ঢাকা, মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৭

সংবাদ শিরোনাম 

প্রধানমন্ত্রী : ধানমন্ত্রী আজ ওয়ান প্লানেট শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিচ্ছেন   |    বিভাগীয় সংবাদ : জয়পুরহাটে ৯ হাজার ৭০৫ মেট্রিক টন চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ * জয়পুরহাটে ৯ হাজার ৭০৫ মেট্রিক টন চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ * হবিগঞ্জে গ্রেফতার ৩১   |    জাতীয় সংবাদ : জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ সার্ভিসের উদ্বোধন আজ   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : ট্রাম্পের জেরুজালেম পদক্ষেপের প্রতিক্রিয়ায় মধ্যপ্রাচ্যে বিক্ষোভের পঞ্চম দিন * গাজায় ইসরাইলি বাহিনীর ট্যাঙ্ক ও বিমান হামলা * আফগানিস্তানে গাড়ি দুর্ঘটনায় মার্কিন সৈন্য নিহত   |   

আপনজন এনে দিলো হাতের মুঠোয় মা-শিশুর স্বাস্থ্যসেবা

॥ মাহবুব আলম ॥
ঢাকা, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ (বাসস) : স্বাস্থ্যসেবায় বেশ সাফল্য দেখিয়েছে বাংলাদেশ। সম্প্রতি যুক্তরাজ্যভিত্তিক মেডিকেল জার্নাল ল্যান্সেটে প্রকাশিত এক গবেষণাতেও উঠে এসেছে বিষয়টি। মা ও শিশুর স্বাস্থ্য রক্ষায় নেয়া সরকারের কমিউনিটি ক্লিনিক প্রকল্প ছাড়াও জনপ্রিয়তা পেয়েছে মোবাইল ফোনে স্বাস্থ্য কার্যক্রম আপনজন।
দেশজুড়ে গ্রামীণফোন, এয়ারটেল, বাংলালিংক ও রবির গ্রাহকেরা ১৬২২৭ নম্বরে ডায়াল করে নিবন্ধনের মাধ্যমে গর্ভবতী মা, শিশু এবং তাদের পরিবারের সদস্যরা স্বাস্থ্যসেবা নিচ্ছেন।
এসএমএস (খুদে বার্তা), কণ্ঠবার্তা এমনকি সরাসরি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলে বিভিন্ন ধরনের স্বাস্থ্যসেবা ও পরামর্শ নিচ্ছেন তারা।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বর্তমান সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের অন্যতম উদ্যোগেএই ই-স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম। এরই অংশ হিসেবে দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশেই প্রথম জাতীয় পর্যায়ে মোবাইল ফোনে স্বাস্থ্যপরামর্শ সেবা কার্যক্রম আপনজন চালু করা হয়েছে।
যুক্তরাষ্ট্রেও গ্লোবাল হেলথ ইনিশিয়েটিভের অংশ হিসেবে ২০১১ সালের মে মাসে তৎকালীন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন মোবাইল অ্যালায়েন্স ফর ম্যাটারনাল অ্যাকশনের (মামা) উদ্বোধন করেন।
ওই বছরই বাংলাদেশে পাইলট প্রকল্প হিসেবে শুরু হয় সেবাটি, যা ২০১২ সালের ডিসেম্বরে দেশজুড়ে সবার জন্যে বিস্তৃৃত করা হয়। বর্তমানে স্বতন্ত্র প্রতিষ্ঠান হিসেবে গর্ভবতী মা ও শিশুদের সেবা দিয়ে যাচ্ছে আপনজন।
জানা যায়, দেশে একক বা ইউনিক মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ৭ কোটি। আর বিভিন্ন কোম্পানির সক্রিয় মোবাইল সিমের সংখ্যা প্রায় সাড়ে ১৩ কোটির বেশি।
তাই সর্বত্র মোবাইল ফোন প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বমূলক উদ্যোগ হিসেবে এ প্রকল্প নেয়া হয়।
ইউএসএআইডিসহ আরও কয়েকটি সংস্থার অর্থায়নে এ প্রকল্পে সহযোগিতা করে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক্সেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) কর্মসূচি। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করেছে বেসরকারি সংস্থা ডি-নেট বাংলাদেশ।
মামা ইনিশিয়েটিভের বাংলাদেশের প্রকল্প আপনজন-এর সাবেক প্রধান সমন্বয়কারী রিজওয়ানা রশিদ অনি জানান, জাতিসংঘ প্রণীত সহ্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার (এমডিজি) মাতৃ ও শিশুমৃত্যু প্রতিরোধ লক্ষ্য অর্জন উপলক্ষে ২০১২ সালে বাংলাদেশে আপনজন প্রকল্প চালু হয়। এর অনেক সফলতাও পাওয়া গেছে। তিনি বলেন, প্রতিনিয়তই দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ১৬২২৭ নম্বরে কল করে মানুষ স্বাস্থ্য বিষয়ক নানা পরামর্শ নিচ্ছেন।
জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. নাজনীন আকতার এই প্রতিবেদককে বলেন, গবেষণায় দেখা গেছে, গর্ভ ও প্রসব সংক্রান্ত জটিলতায় ৮০ শতাংশ মৃত্যুই প্রতিরোধ যোগ্য। তবে এ ক্ষেত্রে সচেতনতা ও তথ্যের সার্বজনীনতা থাকা খুবই জরুরি। এখনও বাংলাদেশে গর্ভ ও প্রসবকালীন জটিলতায় অনেক মা ও শিশু মারা যায়।
তিনি বলেন, আমাদের দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের মা ও শিশুর যতের সঠিক তথ্যগুলো অনেকেই জানে না। শিশুর জন্মের পর মা ও শিশুর যত শুরু হয় গর্ভকালীন সময়েই। এ বিষয়টি মানুষকে জানানো অতি জরুরি। গ্রামীণ মা ও তার পরিবারের সদস্যদের স্বাস্থ্য পরামর্শ সেবার মাধ্যমে আপনজন এসব তথ্যই দেয় বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।
আপনজনর মার্কেটিং অ্যান্ড কমিউনিকেশন এক্সিকিউটিভ পিয়াস ইসলাম এই প্রতিবেদককে বলেন, প্রথমে প্রকল্প হিসেবে কাজ শুরু হলেও বর্তমানে একটি লিমিটেড কোম্পানি হিসেবে গর্ভবতী মা ও শিশু এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের স্বাস্থ্যসেবা পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। এসব সেবা দিন রাত ২৪ ঘণ্টা কল করলেই পাওয়া যায় বলে জানান তিনি।
জানা যায়, গর্ভাবস্থায় মায়ের যত, টিকা নেয়া এবং সন্তান জন্মের পর মা ও শিশুর যতের ব্যাপারে এবং ছয় সপ্তাহের গর্ভকাল থেকে শিশুর এক বছর বয়স পর্যন্ত যেসব সেবার প্রয়োজন আপনজন-এ কল করে সেসবের বিষয়ে পরামর্শ সেবা নেয়া যায়।
যে কোনো মোবাইল ফোন থেকে ১৬২২৭ নম্বরে কল করলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে নির্দেশনা শোনা যাবে। নির্দেশনা অনুসারে ফোনের ২ বাটনে ক্লিক করে কাস্টমার কেয়ার ও চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলা যাবে। আগে প্রতিটি পরামর্শের জন্য ২ টাকা চার্জ হলেও দরিদ্ররা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে এই সেবা পেতেন। তবে এখন সন্তান সম্ভাব্য মায়েদের জন্যে প্রি-পেইড প্যাকেজেরও ব্যবস্থা রয়েছে বলে জানালেন পিয়াস ইসলাম।
তিনি বলেন, আগে প্রতি সপ্তাহে দুটি করে মেসেজ পাঠানো হতো। এখন ইচ্ছে করলে মায়েরা প্রি-পেইড কার্ডের মাধ্যমে প্যাকেজ সেবা নিতে পারেন। তিন মাস মেয়াদী প্রি-পেইড প্যাকেজ ৫৫, ৬ মাস মেয়াদী ১০০ এবং একবছর মেয়াদী প্যাকেজটি ২০০ টাকায় পাওয়া যায়। ১৬২২৭ নম্বরে এ কল দিয়েও বিস্তারিত জানা যাবে।
ভবিষ্যতে ভিডিও কলিংয়ের মাধ্যমে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের সহায়তায় মায়েদের সেবা দেয়া হবে বলে জানান প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তা পিয়াস।

সম্পর্কিত সংবাদ