ঢাকা, শুক্রুবার, জানুয়ারী ১৯, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি : এখন থেকে দেশেই উৎপাদন হবে কম্পিউটার   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : আফগানিস্তানে সরকারি বাহিনীর অভিযানে ৮ জঙ্গি নিহত * ক্যালিফোর্নিয়ায় ১৩ শিশুকে আটকে রাখা দম্পতিকে আদালতে তোলা হচ্ছে * মুক্ত হওয়ার এক মাস পর ইরাকে আইএসের হুমকি * অস্ট্রেলিয়ার উলুরুর কাছে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত : আহত ৪   |    জাতীয় সংবাদ : বেসরকারি মেডিকেল কলেজের নীতিমালাকে আইনে রূপান্তরিত করার প্রক্রিয়া দ্রুত সম্পন্ন করার নির্দেশ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর * মেধাসম্পদের অনলাইন নিবন্ধন সেবা চালু * জ্ঞানভিত্তিক সমাজ ও দেশপ্রেমিক মানুষ গড়ার তাগিদ দিলেন শিক্ষামন্ত্রী   |   জাতীয় সংসদ : ডিসেম্বর নাগাদ পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হবে : সেতু মন্ত্রী * ছয় মাসে ১২২.৬৪ একর রেলভূমি দখলমুক্ত করা হয়েছে : রেলপথ মন্ত্রী * দেশে সাক্ষরতার হার শতকরা ৭১ ভাগ : পরিকল্পনামন্ত্রী   |   প্রধানমন্ত্রী : প্রধানমন্ত্রীকে সেনাবাহিনীর এসডব্লিউও কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন দুটি প্রকল্প সম্পর্কে অবহিতকরণ   |    জাতীয় সংবাদ : মরতুজা আহমদ নতুন প্রধান তথ্য কমিশনার * মুন সিনেমা হলের মালিককে ৯৯ কোটি টাকা দেয়ার নির্দেশ * রিট করেছে বিএনপি, দোষ পড়েছে আওয়ামী লীগের : ওবায়দুল কাদের * প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত হয়েছে : তোফায়েল আহমেদ   |   বিনোদন ও শিল্পকলা : ঝিনাইদহে ১৫ দিনব্যাপী যাত্রা উৎসব শুরু   |    বিভাগীয় সংবাদ : বরগুনায় দুদকর আয়োজনে শিক্ষার্থীদের মধ্যে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ *জয়পুরহাটে প্রবীণদের কম্বল, বয়স্ক ভাতা, উপকরণ প্রদান *হবিগঞ্জে ১১ জন আসামি গ্রেফতার * ভোলায় ৫টি বদ্ধভূমির সংস্কার ও উন্নয়ন করা হচ্ছে   |   খেলাধুলার সংবাদ : পিএসজির আট গোলের বিশাল জয়ে নেইমারের চার গোল *কোপা ডেল রে : মেসির পেনাল্টি মিসে বার্সেলোনার হার * হাথুরুসিংহের পরিকল্পনা ভুলে গেছে বাংলাদেশ : মাশরাফি * শ্রীলংকার বিপক্ষেও জয়ের লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামবে বাংলাদেশ * বর্ষসেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হলেন কোহলি   |   আবহাওয়া : দেশের কিছু স্থানে শৈত্যপ্রবাহ কেটে যেতে পারে   |    জাতীয় সংবাদ : বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব আগামীকাল থেকে শুরু * নির্বাচন বন্ধের জন্য বিএনপিকে অভিযুক্ত করা উচিত * জ্ঞান ও প্রযুক্তি রপ্তানিতেও সক্ষমতা অর্জন করতে হবে : শিক্ষামন্ত্রী * শিশু আলপনা হত্যা মামলায় ২ আসামির ফাঁসির রায় বহাল   |   প্রধানমন্ত্রী : রংপুর সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরদের শপথ গ্রহণ * প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে ২০ প্রতিষ্ঠানের অনুদান প্রদান * ওপেক বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক সম্প্রসারণে আগ্রহী   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : কাজাখস্তানে বাস দুর্ঘটনায় ৫২ জন নিহত * নির্ধারিত সময়ে কম্বোডিয়ার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে : কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী * কান্দাহারে অনলাইনে শিক্ষা নিচ্ছে আফগান তরুণীরা * ট্রাম্পের এক বছরে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া সম্পর্কোন্নয়নে ব্যর্থ   |   

চুনারুঘাটে ধামালীর সিলেটি উৎসব : হারানো ঐতিহ্যের সন্ধান

হবিগঞ্জ, ১২ জানুয়ারি, ২০১৮ (বাসস) : সিলেট অঞ্চলের হাওর এলাকায় জন্ম হয়েছে অনেক আউল-বাউলের। আবার পাহাড়ী ও সমতলে রয়েছে নানা ধরনের সংস্কৃতিবান মানুষ।এ এলাকায় ভূ-বৈচিত্র্যের পাশাপাশি বহু ভাষাভাষির মানুষ এবং এখানে বিভিন্ন সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের ধারাও রয়েছে। তবে সেগুলো নিয়মিত চর্চা এবং লালনের অভাবে হারিয়ে যেতে বসেছে।
সেই হারানো ঐতিহ্য ধরে রাখার প্রয়াস থেকেই হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে সাংস্কৃতিক সংগঠন ধামালীর উদ্যোগে দুই দিনব্যাপী সিলেটি উৎসব। বহু দিন পর দেখা মিলেছে সেই হারানো ও কালজয়ী নৃত্য আর সঙ্গীত পরিবেশন। দুই দিনব্যাপী উৎসবের পরতে পরতে ছিল সিলেটের নিজস্ব লোকসঙ্গীতের ঐতিহ্যের জয়গান।
বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টায় উপজেলা পরিষদ চত্বরে উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আবু তাহের। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পরপরই শুরু হয় সিলেটের ঐতিহ্যবাহী ধামাইল গান ও নাচ। এ গো আসবে শ্যাম কলিয়া, তোমরা কুঞ্জ সাজাও গিয়া/ এ গো কেনো গো রাই কাঁদিতেছো পাগলীনি হইয়া/ কুঞ্জ সাজাও গিয়া.....। গানটি শুরু হওয়ার সাথে সাথেই হাঁড় কাঁপানো শীতকে ভুলে গিয়ে মেতে ওঠেন দর্শকরা। অধিকাংশ দর্শকই ঠোঁট মেলাতে শুরু করেন শিল্পীদের সাথে।
বৌ-নৃত্য এখানকার আরেক ঐতিহ্য। সিলেটের ঐতিহ্য পান আর চা নিয়ে সারিবদ্ধভাবে বসেন শাশুড়ি, চাচী আর মায়ের মত বয়স্ক মহিলারা। তার পান আর চা খাবেন। সামনে নাচবে বউ। তারা তীক্ষ নজর দিয়ে দেখবেন নাচের সময় বউয়ের পা ঠিকমত মাটিতে লাগে কিনা। যদি না লাগে তবে তারা বলবেন বউ বেয়াদব এবং সে নাচতে পারে না। এক সময় এই পরীক্ষা দিয়েই বিয়ের পিরিতে বসতে হতো গ্রামের মেয়েদের। বউ নাচে অংশ নেয়া চুনারুঘাট ডিসি স্কুলের ছাত্রী এভাবেই ব্যাখ্যা করে বউ নাচের ঐতিহ্যের কথা। সে জানায় বউ নাচের আরও অনেক থিওরি আছে। যা চর্চার অভাবে হারিয়ে যেতে বসেছে।
উৎসবে হারিয়ে যেতে বসা ঘেটু নাচের পরিবেশনা আরও আকর্ষনীয়। ১৫০ বছর পূর্বে আজমিরীগঞ্জ উপজেলার জলসুখা গ্রামের জমিদাররা আয়োজন করতেন এই ঘেটু নাচ। একটি ছেলে মেয়ে সেজে এই নাচে অংশ নিত। যা নিয়ে হুমায়ুন আহমেদ তৈরি করেছিলেন ঘেটু পুত্র কমলা। ধামালী নাচটি নিয়ে দীর্ঘ গবেষণা আর মহড়া দিয়ে উৎসবে পরিবেশন করে।
চা শ্রমিকদের পরিবেশনা ঝুমার নাচ দেশের আর কোথাও পাওয়া যাবে না। মনিপুরী শিল্পীদের মনিপুর নৃত্যুও দর্শকদের মন জয় করে।
উৎসবে কিচ্ছা, পুথিপাঠ, সিলেটি বিয়ের গীত, সিলেটি সংস্কৃতি নিয়ে ফ্যাশন শো, লাঠি নাচের প্রদর্শনীও ছিল অনন্য। এগুলো মানুষ ভুলতে বসলেও আবার নতুন করে আশায় বুক বাধছেন। হয়ত বা আর হারাবে না এ সংস্কৃতি।
অনুষ্ঠানে শাহ আব্দুল করিম, হাসন রাজা, রাধারমণ,শেখ ভানু,দুরবিন শাহ,শিতালং শাহ,হেমাঙ্গ বিশ্বাস,আরকুম শাহ,ক্বারি আমির উদ্দিন,শেখ ওয়াহিদ, এ কে আনাম ও সুবীর নন্দীর গান প্রাণভরে উপভোগ করেন দর্শকরা।
উৎসবে দর্শক হিসাবে আসা শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. ফারুক আহমেদ বলেন, সিলেটে অঞ্চলের অনেক নিজস্ব সংস্কৃতি ও খেলা রয়েছে। এগুলো সংরক্ষণ করা উচিত। ধামালীর এই আয়োজন আমাদেরকে নতুন করে আশা জাগিয়েছে।
সরকারী বৃন্দাবন কলেজের সহকারী অধ্যাপক ড. সুভাস দেব জানান, শীতের মাঝে কষ্ঠ করে উৎসবে আসা স্বার্থক হয়েছে। এ ধরনের আয়োজন আমাদের নিজস্ব সংস্কৃতিকে বাঁচিয়ে রাখবে আরও বহুদিন।
ধামলী নৃত্য পরিবেশনা করা শিল্পী সৌখন জানায়, তাদের ভাল কোন ওস্তাদ নেই। অনেক কষ্ট করে তারা এগুলোর চর্চা করেন। সরকারীভাবে সুযোগ সুবিধা বাড়ানোর দাবী এ শিল্পীর।
উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের বলেন, আমাদের সংস্কৃতি ধরে রাখতে ধামালীকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে। এই উৎসবে দর্শকদের উপস্থিতি প্রমাণ করে নিজেদের সংস্কৃতিকে তারা কত ভালবাসেন।
ধামালীর সভাপতি অ্যাডভোকেট মোস্তাক আহাম্মদ জানান, সিলেটি উৎসবকে সাজানো হয়েছে এই এলাকার নিজস্ব সংস্কৃতিকে তুলে ধরতে। এবার তৃতীয় আয়োজন। ভবিষ্যতে আরও বড় পরিসরে সিলেটের ঐতিহ্যকে তুলে ধরা এবং এর চর্চা ধরে রাখাই তার সংগঠনের উদ্দেশ্য।
উৎসবে সিলেট বিভাগের প্রখ্যাত শিল্পী, সাহিত্যিক, সাংবাদিক, ক্রীড়াবিদ ও আইনজীবীরা উপস্থিত হন এবং তাদেরকে সংবর্ধিত করা হয়।
তীব্র শীতকে উপেক্ষা করে চুনারুঘাটে এ উৎসবে দর্শকরা বিমোহিত হন। তাদের চোখে মুখে ছিল মুগ্ধতা। এ মুগ্ধতার পিছনে যেমন রয়েছে বিনোদন, তেমনি নিজস্ব সংস্কৃতির চাক্ষুষ আস্বাদন।