ঢাকা, মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী ২০, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

প্রধানমন্ত্রী : ২১ বিশিষ্ট নাগরিককে প্রধানমন্ত্রীর একুশে পদক প্রদান   |   আবহাওয়া : রাত এবং দিনের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে   |   বিনোদন ও শিল্পকলা : বিজয় সরকারের ১১৬তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে তিনদিনব্যাপী উৎসব শুরু   |    বিভাগীয় সংবাদ : জয়পুরহাটে স্কাউটিং বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন কোর্স অনুষ্ঠিত *চুয়াডাঙ্গা সাহিত্য সম্মাননা পদক পাচ্ছেন ইবি শিক্ষক ড. রবিউল * জয়পুরহাটে অমর একুশে উদযাপনে কর্মসূচি গ্রহণ *সিলেট নগরীর বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় গ্রীন ভ্যালিসহ নতুন পরিকল্পনা   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : ফিলিপাইনে ডায়রিয়ায় ১০ জনের মৃত্যু   |   

বিএনপি এখন জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন : সুরঞ্জিত স্মরণ সভায় হাছান মাহমুদ

ঢাকা, ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ (বাসস) : আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপি এখন জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন। তাই তারা নির্বাচনে আসতে ভয় পায়।
আজ রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবে বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট ঢাকা বিভাগ আয়োজিত স্মরণসভায় তিনি একথা বলেন।
সংগঠনের উপদেষ্টা লায়ন চিত্তরঞ্জন দাসের সভাপতিত্বে সভায় তিনি ছাড়াও বক্তব্য রাখেন খাদ্যমন্ত্রী এডভোকেট কামরুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ নেতা এডভোকেট বলরাম পোদ্দার, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানা প্রমুখ।
হাছান মাহমুদ বলেন, নির্বাচনকে বানচাল করার জন্যই তারা একের পর এক সন্ত্রাসী কর্মকা- ও জনগণের জানমালের ক্ষতিসাধনে লিপ্ত রয়েছে। নির্বাচন যথাসময়ে এবং বর্তমান নির্বাচন কমিশনের অধীনেই অনুষ্ঠিত হবে। এতে সহায়ক সরকারের দায়িত্ব পালন করবেন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা।
আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক বলেন, আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য সৃষ্টি করলে বাংলার জনগণ তা প্রতিহত করবে।
কামরুল ইসলাম বলেছেন, আওয়ামী লীগ কোনো ফরমায়েসি রায় দেয় না। আমরা বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নিশ্চিত করেছি। ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার রায় নিয়ে অহেতুক বিতর্ক করা হচ্ছে। রায় ঘিরে সন্ত্রাসী কর্মকা-ের চেষ্টা হলে পরিণতি ভয়াবহ হবে।
তিনি বলেন, খালেদা জিয়া নির্বাচন নিয়ে যে শর্ত দিয়েছে তাদের দেওয়া কোনো শর্ত কাজে আসবে না। সংবিধানের একচুল ব্যত্যয় ঘটবে না। আগামী নির্বাচন হবে নির্বাচন কমিশনারের অধীনে।
সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেন, তিনি পার্লামেন্টের একজন শিক্ষক ছিলেন। নতুন যারা সংসদ সদস্য হিসেবে যোগদান করতেন পার্লামেন্টে কিভাবে কথা বলতে হয় সে বিষয়ে তাদেরকে দিকনিদের্শনা প্রদান করতেন। কামরুল ইসলাম বলেন, মুক্তিযুদ্ধসহ প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তিনি যে ভূমিকা রেখেছেন তা জাতি চিরদিন শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবে।

সম্পর্কিত সংবাদ