ঢাকা, শুক্রুবার, ফেব্রুয়ারী ২৩, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

প্রধানমন্ত্রী : ইলিশ সংরক্ষণে সরকারের পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট সকলে এগিয়ে আসুন : শেখ হাসিনা   |   শিক্ষা : জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্স শেষপর্ব পরীক্ষা আগামীকাল থেকে শুরু   |    বিভাগীয় সংবাদ : গাজীপুরে ১৪তম স্কাউট সমাবেশের উদ্বোধন * দেশে দারিদ্র্যের হার শতকরা ১২ ভাগে নেমে এসেছে : মন্ত্রিপরিষদ সচিব * মাদারীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় স্বামী-স্ত্রী নিহত   |    জাতীয় সংবাদ : আওয়ামী লীগকে পুনরায় নির্বাচিত করুন : ডেপুটি স্পিকার *এডিবির প্রেসিডেন্ট আসছেন ২৭ ফেব্রুয়ারি * প্রশ্ন ফাঁস রোধে সকলের সহযোগিতা চাইলেন শিক্ষামন্ত্রী   |   রাষ্ট্রপতি : রোহিঙ্গাদের ফেরাতে সিঙ্গাপুরের সহযোগিতা চাইলেন রাষ্ট্রপতি * জাটকা সংরক্ষণ কার্যক্রম গ্রহণের ফলে দেশে ইলিশের উৎপাদন বেড়েছে : রাষ্ট্রপতি   |    জাতীয় সংবাদ : এ বছর আরও ১০ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়া হবে : নাসিম * বিএনপি বিপর্যয়ের মুখে অপ্রাসঙ্গিক কথাবার্তা বলছে : হানিফ * সরকারের ভিত কারো কথায় নড়ে না : ইনু * ময়মনসিংহে বাস খাদে পড়ে ৪ জনের প্রাণহানি, আহত ২০   |   আবহাওয়া : সারাদেশে আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে   |   খেলাধুলার সংবাদ : আইসিসির অনুমোদন পেল কানাডার টি-২০ লীগ * কেনিয়া ক্রিকেট দলের অধিনায়ক, কোচ ও বোর্ড সভাপতির পদত্যাগ   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : পদত্যাগ করছেন অস্ট্রেলিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী * আর্জেন্টিনার রুশ দূতাবাস থেকে ৪০০ কিলো কোকেন উদ্ধার * মধ্যপ্রাচ্য শান্তি প্রস্তাব প্রায় প্রস্তুত : জাতিসংঘে মার্কিন দূত   |   

শরীয়তপুরে বিনামুল্যে উচ্চ ফলনশীল জিংক সমৃদ্ধ ব্রি ধান বীজ বিতরণ

শরীয়তপুর, ৩০ নভেম্বর, ২০১৭ (বাসস) : হারভেস্ট প্লাস বাংলাদেশের অর্থায়নে জাজিরা উপজেলা কৃষি বিভাগ ও স্থানীয় এনজিও এসডিএস-এর সহযোগিতায় কৃষকদের মাঝে স্বল্প সময়ে ফলন ও জিংক সমৃদ্ধ ব্রি ধান-৬২ ও ৭৪-এর বীজ জাজিরার ২০০ কৃষকের মাঝে ৩ কেজি করে বিনামূল্যে বিজ বিতরণ করা হয়েছে। মানব দেহের জিংকের অভাব পূরণে এ ধান বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে যাচ্ছে বলে দিনে দিনে বাড়ছে এই জাতের ধানের আবাদ।
বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় জাজিরা উপজেলা চত্বরে পৌরসভাসহ ১৩ টি ইউনিয়নের ২০০ কৃষকের মাঝে বীজ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো: মাহমুদুল হোসাইন খান। বিশেষ অতিথি ছিলেন কৃষি বিভাগের ফরিদপুর অঞ্চলের আঞ্চলিক পরিচালক কিংকর চন্দ্র দাস, শরীয়তপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক মো: রিফাতুল হোসাইন, জাজিরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাহেলা রহমত উল্লাহ, জাজিরা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো: হাবিবুর রহমান, এসডিএস এর পরিচালক কামরুল হাসান বাদল ও হারভেস্ট প্লাস বাংলাদেশের প্রতিনিধি তন্ময় সাহা।
জিংকের গুণাগুণ সম্পর্কে উপস্থিত কৃষাণ-কৃষাণীদের ধারণা প্রদান করতে গিয়ে বক্তারা বলেন, ব্রি ধান ৬২ জাতে ১১০ দিনের ফলন, হেক্টর প্রতি ফলন ৫ থেকে সাড়ে ৫ টন, প্রতিকেজি চালে ১৯.৬ মিলিগ্রাম জিংক ও শতকারা ৯ ভাগ প্র্রোটিন পাওয়া যায়। ব্রি ধান ৭৪ এর ফলন ১৪৭ দিনে, হেক্টরপ্রতি ফলন ৭-৮ টন, প্রতিকেজি চালে ২৪.২ মিলিগ্রাম জিংক ও শতকারা ৮.৩ ভাগ প্রটিন পাওয়া যায়। সকল মৌসুমেই এই ধান আবাদ করা যায়। জিংক সমৃদ্ধ খাবার খেলে ছেলেমেয়েরা খাটো হয় না, শিশুদের শারিরীক বৃদ্ধি ও বিকাশ হয়, ক্ষুধামন্দা দূর করে ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। কিশোরী মেয়ে ও গর্ভবতী মায়ের জিংকের অভাব হলে শারীরিক দুর্বলতা দেখা দেয় এবং গর্ভের বাচ্চার ায়ুতন্ত্র ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সুস্থ থাকার জন্য প্রতিদিন শিশুদের অন্তত ৩-৫ মিলিগ্রাম ও মহিলাদের ৫-৯ মিলিগ্রাম জিংক প্রয়োজন। মানব দেহে বিশেষ করে শিশু ও মায়েদের জিংকের অভাব পূরণে এ ধান গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখে।
এছাড়াও মানব দেহের একটি অত্যাবশ্যকীয় অনুপুষ্টি হল জিংক। বাংলাদেশে ৫ বছরের কম বয়সের শতকারা ৪৪ ভাগ শিশু, ৫৭ ভাগ মহিলারা জিংকের অভাবে ভুগছে। ১৫-১৯ বছরের শতকারা ৪৪ ভাগ মেয়েরা জিংকের অভাবে খাটো হয়ে যাচ্ছে। সুতরাং আমাদের দেশের সাধারণ মানুষের জিংকের অভাব পূরণে জিংক সমৃদ্ধ ধান অত্যন্ত গুরুত্ব পূর্ণ ভুমিকা রাখবে বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন।