ঢাকা, শুক্রুবার, মে ২৫, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

জাতীয় সংবাদ : রোহিঙ্গা শিশুদের রক্ষায় বিশ্ব সম্প্রদায়ের পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন : প্রিয়াঙ্কা * পাঁচ জেলার নামের ইংরেজি বানান বাংলা উচ্চারণের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণকরণ করে প্রজ্ঞাপন জারি   |   প্রধানমন্ত্রী : জুলিও কুরি শান্তি পদক বাংলাদেশের জন্য প্রথম আন্তর্জাতিক সম্মান প্রাপ্তি : প্রধানমন্ত্রী   |   রাষ্ট্রপতি : প্রধান বিচারপতির ইফতারে রাষ্ট্রপতির যোগদান * কবি নজরুলের অবিনশ্বর উপস্থিতি বাঙালি জাতির প্রাণশক্তিকে চিরকাল জাগরিত রাখবে : রাষ্ট্রপতি * রাষ্ট্রপতি কাল নজরুল জন্মবার্ষিকীর কর্মসূচি উদ্বোধন করবেন   |   প্রধানমন্ত্রী : বাংলাদেশের কাছ থেকে বিশ্বের শিক্ষা নেয়া উচিত : প্রিয়াঙ্কা * প্রধানমন্ত্রী কলকাতা যাচ্ছেন আগামীকাল * নজরুল চর্চার মাধ্যমে নতুন প্রজন্ম নিজেদের সমৃদ্ধ করবে : শেখ হাসিনা    |    জাতীয় সংবাদ : প্রতিটি বাড়ি উৎপাদনের কেন্দ্রবিন্দু করা হবে : এলজিআরডি মন্ত্রী * শেখ হাসিনার হাত ধরে দেশ আবারো গণতন্ত্র ও বিস্ময়কর উন্নয়নের পথে হাঁটছে : তথ্যমন্ত্রী   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : ইয়েমেনী দ্বীপে ঘূর্ণিঝড় মেকেনুর আঘাত, ৭ জন নিখোঁজ * ভেনিজুয়েলার ২ কূটনীতিককে বহিষ্কারের নির্দেশ যুক্তরাষ্ট্রের * মালয়েশিয়ায় দ্বিতীয়বারের মতো জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুর্নীতি দমন সংস্থায় নাজিব   |    জাতীয় সংবাদ : মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক অবস্থান সুদৃঢ় করতে হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর * ঢাকায় বিধবা ভাতা প্রদান করা হবে : সমাজকল্যাণমন্ত্রী * ঈদ উপলক্ষে রেলের সার্বিক প্রস্তুতি : অগ্রিম টিকেট বিক্রি ১ জুন শুরু * বার কাউন্সিল নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক ফল শনিবার    |   শিক্ষা : জয়পুরহাটে প্রাথমিক পর্যায়ে ৫ কোটি ৭১ লাখ টাকা উপবৃত্তি বিতরণ   |   খেলাধুলার সংবাদ : নেইমারের মাদ্রিদে আসার বিষয়টি নাকচ করে দিয়েছেন রোনাল্ডো *রোমেরোর ইনজুরি নিয়ে হতাশ মাশচেরানো   |   শিক্ষা : রোমেরোর ইনজুরি নিয়ে হতাশ মাশচেরানো *নেইমারের মাদ্রিদে আসার বিষয়টি নাকচ করে দিয়েছেন রোনাল্ডো   |    বিভাগীয় সংবাদ : মেহেরপুরে এবার ১০ কোটি টাকার লিচু কেনা-বেচা হবে *সুনামগঞ্জে জুলাই মাসেই টেক্সটাইল ডিপ্লোমা ইনস্টিটিউটের নির্মাণ কাজ শুরু * নাটোরে আম সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু আগামীকাল *কাজ করে যাচ্ছে কেরানীগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস   |   

মেহেরপুরে মশুরচাষ বাড়ছে : উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ১৫ হাজার মেট্রিক টন

মেহেরপুর, ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ (বাসস) : জেলার মাঠগুলোতে এখন ফুলে ফুলে ভরে গেছে মশুর ক্ষেত। ধান, পাট, তামাক চাষাবাদে খরচ না ওঠার কারণে দীর্ঘ ১৫ বছর পর মেহেরপুরে রবিশস্যের চাষ বেড়ে গেছে। এরমধ্যে মশুর অন্যতম। এবার আবহাওয়া অনুকূলে থাকার কারণে মশুর চাষে আর্থিকভাবে লাভবান হবে কৃষক।
চাষাবাদের জমি কমলেও ১৫ বছর পর মেহেরপুরে মশুরের চাষ বেড়েছে। স্বাধীনতা পূর্ব এবং পরবর্তী ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত মেহেরপুরে সাড়ে চার হাজার হেক্টর জমিতে মশুরের চাষ হয়েছে। পরবর্তীতে কমতে কমতে ২০১০ সালে এসে ৩ হাজার ৭শ হেক্টর জমিতে নেমে আসে। ২০১৬ সালে মশুর চাষ ফের বেড়ে যায়। মশুরের দামবৃদ্ধিতে মশুর চাষে আগ্রহী হয়ে ওঠে এবং ১২ হাজার ১৪৫ হেক্টর জমিতে মশুরের চাষ থেকে উৎপাদন হয় ১৮ হাজার ২১৭ মেট্রিক টন। জেলার ৩ হাজার মেট্রিক টন চাহিদা মিটিয়ে ১৫ হাজার টন মশুর জাতীয় খাদ্য ভা-ারে যোগ হয়। যা দেশের চাহিদা মেটাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। ২০১৭ সালেও মশুর চাষ হয় ১১ হাজার হেক্টর জমিতে। এবার মশুর চাষ হয়েছে ১০ হাজার ৫৮৫ হেক্টর জমিতে। উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা আছে সাড়ে ১৫ হাজার মেট্রিক টনের। যা জেলার চাহিদা মিটিয়ে দেশের ডালের চাহিদা মেটাতে অবদান রাখবে বলে আশা করছে কৃষি বিভাগ।
মেরেহপুরের গাংনী উপজেলার ভোমরদহ, ধর্মচাকি, হিন্দা গ্রাম ছিল তামাক চাষের গ্রাম। সেখানে গিয়ে দেখা গেছে, ওইসব গ্রামে এ বছর চিত্র পাল্টে গেছে। এবার মাঠের পর মাঠ জুড়ে মশুর চাষ হয়েছে। জেলার অন্যান্য বিভিন্ন গ্রামের মাঠেও দেখা যায় এবার মাঠের পর মাঠ জুড়ে মশুরের ক্ষেত।
গাংনী উপজেলার ভোমরদহ গ্রামের কৃষক জাহিদুল হাসান জানান, তিনি ৭ বিঘা জমিতে তামাকের চাষ করতেন। তামাক চাষে খরচ এবং পরিশ্রম বেশি। তারপরেও তামাকের রং ও ওজন না হলে লোকসানের সম্মুখীন হতে হত। তাই তিনি এবার ৭ বিঘা জমিতেই মশুর চাষ করেছেন। ফলন ভালো হলে খরচ বাদে এবার তিনি ১ লাখ ২০ হাজার থেকে ১ লাখ ৩০ হাজার টাকার মশুর বিক্রি করতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করেন।
একই গ্রামের মশুর চাষি শমসের আলী জানান, তিনি অনেক বছর পর এবার দুই বিঘা জমিতে মশুর বুনেছেন। আশা করছেন ১৭/১৮ মণ মশুর উৎপাদন হবে। তিনি আরও জানান, ধান পাট আবাদ করতে সঠিক সময়ে সেচ, সার দিতে না পারলে ফলন ভালো হয় না। কিন্তু মশুর বপনের পর তেমন সেচ ও সার দেয়ার প্রয়োজন হয় না। তাছাড়া মশুর চাষে তেমন একটা তেমন একটা খরচ নেই। একবিঘা জমিতে মশুর চাষে সর্বোচ্চ খরচ ৪ হাজার টাকা। অথচ বিঘাতে ৮ মণ মশুর উৎপাদন হলে ২৫/২৬ হাজার টাকার মশুর উৎপাদন হয়। তাছাড়া মশুরের ভূষি বিক্রি করে উৎপাদন খরচ তোলা যায়।
মেহেরপুর জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ড. আক্তারুজ্জামান জানান, সেচ, সার, পরিশ্রম অনেক কম হওয়ার কারণেই মানুষ রবিশস্য চাষে ফিরে যাচ্ছে। বর্তমানে মশুরের দাম অনেক। বড় কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ না ঘটলে মশুর ডাল জেলার চাহিদা মিটিয়ে দেশের চাহিদা মেটাতে ভূমিকা রাখবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।