ঢাকা, রবিবার, অগাস্ট ২০, ২০১৭

সংবাদ শিরোনাম 

অর্থনীতি : ২০২১ সালের আগেই ৫০ লাখ মানুষকে করের আওতায় আনবে এনবিআর   |   বিনোদন ও শিল্পকলা : কাল শিল্পকলা একাডেমীতে একুশ আগস্টের ওপর বিহাইন্ড দ্যা গ্রেনেড প্রদর্শনী    |    জাতীয় সংবাদ : বৃষ্টি না হলে ঈদের আগেই ক্ষতিগ্রস্ত সড়কসমূহ যানবাহন চলাচলের উপযোগী করা সম্ভব হবে: ওবায়দুল কাদের *জড়িতদের বিচার দেখে মরতে চান ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় আহতরা *পনের ও একুশে আগস্টের হামলা একই সূত্রে গাঁথা : তোফায়েল   |   প্রধানমন্ত্রী : বন্যা দুর্গতরা নতুন ফসল ঘরে তোলার আগ পর্যন্ত ত্রাণ সামগ্রী পাবেন : প্রধানমন্ত্রী    |   শিক্ষা : জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪র্থ বর্ষ অনার্স পরীক্ষা ২৩ আগস্ট শুরু   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : পূর্ব ইউক্রেনে সশস্ত্র সংঘাতে প্রায় ৩ হাজার বেসামরিক নাগরিক নিহত * তাল আফর পুনর্দখলে ইরাকের যুদ্ধ শুরু * সিরীয় যুদ্ধ নিয়ে আলোচনা করতে মস্কো যাচ্ছেন নেতানিয়াহু   |   রাষ্ট্রপতি : সাবেক এমপি খাঁন টিপু সুলতানের ইন্তেকালে রাষ্ট্রপতির শোক   |   আবহাওয়া : দেশের কোথাও কোথাও মাঝারী ধরনের ভারী বর্ষণ হতে পারে   |    জাতীয় সংবাদ : বিচারকদের শৃংখলাবিধি প্রকাশের পরবর্তী তারিখ ৮ অক্টোবর * সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা খান টিপু সুলতানের জানাজা অনুষ্ঠিত * কোটালীপাড়ায় শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টার দায়ে ১০ আসামীর মৃত্যুদন্ড    |   খেলাধুলার সংবাদ : অনুর্ধ্ব-১৭ ফিফা বিশ্বকাপে সাতজন সহকারী নারী রেফারী *দ্বিতীয় ম্যাচেও বড় ব্যবধানে জয় পেল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড   |    বিভাগীয় সংবাদ : বরগুনায় ৫টি গুরুত্বপূর্ণ সেতু সংস্কারবিহীন * ভোলায় বিট পুলিশিং সেবা চালু * কালিহাতীতে পৌলী রেল সেতুর এপ্রোচ অংশে ধস : যোগাযোগ বন্ধ * জয়পুরহাটে ২শ ১টি পরিবারে বিদ্যুৎ সংযোগ   |   

জাতীয় শিশু কমিশন গঠনের আহবান মানবাধিকার কমিশনের

ঢাকা, ১৬ মার্চ, ২০১৭ (বাসস) : দেশের মোট জনংখ্যার শতকরা ৪৫ ভাগ শিশুর সার্বিক কল্যাণ ও উন্নয়ন নিশ্চিত করতে অবিলম্বে জাতীয় শিশু কমিশন গঠনের আহ্বান জানিয়েছেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক।
আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের (এমজেএফ) উদ্যোগে বাংলাদেশ শিশু পরিস্থিতি ২০১৬ : সংবাদ পত্রের পাতা থেকে শীর্ষক প্রতিবেদন প্রকাশ উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে কাজী রিয়াজুল হক প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ আহবান জানান।
জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান বলেন, বাংলাদেশের বর্তমান মোট জনংখ্যার শতকরা ৪৫ ভাগ শিশু। শিশুর সার্বিক কল্যাণের জন্য অবিলম্বে জাতীয় শিশু কমিশন গঠন করতে হবে। আমরা বিভিন্ন সময়ে এবিষয়ে আলোচনা করেছি। সরকারের কাছে এবিষয়ে উপস্থাপিত হয়েছে। এখন এই শিশু কমিশন গঠনের কাজটাকে আমাদের ত্বরান্বিত করতে হবে।
শিশু পরিস্থিতি প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করেন মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের কো-অর্ডিনেটর আবদুল্লা আল মামুন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কমিউনিটি পার্টিসিপেশন এন্ড ডেভলপমেন্টের প্রধান নির্বাহি মোসলেমা বারী।
মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী শাহীন আনামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে ফাউন্ডেশনের কো-অর্ডিনেটর (মিডিয়া এন্ড কমিউনিকেশন) শাহানা হুদা রঞ্জনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
এমজেএফ শিশু অধিকার ও সুরক্ষা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে প্রতিবছর শিশু সম্পর্কিত সংবাদ নিয়ে বার্ষিক একটি পর্যালোচনা জাতির সামনে তুলে ধরে। এই প্রেক্ষপটে ২০১৬ সালের জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত ৬টি জাতীয় দৈনিক, যথা: প্রথম আলো, যুগান্তর, সমকাল, ইত্তেফাক, দি নিউ এইজ ও দি ডেইলি স্টারে প্রকাশিত শিশু সম্পর্কিত খবর সংগ্রহ ও পর্যালোচনা করে এই প্রতিবেদন তৈরী করা হয়েছে বলে অনুষ্ঠানে উল্লেখ করা হয়।
প্রতিবদেনে উল্লেখ করা হয় যে, আগের দুইবছর ২০১৪ ও ২০১৫ সালের তুলনায় ২০১৬ সালে শিশু সম্পর্কিত ইতিবাচক ও নেতিবাচক দুধরণের সংবাদই কম প্রকাশিত হয়েছে।
২০১৫ সালের তুলনায় ২০১৬ সালে মৃত্যুর সংখ্যা ও ক্ষতিগ্রস্থের সংখ্যা কমেছে। বিভিন্ন ঘটনা-দুর্ঘটনায় ২০১৬ সালে ১১৫০ জন শিশুর মৃত্যু হয়েছে, ২০১৫ সালে যার সংখ্যা ছিল ১৮৬০জন। ক্ষতিগ্রস্থ শিশুর সংখ্যা ২০১৫ সালে যেখানে ছিল ৯১ হাজার ৮৯২ জন, সেখানে ২০১৬ সালে তা কমে হয়েছে ৬৯ হাজার ৬১৪ জন।
মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের কো-অর্ডিনেটর আবদুল্লা আল মামুন প্রতিবেদনে বলেন, সার্বিক শিশু পরিস্থিতি নিয়ে কাজ করতে গিয়ে, সংবাদপত্রে প্রকাশিত খবর, যা শিশুর জন্য ইতিবাচক সেগুলোকে ইতিবাচক সংবাদ এবং নেতিবাচক সংবাদগুলোকে নেতিবাচক সংবাদ হিসেবে ভাগ করা হয়েছে। ২০১৬ সালে শিশু সম্পর্কিত ইতিবাচক ঘটনার সংবাদ প্রকাশিত হয় ১১০৩টি, যা ২০১৫ সালে ছিল ১৬০৪টি। আর নেতবাচক ঘটনার সংবাদ প্রকাশিত হয় ১৮৭৬টি, যা ২০১৫ সালে ছিল ২৮২০টি।
প্রতিবেদনে ২০১৫ সালের চেয়ে ২০১৬ সালে বাল্যবিয়ে, ধর্ষণ ও ধর্ষণের চেষ্টার ঘটনার সংবাদ, শিশুদের স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যা, নির্যাতন, অপরাধে জড়িয়ে পড়া, নিখোঁজ, পাচার, শৈত্যপ্রবাহ ও অনিশ্চিত আগামির ঘটনার সংবাদ বেড়েছে।
২০১৬ সালে সংবাদপত্রে প্রকাশিত ২৮২টি সংবাদে ৩০৪ জন শিশু ধর্ষণের শিকার হওয়ার খবর প্রকাশিত হয়েছে। এর মদ্যে মারা গেছে ২২ জন এবং গুরুতর আহত হয়েছেন ৬৯জন।
প্রবিদনে আরও জানানো হয়েছে, ২০১৬ সালে সড়ক দুর্ঘটনা, দুর্ঘটনা, শিক্ষা সংক্রান্ত সমস্যা, যৌন নির্যাতন, হত্যা ও হত্যার চেষ্টা, আত্মহত্যা, দায়িত্বে অবহেলা, এসিড নিক্ষেপ ও রাজনৈতিক সহিংসতার ঘটনায় শিশুর মৃত্যু হতাহত হওয়ার ঘটনা কমেছে।

সম্পর্কিত সংবাদ