ঢাকা, সোমবার, ফেব্রুয়ারী ২৭, ২০১৭

সংবাদ শিরোনাম 

জাতীয় সংসদ : সারাদেশে ৪১টি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল স্থাপন করা হবে : আইনমন্ত্রী * গত ৩ অর্থবছরে মাছ রফতানি খাতে ১,৭৭৫ মিলিয়ন ডলার আয় হয়েছে : ছায়েদুল হক * সংসদে বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন কাউন্সিল বিল-২০১৭র রিপোর্ট উপস্থাপন *    |    অর্থনীতি : বিসিক ভবনে বসন্তমেলা ও ত্রৈমাসিক কারুশিল্প প্রদর্শনী শুরু *   |    জাতীয় সংবাদ : দ্রুত ড্যাপ বাস্তবায়ন করা হবে : এলজিআরডি মন্ত্রী * কবি ওয়াহিদ রেজা আর নেই * বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সাফল্য এখন সারা বিশ্বে প্রশংসিত : তোফায়েল আহমেদ * বাংলাদেশের মানুষ সন্ত্রাসী দলকে প্রত্যাখান করবে : নাসিম * বিমান বাহিনী প্রধানের অস্ট্রেলিয়া গমন   |    জাতীয় সংবাদ : খুলনা বিভাগে চলমান পরিবহন ধর্মঘট অযৌক্তিক : ওবায়দুল কাদের * ২৫ মার্চকে জাতীয় গণহত্যা দিবস হিসেবে পালনের আহবান জানালেন নৌ মন্ত্রী * কারাবন্দিদের মোবাইল ফোনে পরিবারের সঙ্গে কথা বলার দ্বার উন্মোচিত হচ্ছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী *   |   প্রধানমন্ত্রী : বগুড়ার শান্তাহারে দেশের প্রথম সৌর সাইলো উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী * শান্তি ও উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে আওয়ামী লীগকে পুনর্নির্বাচিত করুন : প্রধানমন্ত্রী * সুনামগঞ্জ-২ আসনের উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেন জয়া সেনগুপ্ত   |   খেলাধুলার সংবাদ : টেস্ট পরাজয়ে কোহলি বাহিনীকে টেন্ডুলকারের বার্তা *চতুর্থ ওয়ানডেতে নিউজিল্যান্ড দলে ফিরলেন গাপটিল *রিয়াল বেটিসকে হারিয়ে টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে উঠে এলো সেভিয়া *   |   আবহাওয়া : সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে   |    জাতীয় সংবাদ : দন্ডিত হলে খালেদা নির্বাচন করতে পারবেন না : বাহাউদ্দিন নাছিম * স্থায়ী নিয়োগ বঞ্চিত দুই বিচারপতির আবেদনের শুনানি একসঙ্গে *ব্যবসায়ী শেখ গোলাম সারোয়ারের মৃত্যুতে শিল্পমন্ত্রীর শোক * শিশু জিহাদের মৃত্যুর ঘটনায় চার জনের ১০ বছর করে কারাদন্ড   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : ফিলিপাইনে জেলভেঙ্গে পালিয়েছে ১৩ কয়েদি * সংবাদদাতাদের নৈশভোজে যাবেন না ট্রাম্প * কিম জং-নাম হত্যাকান্ড ॥ মালয়েশিয়ায় বিমানবন্দর টার্মিনালকে নিরাপদ ঘোষণা * ভিয়েতনামে অগ্নিকাণ্ডে একই পরিবারের ৪ জনের মৃত্যু    |    বিভাগীয় সংবাদ : বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ শেখের ব্যবহৃত বাইসাইকেলটি জাদুঘরে সংরক্ষিত হচ্ছে * চট্টগ্রামে স্থাপিত হয় স্কুল পর্যায়ে দেশের প্রথম শহীদ মিনার   |   

ঝিনাইগাতী উপজেলার ঘাঘড়া গ্রাম এখন আগরবাতির কাঠি পল্লী হিসেবে পরিচিত

॥ সঞ্জীব চন্দ বিল্টু ॥
শেরপুর, ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ (বাসস) : সীমান্তবর্তী জেলা শেরপুর শহর থেকে ১২ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে ঝিনাইগাতি উপজেলার হাতিবান্ধা ইউনিয়ন। এ ইউনিয়নেরই একটি গ্রাম ঘাগড়া। আর ঘাগড়ার কোনা পাড়াটিই এখন আগরবাতির কাঠি পল্লী হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। ৫ বছর আগেও যে গ্রামের অধিকাংশ মানুষ বসবাস করত নিত্য অভাবের সাথে, এখন তারা সে অভাব ঘোচাতে সক্ষম হয়েছে।
অর্থনৈতিক ভাবে গ্রামটিও চিত্র পাল্টে গেছে । এর মূলে যে ব্যক্তি কাজ করেছেন তার নাম ইউসুফ আলী (৫০)। তিনি একজন সফল উদ্যোগী। পাঁচ বছর আগে তিনি এলাকা থেকে খাড়াজোরা গাছের ছাল সংগ্রহ করে ঢাকায় নিয়ে গিয়ে বিক্রি করে সংসার চালাতেন।এখন তারও ভাগ্য পাল্টে গেছে।
ইউসুফ আলী একদিন ঢাকায় দেখতে পান শত শত শ্রমিক আগরবাতির কাঠি তোলার কাজ করছে। কাঠি তোলার মালিকের সাথে তিনি কথা বললেন এবং সিদ্ধান্ত নিলেন নিজ এলাকায় এ কাজটি শুরু করবেন। ঢাকা থেকে শ্রমিক এনে নিজ বাড়িতে পরীক্ষামূলকভাবে শুরু করলেন বাঁশের শলা তোলার কাজ। প্রায় দেড়মাস ঢাকার শ্রমিকের কাছ থেকে শিক্ষা নেয়, কাজ করতে আগ্রহী গ্রামের অনেক বেকার ও স্কুল পড়য়া ছেলেমেয়ে।
ঢাকার শ্রমিক চলে যাবার পর গ্রামের বেকার ও দরিদ্র মানষেরা আর্র্থিক সমস্যা থেকে পরিত্রান পায়। ধীরে ধীরে গ্রামের প্রায় ৫ শতাধিক নারী-শিশু এমনকি স্কুলপড়ুয়া দরিদ্র পরিবারের শিক্ষার্থীরাও এসে যোগ দেয় এ কাজে। মাত্র ৫ বছরেই পাল্টে যায় গ্রামের চিত্র। পাশাপাশি ঘাঘরা কোনা পাড়া গ্রামের নাম পরিচিতি হয়ে উঠে কাঠি পল্লী হিসেবে।
কাঠি শ্রমিক সোনিয়া খাতুন (৪৫) জানায়, স্বামী মারা গেছে অনেক আগে। অভাবের এ সংসারে সন্তানও রয়েছে। তাই পেটের তাগিদে বেছে নেয় কাঠি তোলার কাজ। প্রতিদিন সে ১২-১৫ কেজি কাঠি তুলতে পারে। কেজি প্রতি ১০ টাকা করে পায়। এতে যা টাকা পায় সে তাতে তার ছাট সংসার যায়।
বাঁশকাটা শ্রমিক শফিকুল (২৮) জানায়, প্রতিদিন ২০ থেকে ২২ মণ বাঁশ কাটতে পারি। টুকরো টুকরো করে সে বাঁশ কাটে। এতে প্রতিমণ ২০ টাকা পায় সে । দিনে ২০০ থেকে ২৫০ টাকা রোজগার করতে পারে। এ দিয়ে তার সংসার চলছে।
ইউসূফ আলী জানান, প্রথমে আমি একা এ ব্যবসা শুরু করলেও বর্তমানে আমার দেখাদেখি এ গ্রামের আরও ৫ থেকে ৬ জন এ ব্যবসায় নেমেছেন। প্রতিমাসে ২ বার ঢাকার মীর হাজারীবাগ, যাত্রাবাড়ি ও রায়েরবাগ বাজারসমূহে এ শলা বিক্রি করে থাকি। বাঁশ কেনা থেকে শুরু করে বাঁশ কাটা ও শলা তোলাসহ যাবতীয় ব্যয় বাবদ প্রতিকেজি শলায় আমার ব্যয় হয় প্রায় ২৫ টাকা। আর ঢাকায় নিয়ে তা বিক্রি করি ৩৩ থেকে ৩৫ টাকা কেজি দরে।এভাবে প্রতিমাসে ২০০ থেকে ২৫০ মণ পর্যন্ত আগর বাতির বাঁশের শলা বা কাঠি বিক্রি করে পারি। এ ব্যবসায় শুধু আমিই স্বাবলম্বী হইনি। এলাকার শতশত মানুষের রুটি রোজগারের ব্যবস্থা হয়েছে।
ঝিনাইগাতী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বাদশা জানান, ঘাঘরার শ্রমিকেরা আগরবাতির কাঠি তৈরি করে জীবিকা অর্জনে ভূমিকা রাখছে। তারা যদি সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা চায় তাদের জন্য উপজেলা পরিষদ সহায়তা করবে।