ঢাকা, শুক্রুবার, জানুয়ারী ১৯, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি : এখন থেকে দেশেই উৎপাদন হবে কম্পিউটার   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : আফগানিস্তানে সরকারি বাহিনীর অভিযানে ৮ জঙ্গি নিহত * ক্যালিফোর্নিয়ায় ১৩ শিশুকে আটকে রাখা দম্পতিকে আদালতে তোলা হচ্ছে * মুক্ত হওয়ার এক মাস পর ইরাকে আইএসের হুমকি * অস্ট্রেলিয়ার উলুরুর কাছে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত : আহত ৪   |    জাতীয় সংবাদ : বেসরকারি মেডিকেল কলেজের নীতিমালাকে আইনে রূপান্তরিত করার প্রক্রিয়া দ্রুত সম্পন্ন করার নির্দেশ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর * মেধাসম্পদের অনলাইন নিবন্ধন সেবা চালু * জ্ঞানভিত্তিক সমাজ ও দেশপ্রেমিক মানুষ গড়ার তাগিদ দিলেন শিক্ষামন্ত্রী   |   জাতীয় সংসদ : ডিসেম্বর নাগাদ পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হবে : সেতু মন্ত্রী * ছয় মাসে ১২২.৬৪ একর রেলভূমি দখলমুক্ত করা হয়েছে : রেলপথ মন্ত্রী * দেশে সাক্ষরতার হার শতকরা ৭১ ভাগ : পরিকল্পনামন্ত্রী   |   প্রধানমন্ত্রী : প্রধানমন্ত্রীকে সেনাবাহিনীর এসডব্লিউও কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন দুটি প্রকল্প সম্পর্কে অবহিতকরণ   |    জাতীয় সংবাদ : মরতুজা আহমদ নতুন প্রধান তথ্য কমিশনার * মুন সিনেমা হলের মালিককে ৯৯ কোটি টাকা দেয়ার নির্দেশ * রিট করেছে বিএনপি, দোষ পড়েছে আওয়ামী লীগের : ওবায়দুল কাদের * প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত হয়েছে : তোফায়েল আহমেদ   |   বিনোদন ও শিল্পকলা : ঝিনাইদহে ১৫ দিনব্যাপী যাত্রা উৎসব শুরু   |    বিভাগীয় সংবাদ : বরগুনায় দুদকর আয়োজনে শিক্ষার্থীদের মধ্যে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ *জয়পুরহাটে প্রবীণদের কম্বল, বয়স্ক ভাতা, উপকরণ প্রদান *হবিগঞ্জে ১১ জন আসামি গ্রেফতার * ভোলায় ৫টি বদ্ধভূমির সংস্কার ও উন্নয়ন করা হচ্ছে   |   খেলাধুলার সংবাদ : পিএসজির আট গোলের বিশাল জয়ে নেইমারের চার গোল *কোপা ডেল রে : মেসির পেনাল্টি মিসে বার্সেলোনার হার * হাথুরুসিংহের পরিকল্পনা ভুলে গেছে বাংলাদেশ : মাশরাফি * শ্রীলংকার বিপক্ষেও জয়ের লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামবে বাংলাদেশ * বর্ষসেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হলেন কোহলি   |   আবহাওয়া : দেশের কিছু স্থানে শৈত্যপ্রবাহ কেটে যেতে পারে   |    জাতীয় সংবাদ : বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব আগামীকাল থেকে শুরু * নির্বাচন বন্ধের জন্য বিএনপিকে অভিযুক্ত করা উচিত * জ্ঞান ও প্রযুক্তি রপ্তানিতেও সক্ষমতা অর্জন করতে হবে : শিক্ষামন্ত্রী * শিশু আলপনা হত্যা মামলায় ২ আসামির ফাঁসির রায় বহাল   |   প্রধানমন্ত্রী : রংপুর সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরদের শপথ গ্রহণ * প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে ২০ প্রতিষ্ঠানের অনুদান প্রদান * ওপেক বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক সম্প্রসারণে আগ্রহী   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : কাজাখস্তানে বাস দুর্ঘটনায় ৫২ জন নিহত * নির্ধারিত সময়ে কম্বোডিয়ার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে : কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী * কান্দাহারে অনলাইনে শিক্ষা নিচ্ছে আফগান তরুণীরা * ট্রাম্পের এক বছরে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া সম্পর্কোন্নয়নে ব্যর্থ   |   

২০১৭ সালে ব্যাংকিং সেক্টর ভাল ছিল

ঢাকা, ৩০ ডিসেম্বর, ২০১৭ (বাসস) : বাংলাদেশ ব্যাংক কয়েকটি বাণিজ্যিক ব্যাংকের অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ এবং তদারকি বৃদ্ধি করায় বিদায়ী অর্থ বছর ২০১৭ সালে ব্যাংকিং সেক্টরে সার্বিক পরিস্থিতি ভাল ছিল।
বিদায়ী বছরে কয়েকটি বাণিজ্যিক ব্যাংকের ব্যাংক লোনে বিশৃঙ্খলার কারণে খেলাপি ব্যাংক লোনের পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে নিয়ন্ত্রক সংস্থা কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফার্মাস ব্যাংক লিমিটেড এবং এনআরবি বাণিজ্যিক ব্যাংকসহ কয়েকটি বাণিজ্যিক ব্যাংকের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছে। ব্যাংকের পরিচালনা বোর্ডের শীর্ষ নির্বাহীদের অপসারণ করা হয়েছে।
বাংলদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গর্ভনর আবু হেনা মোহাম্মদ রাজী হাসান আজ বাসসকে জানান, বাংলাদেশ ব্যাংক এ সকল পদক্ষেপের মাধ্যমে ব্যাংক সেক্টরে সুশাসন প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করছে এবং এ ক্ষেত্রে সফলতাও অর্জিত হয়েছে।
তিনি বলেন, বিদায়ী বছরে ডিপোজিট, এ্যাডভান্স, বৈদেশিক মূদ্রার রিজার্ভ, মূদ্রা বিনিময় হার, আমদানি ও রফতানি, মূদ্রাস্ফীতিসহ অধিকাংশ সূচক স্থিতিশিল ছিল এবং বেসরকারি ব্যাংক লোনও সন্তোষজনক।
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্যমতে ২০১৬ সালের অক্টোবর থেকে ২০১৭ সালের অক্টোবর পর্যন্ত সময়ে ডিপোজিট ও লোনের পরিমাণ ১০.৪৮ শতাংশ থেকে ১৩.৫৫ শতাংশে বৃদ্ধি পেয়ে ডিপোজিট ৯.০৬ লাখ কোটি টাকা থেকে ৯.৭৭ লাখ কোটি টাকা হয়েছে। ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে ক্লাসিফাইড লোন ছিল ১০.৩৪ শতাংশ। তবে সেপ্টেম্বরে ক্লাসিফাইড লোন ছিল ১০.৬৭ শতাংশ।
হাসান বলেন, ক্লাসিফাইড লোনের পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে এবং এ জন্য ব্যাংক পুন:তফসিলীকৃত লোন আদায় করতে পারেনি।
২০১৭ সালের জুলাই থেকে অক্টোবর পযর্ন্ত আমদানি ২৮.৭১ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ১৮,৫২৬.৬০ মিলিয়ন ডলার হয়েছে। এ বছরের জুলাই থেকে নভেম্বর পযর্ন্ত রফতানি ৬.৮৬ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ১৪,৫৬২.৯১ মিলিয়ন ডলার হয়েছে। ২০১৭ সালে রিজার্ভের পরিমাণ হয়েছে ৩২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। দেশের ৯ মাসের আমদানি ব্যয় মেটানোর জন্য এটি যথেষ্ট। বিগত কয়েক মাসে রেমিটেন্স প্রবাহ বেড়ে জুলাই থেকে নভেম্বর পযর্ন্ত সময়ে হয়েছে ৫৭৬৮.৫৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। বিগত বছরের এই সময়ের চেয়ে ১০.৭৬ শতাংশ বেশি। আগের বছরের এ সময়ে ছিল ৫,২০৮.১২ মলিয়ন মার্কিন ডলার।
রাজী হাসান আরো বলেন, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কিছু পদক্ষেপের কারণে প্রবাসী বাংলাদেশীরা বৈধ চ্যানেলে দেশে টাকা পাঠানোর কারণে বিগত কয়েক বছরে রেমিটেন্স প্রবাহ বেড়েছে। তিনি বলেন, ইতোমধ্যেই কৃষি লোন বিতরণের লক্ষ্যমাত্রার ৪০.৩৫ শতাংশ বিতরণ করা হয়েছে। চলতি ২০১৭-১৮ অর্থবছরে প্রথম পাঁচ মাসে ২০,৪০০ কোটি টাকার মধ্যে ৮,২৩০.৮৮ কোটি টাকা কৃষি লোন বিতরণ করা হয়েছে।
রাজী হাসান আরো বলেন, মধ্য আয়ের দেশের মর্যাদা অর্জনে সহায়তা করতে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি অর্জনে এজেন্ট ব্যাংকিং ও গ্রীন ব্যাংকিং বিষয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংক এখন কাজ করে যাচ্ছে। স্কুল ব্যাংকিংয়ে সারা দেশে ব্যাপক সাড়া পাওয়া গেছে। গত সেপ্টেম্বর মাসের শেষ নাগাদ ডিপোজিটের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১,২০০ কোটি টাকা। এ সময় পর্যন্ত স্কুল ব্যাংক হিসাবের সংখ্যা দাঁড়িয়ে ১৩ লাখের বেশি।

সম্পর্কিত সংবাদ