ঢাকা, বুধবার, এপ্রিল ২৬, ২০১৭

সংবাদ শিরোনাম 

বিভাগীয় সংবাদ : মধুর চাহিদা মেটাতে মৌ-চাষ বৃদ্ধির ওপর গুরুত্বারোপ * খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে সেনাবাহিনী * রংপুরে সাড়ে ৩ লাখ শিক্ষার্থীর মাদক-জঙ্গি মুক্ত সমাজ গঠনের অঙ্গীকার   |   খেলাধুলার সংবাদ : গোপালগঞ্জে অনুর্ধ্ব ১৬ ফুটবল খেলোয়াড় বাছাই * ইংলিশ উঠতি তারকা আনসারির অনাকাঙ্ক্ষিত অবসর * আইসিসির সংশোধনীতে বিসিবির আপত্তি   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : সিরিয়ার কুর্দিদের ওপর তুরস্কের বিমান হামলায় নিহত ২৮ * দিল্লীর ৩ পৌরসভার নির্বাচনে ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপি জয়ী   |   রাষ্ট্রপতি : শেরেবাংলার ব্যক্তিত্ব, প্রজ্ঞা ও দূরদর্শিতা নতুন প্রজন্মের জন্য অনুসরণীয় : রাষ্ট্রপতি   |    জাতীয় সংবাদ : হাওর এলাকায় অসহায় মানুষদের নিয়ে বিএনপি রাজনীতি শুরু করেছে : হানিফ * শেরে বাংলা ফজলুল হকের ৫৫তম মৃত্যুবার্ষিকী আগামীকাল * গত ৮ বছরে ২ লক্ষাধিক লোক সরকারি আইনি সেবা পেয়েছে : আইনমন্ত্রী   |    জাতীয় সংবাদ : ব্যবস্থাপক পর্যায়ে মানবসম্পদ উন্নয়নে দরকার যৌথ টাস্কফোর্স : গওহর রিজভী * হাওর অঞ্চলের কারণে সরকারের মজুদে কোন প্রভাব পড়বে না : খাদ্যমন্ত্রী * হাওর অঞ্চলে কৃষকদের পাশাপাশি জেলেদেরও ভিজিএফ দেয়া হবে : ত্রাণ মন্ত্রী   |   প্রধানমন্ত্রী : ফজলুল হকের অসীম মমত্ববোধ এদেশের জনগণকে চিরদিন অনুপ্রাণিত করবে : প্রধানমন্ত্রী * শৃঙ্খলা বজায় রাখা একটি বাহিনীর সদস্যদের জন্য অবশ্য পালনীয় : প্রধানমন্ত্রী * প্রধানমন্ত্রী আগামী রোববার বন্যাকবলিত সুনামগঞ্জ সফরে যাবেন   |    জাতীয় সংবাদ : গুণগত মান বজায় রেখে সময়মতো প্রকল্প সম্পন্ন করুন : গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী * সিপিএ বিশ্বের ২ দশমিক ৪ বিলিয়ন জনগণের প্রতিনিধিত্ব করছে : স্পিকার * বাংলাদেশে তথ্যের অবাধ প্রবাহ ও গণমাধ্যমের পূর্ণ স্বাধীনতা রয়েছে : রাষ্ট্রদূত মাসুদ    |   খেলাধুলার সংবাদ : সন্তান জন্মের পরেই কোর্টে ফিরবেন সেরেনা *বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত ব্যাঙ্গালুরু-হায়দারাবাদ ম্যাচ * দিলশানের বিপক্ষে গ্রেফতারি পরোয়ানা প্রত্যাহার করেছে কোর্ট * মিসবাহ-ইউনিসের বিদায়ী সিরিজ জয় দিয়ে শুরু করলো পাকিস্তান   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : ভূমিকম্পনজনিত মন্তব্যের জেরে জাপানের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনামন্ত্রীর পদত্যাগ *প্রথমবারের মতো দেশে নির্মিত বিমানবাহী রণতরী সমুদ্রে নামাল চীন * হংকংয়ে স্বাধীনতাপন্থী দুই অ্যাক্টিভিস্ট গ্রেফতার *   |   আবহাওয়া : চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দুএক জায়গায় ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে   |    বিভাগীয় সংবাদ : সিরাজগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত *ভোলায় বিশ্ব টিকাদান সপ্তাহে আলোচনা সভা *নাটোরে অত্যাশ্চার্য বৃক্ষ সজিনার আবাদ বাড়ছে : গড়ে উঠছে সজিনা গ্রাম * উপকূলীয় এলাকার মানুষের জীবন বাঁচায় কমিউনিটি ক্লিনিক *   |   

ঝিনাইগাতী উপজেলার ঘাঘড়া গ্রাম এখন আগরবাতির কাঠি পল্লী হিসেবে পরিচিত

॥ সঞ্জীব চন্দ বিল্টু ॥
শেরপুর, ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ (বাসস) : সীমান্তবর্তী জেলা শেরপুর শহর থেকে ১২ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে ঝিনাইগাতি উপজেলার হাতিবান্ধা ইউনিয়ন। এ ইউনিয়নেরই একটি গ্রাম ঘাগড়া। আর ঘাগড়ার কোনা পাড়াটিই এখন আগরবাতির কাঠি পল্লী হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। ৫ বছর আগেও যে গ্রামের অধিকাংশ মানুষ বসবাস করত নিত্য অভাবের সাথে, এখন তারা সে অভাব ঘোচাতে সক্ষম হয়েছে।
অর্থনৈতিক ভাবে গ্রামটিও চিত্র পাল্টে গেছে । এর মূলে যে ব্যক্তি কাজ করেছেন তার নাম ইউসুফ আলী (৫০)। তিনি একজন সফল উদ্যোগী। পাঁচ বছর আগে তিনি এলাকা থেকে খাড়াজোরা গাছের ছাল সংগ্রহ করে ঢাকায় নিয়ে গিয়ে বিক্রি করে সংসার চালাতেন।এখন তারও ভাগ্য পাল্টে গেছে।
ইউসুফ আলী একদিন ঢাকায় দেখতে পান শত শত শ্রমিক আগরবাতির কাঠি তোলার কাজ করছে। কাঠি তোলার মালিকের সাথে তিনি কথা বললেন এবং সিদ্ধান্ত নিলেন নিজ এলাকায় এ কাজটি শুরু করবেন। ঢাকা থেকে শ্রমিক এনে নিজ বাড়িতে পরীক্ষামূলকভাবে শুরু করলেন বাঁশের শলা তোলার কাজ। প্রায় দেড়মাস ঢাকার শ্রমিকের কাছ থেকে শিক্ষা নেয়, কাজ করতে আগ্রহী গ্রামের অনেক বেকার ও স্কুল পড়য়া ছেলেমেয়ে।
ঢাকার শ্রমিক চলে যাবার পর গ্রামের বেকার ও দরিদ্র মানষেরা আর্র্থিক সমস্যা থেকে পরিত্রান পায়। ধীরে ধীরে গ্রামের প্রায় ৫ শতাধিক নারী-শিশু এমনকি স্কুলপড়ুয়া দরিদ্র পরিবারের শিক্ষার্থীরাও এসে যোগ দেয় এ কাজে। মাত্র ৫ বছরেই পাল্টে যায় গ্রামের চিত্র। পাশাপাশি ঘাঘরা কোনা পাড়া গ্রামের নাম পরিচিতি হয়ে উঠে কাঠি পল্লী হিসেবে।
কাঠি শ্রমিক সোনিয়া খাতুন (৪৫) জানায়, স্বামী মারা গেছে অনেক আগে। অভাবের এ সংসারে সন্তানও রয়েছে। তাই পেটের তাগিদে বেছে নেয় কাঠি তোলার কাজ। প্রতিদিন সে ১২-১৫ কেজি কাঠি তুলতে পারে। কেজি প্রতি ১০ টাকা করে পায়। এতে যা টাকা পায় সে তাতে তার ছাট সংসার যায়।
বাঁশকাটা শ্রমিক শফিকুল (২৮) জানায়, প্রতিদিন ২০ থেকে ২২ মণ বাঁশ কাটতে পারি। টুকরো টুকরো করে সে বাঁশ কাটে। এতে প্রতিমণ ২০ টাকা পায় সে । দিনে ২০০ থেকে ২৫০ টাকা রোজগার করতে পারে। এ দিয়ে তার সংসার চলছে।
ইউসূফ আলী জানান, প্রথমে আমি একা এ ব্যবসা শুরু করলেও বর্তমানে আমার দেখাদেখি এ গ্রামের আরও ৫ থেকে ৬ জন এ ব্যবসায় নেমেছেন। প্রতিমাসে ২ বার ঢাকার মীর হাজারীবাগ, যাত্রাবাড়ি ও রায়েরবাগ বাজারসমূহে এ শলা বিক্রি করে থাকি। বাঁশ কেনা থেকে শুরু করে বাঁশ কাটা ও শলা তোলাসহ যাবতীয় ব্যয় বাবদ প্রতিকেজি শলায় আমার ব্যয় হয় প্রায় ২৫ টাকা। আর ঢাকায় নিয়ে তা বিক্রি করি ৩৩ থেকে ৩৫ টাকা কেজি দরে।এভাবে প্রতিমাসে ২০০ থেকে ২৫০ মণ পর্যন্ত আগর বাতির বাঁশের শলা বা কাঠি বিক্রি করে পারি। এ ব্যবসায় শুধু আমিই স্বাবলম্বী হইনি। এলাকার শতশত মানুষের রুটি রোজগারের ব্যবস্থা হয়েছে।
ঝিনাইগাতী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বাদশা জানান, ঘাঘরার শ্রমিকেরা আগরবাতির কাঠি তৈরি করে জীবিকা অর্জনে ভূমিকা রাখছে। তারা যদি সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা চায় তাদের জন্য উপজেলা পরিষদ সহায়তা করবে।