুন : ডেপুটি স্পিকার *এডিবির প্রেসিডেন্ট আসছেন ২৭ ফেব্রুয়ারি * প্রশ্ন ফাঁস রোধে সকলের সহযোগিতা চাইলেন শিক্ষামন্ত্রী   |   রাষ্ট্রপতি : রোহিঙ্গাদের ফেরাতে সিঙ্গাপুরের সহযোগিতা চাইলেন রাষ্ট্রপতি   |    জাতীয় সংবাদ : এ বছর আরও ১০ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়া হবে : নাসিম * বিএনপি বিপর্যয়ের মুখে অপ্রাসঙ্গিক কথাবার্তা বলছে : হানিফ * সরকারের ভিত কারো কথায় নড়ে না : ইনু * ময়মনসিংহে বাস খাদে পড়ে ৪ জনের প্রাণহানি, আহত ২০   |   আবহাওয়া : সারাদেশে আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে   |   খেলাধুলার সংবাদ : আইসিসির অনুমোদন পেল কানাডার টি-২০ লীগ * কেনিয়া ক্রিকেট দলের অধিনায়ক, কোচ ও বোর্ড সভাপতির পদত্যাগ   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : পদত্যাগ করছেন অস্ট্রেলিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী * আর্জেন্টিনার রুশ দূতাবাস থেকে ৪০০ কিলো কোকেন উদ্ধার * মধ্যপ্রাচ্য শান্তি প্রস্তাব প্রায় প্রস্তুত : জাতিসংঘে মার্কিন দূত   |   

বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধীদের জন্য ইশারা ভাষা ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করা হবে : মেনন

ঢাকা, ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ (বাসস) : সমাজকল্যাণমন্ত্রী ও বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেছেন,বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য স্বল্প সময়ের মধ্যে ইশারা ভাষা ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করা হবে।
তিনি আজ রাজধানীর আগারগাঁওয়ে সমাজসেবা অধিদফতরে আয়োজিত বাংলা ইশারা ভাষা দিবস- ২০১৮ উদযাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন,বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা বিশেষভাবে ইশারা ভাষায় কথা বলে। বাংলাদেশে বসবাসরত এক লক্ষ ষাট হাজার বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য ইশারা ভাষা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন বিষয়। এই ভাষার গুরুত্ব অনুধাবন করে খুব শিঘ্রই একটি ইশারা ভাষা ইনস্টিটিউট নির্মাণ করা হবে।
প্রধানমন্ত্রীর অবদান উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মনের কথা প্রথম উপলদ্ধি করেছিলেন। ২০০৯ সালে বই মেলায় প্রথম ইশারা ভাষার স্বীকৃতি প্রদান করেন।
তিনি বলেন, ৫২ তে দেশের মানুষ ভাষার জন্য প্রাণ দিয়েছে। বাঙ্গালীরাই ভাষার জন্য লড়াই করা পৃথিবীতে একমাত্র গর্বিত জাতি। বর্তমানে ইশারা ভাষা বিশ্বব্যাপী স্বীকৃতি লাভ করেছে এবং সর্বত্র উদযাপিত হচ্ছে।
মেনন বলেন,বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধীদের জন্য ইশারা ভাষা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বাংলা ইশারা ভাষাকে দেশব্যাপী পৌছে দিতে গণমাধ্যমসহ সকলকে কাজ করে যেতে হবে।
তিনি বলেন, বর্তমান সরকার প্রতিবন্ধী সুরক্ষা আইন- ২০১৩ নামে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য আইন প্রণয়ন করেছে। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য দেশব্যাপি নানা উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। চাকুরী ক্ষেত্রে বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধীদের নিয়োগের ক্ষেত্রে সুবিধা প্রদান করা হচ্ছে।
সমাজসেবা অধিদফতরের মহাপরিচালক গাজী মোহাম্মদ নুরুল কবিবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: জিল্লার রহমান।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমাজসেবা অধিদফতরের অতিরিক্ত সচিব ও পরিচালক (কার্যক্রম) আবু মোহাম্মদ ইউসুফ, জাতীয় বধির ক্রীড়া ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ আহম্মেদ।
দিবসটি উপলক্ষে সমাজসেবা অধিদফতর, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় ও বাক-শ্রবণ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের উন্নয়নে সংশ্লিষ্ট বেসরকারি সংগঠনের সমন্বয়ে কেন্দ্রীয়ভাবে র‌্যালি, আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
এ বছর দিবসের প্রতিপাদ্য ছিল ইশারা ভাষা উন্নয়নে, এগিয়ে যাব প্রতিজনে।

সম্পর্কিত সংবাদ