ঢাকা, বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ১৯, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

প্রধানমন্ত্রী : বাণিজ্য ব্যবস্থাকে অধিকতর টেকসই করতে কমনওয়েলথের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান * নীল অর্থনীতির সুফল পেতে প্রযুক্তি ও গবেষণা বিনিময়ের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর * প্রত্যাশা পূরণে চাই কমনওয়েলথ সংস্কার : প্রধানমন্ত্রী   |   প্রধানমন্ত্রী : রোহিঙ্গা সংকট মোকাবেলায় শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসা করলেন জাস্টিন ট্রুডো * ব্রিটেনের রাণী এলিজাবেথের ২৫তম সিএইচওজিএম উদ্বোধন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর যোগদান * লন্ডনে প্রধানমন্ত্রীর ১৩ গুরুত্বপূর্ণ ফাইলে স্বাক্ষর   |    জাতীয় সংবাদ : দেশের প্রয়োজন সৎ ব্যবসায়ী উদ্যোক্তা : তথ্যমন্ত্রী * প্রবাসীদের ভোটার করার ক্ষেত্রে দ্বৈত নাগরিকত্ব প্রধান সমস্যা : সিইসি * মৌলভীবাজারে আগর শিল্পপার্ক স্থাপন করা হবে : আমু   |   রাষ্ট্রপতি : পাঁচটি বিলে রাষ্ট্রপতির সম্মতি   |    অর্থনীতি : অর্থবছরের প্রথম ৮ মাসে যুক্তরাষ্ট্রে রফতানিতে ১.৬২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি * সিএনজি-থ্রী হুইলার্স করের আওতায় আসছে   |    জাতীয় সংবাদ : উৎসব কেন্দ্রিক পর্যটন গড়ে তোলা এখন সময়ের দাবি : বিমান ও পর্যটনমন্ত্রী * এক মাসের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা শুরু : মোজাম্মেল হক * ২০২০ সালের মধ্যে দেশের বনাঞ্চল ২০ শতাংশে উন্নীত করা হবে   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : আর্মেনিয়ায় সরকার বিরোধী বিক্ষোভকারী আটক   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : রাসায়নিক অস্ত্র বিশেষজ্ঞদের নিরাপত্তা বিষয়ে সিরিয়া ও রাশিয়ার সাথে জাতিসংঘের আলোচনা * ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিকম্পে ২ জনের মৃত্যু, আহত ২১ *উ.কোরিয়ায় আটক জাপানী নাগরিকদের দেশে ফিরিয়ে আনতে সহযোগিতার অঙ্গীকার ট্রাম্পের   |   খেলাধুলার সংবাদ : শনিবার শুরু হচ্ছে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক ভলিবল *আইপিএল : রানার অলরাউন্ড নৈপুণ্যে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠলো কলকাতা    |    বিভাগীয় সংবাদ : বানিয়াচংয়ে বাস খাদে, আহত ১০ * জয়পুরহাটে শিশু খাদ্য আইন ও বিধিমালা বিষয়ক অবহিতকরণ সভা *ভোলায় ভুট্টার বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা * নকলায় কৃষি ইকোপার্ক গড়ে উঠেছে   |   

এসডিজির লক্ষ্য অর্জনে মানবসম্পদ মুখ্য ভূমিকা রাখবে : আবুল কালাম আজাদ

ঢাকা, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৭ (বাসস) : প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মোঃ আবুল কালাম আজাদ বলেছেন, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জনে মানবসম্পদই মুখ্য ভূমিকা রাখবে। মানুষের সামগ্রিক দক্ষতা উন্নয়নের উপর সরকারের সফলতা নির্ভর করছে উল্লেখ করে এসডিজির লক্ষ্য অর্জনে তিনি ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের অন্যতম সহায়ক শক্তি হিসেবে কাজ করার আহ্বান জানান।
রাজধানীর কাকরাইলে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ (আইডিইবি)র ৪৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও গণপ্রকৌশল দিবস উপলক্ষে শনিবার সকালে এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এক কথা বলেন।
সংগঠনের সভাপতি এ কে এম এ হামিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সিল্কড ফর এসিভিং এসডিজি শীর্ষক সেমিনারে
প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মোঃ আলমগীর ও এনএসডিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এবিএম খোরশেদ আলম এবং সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক আব্দুর রফিক। স্বাগত ও সূচনা বক্তব্য রাখেন আইডিইবির সাধারণ সম্পাদক মোঃ শামসুর রহমান।
এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মোঃ আবুল কালাম আজাদ বলেন, সামগ্রিকভাবে মানবসম্পদ বিকশিত না হলে কোন উন্নয়ন প্রক্রিয়া স্থায়িত্ব পায় না।
তিনি বলেন, সরকার এসডিজির সফল বাস্তবায়নে দেশের ব্যাপক জনগোষ্ঠির জীবনমান উন্নয়ন ও দক্ষতাকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। মানব সমাজ অতীত থেকে যতই ভবিষ্যতের দিকে অগ্রসর হচ্ছে, ততই সমাজ দক্ষতাকেন্দ্রিক হচ্ছে। বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যেতে হলে আমাদের বিকাশমান প্রযুক্তিজ্ঞানে দক্ষ হবার কোন বিকল্প নেই। উন্নত বিশ্বের অর্থনীতির গতি সঞ্চার কিংবা উন্নয়নশীল দেশসমূহের আর্থিক স্বনির্ভরতার ক্ষেত্রে দক্ষতার বিষয়টি জোরালোভাবে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। কাজেই এসডিজির লক্ষ্য সাফল্যজনকভাবে অর্জনের জন্য আমরা বিশ্ব পরিক্রমার বাহিরে থাকতে পারি না বলে তিনি উল্লেখ করেন।
কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মোঃ আলমগীর বলেন, দক্ষতাভিত্তিক দেশ গড়ার লক্ষ্যে সরকার কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষার ব্যাপক সম্প্রসারণের উদ্যোগ নিয়েছে। সেই লক্ষ্যে সরকার শিক্ষার মূল স্রোতধারায় টিভিইটি কে নিয়ে আসার পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। টিভিইটি কে জনপ্রিয় করার লক্ষ্যে আইডিইবি বহুমাত্রিক কার্যক্রম গ্রহণ করায় তিনি সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে ধন্যবাদ জানান।
আব্দর রফিক বলেন, সহ্রাব্ধ উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বাংলাদেশের যে সাফল্য রয়েছে, সেই অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে এসডিজির লক্ষ্য অর্জন সম্ভব।
অন্যাান্য বক্তারা বলেন, সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্য অর্জনের জন্য সরকার দেশের মানবসম্পদ উন্নয়নে বদ্ধপরিকর। বিশেষ করে দারিদ্র বিমোচন, সুস্বাস্থ্য, মানসম্মত শিক্ষা, সুপেয় পানি ও পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা, নবায়নযোগ্য ও ব্যয়সাশ্রয়ী জ্বালানী, কর্মসংস্থান, উন্নত অবকাঠামো, জলবায়ুর ক্ষতিকর প্রভাব, সামাজিক ন্যায় বিচার ইত্যাদি অর্জনে দক্ষ মানবসম্পদের কোন বিকল্প নেই।

সম্পর্কিত সংবাদ