ঢাকা, শুক্রুবার, জানুয়ারী ১৯, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি : এখন থেকে দেশেই উৎপাদন হবে কম্পিউটার   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : আফগানিস্তানে সরকারি বাহিনীর অভিযানে ৮ জঙ্গি নিহত * ক্যালিফোর্নিয়ায় ১৩ শিশুকে আটকে রাখা দম্পতিকে আদালতে তোলা হচ্ছে * মুক্ত হওয়ার এক মাস পর ইরাকে আইএসের হুমকি * অস্ট্রেলিয়ার উলুরুর কাছে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত : আহত ৪   |    জাতীয় সংবাদ : বেসরকারি মেডিকেল কলেজের নীতিমালাকে আইনে রূপান্তরিত করার প্রক্রিয়া দ্রুত সম্পন্ন করার নির্দেশ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর * মেধাসম্পদের অনলাইন নিবন্ধন সেবা চালু * জ্ঞানভিত্তিক সমাজ ও দেশপ্রেমিক মানুষ গড়ার তাগিদ দিলেন শিক্ষামন্ত্রী   |   জাতীয় সংসদ : ডিসেম্বর নাগাদ পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হবে : সেতু মন্ত্রী * ছয় মাসে ১২২.৬৪ একর রেলভূমি দখলমুক্ত করা হয়েছে : রেলপথ মন্ত্রী * দেশে সাক্ষরতার হার শতকরা ৭১ ভাগ : পরিকল্পনামন্ত্রী   |   প্রধানমন্ত্রী : প্রধানমন্ত্রীকে সেনাবাহিনীর এসডব্লিউও কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন দুটি প্রকল্প সম্পর্কে অবহিতকরণ   |    জাতীয় সংবাদ : মরতুজা আহমদ নতুন প্রধান তথ্য কমিশনার * মুন সিনেমা হলের মালিককে ৯৯ কোটি টাকা দেয়ার নির্দেশ * রিট করেছে বিএনপি, দোষ পড়েছে আওয়ামী লীগের : ওবায়দুল কাদের * প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত হয়েছে : তোফায়েল আহমেদ   |   বিনোদন ও শিল্পকলা : ঝিনাইদহে ১৫ দিনব্যাপী যাত্রা উৎসব শুরু   |    বিভাগীয় সংবাদ : বরগুনায় দুদকর আয়োজনে শিক্ষার্থীদের মধ্যে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ *জয়পুরহাটে প্রবীণদের কম্বল, বয়স্ক ভাতা, উপকরণ প্রদান *হবিগঞ্জে ১১ জন আসামি গ্রেফতার * ভোলায় ৫টি বদ্ধভূমির সংস্কার ও উন্নয়ন করা হচ্ছে   |   খেলাধুলার সংবাদ : পিএসজির আট গোলের বিশাল জয়ে নেইমারের চার গোল *কোপা ডেল রে : মেসির পেনাল্টি মিসে বার্সেলোনার হার * হাথুরুসিংহের পরিকল্পনা ভুলে গেছে বাংলাদেশ : মাশরাফি * শ্রীলংকার বিপক্ষেও জয়ের লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামবে বাংলাদেশ * বর্ষসেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হলেন কোহলি   |   আবহাওয়া : দেশের কিছু স্থানে শৈত্যপ্রবাহ কেটে যেতে পারে   |    জাতীয় সংবাদ : বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব আগামীকাল থেকে শুরু * নির্বাচন বন্ধের জন্য বিএনপিকে অভিযুক্ত করা উচিত * জ্ঞান ও প্রযুক্তি রপ্তানিতেও সক্ষমতা অর্জন করতে হবে : শিক্ষামন্ত্রী * শিশু আলপনা হত্যা মামলায় ২ আসামির ফাঁসির রায় বহাল   |   প্রধানমন্ত্রী : রংপুর সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরদের শপথ গ্রহণ * প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে ২০ প্রতিষ্ঠানের অনুদান প্রদান * ওপেক বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক সম্প্রসারণে আগ্রহী   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : কাজাখস্তানে বাস দুর্ঘটনায় ৫২ জন নিহত * নির্ধারিত সময়ে কম্বোডিয়ার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে : কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী * কান্দাহারে অনলাইনে শিক্ষা নিচ্ছে আফগান তরুণীরা * ট্রাম্পের এক বছরে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া সম্পর্কোন্নয়নে ব্যর্থ   |   

ইরাকে পরাজিত হওয়া সত্ত্বেও আইএস এখনও বিশ্বের জন্যে হুমকি

প্যারিস, ২০ ডিসেম্বর, ২০১৭ (বাসস ডেস্ক) : ইরাকে ২০১৭ সালে ইসলামিক স্টেট (আইএস)- কে ব্যাপকভাবে ধ্বংস করা হয়েছে। ইরাক ও সিরিয়ায় স্বঘোষিত খিলাফতের প্রায় পুরোটাই তাদের হাতছাড়া হয়ে গেছে। তা সত্ত্বেও বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে বলেছেন, আইএস এখনো বিশ্বের জন্যে হুমকি। বছর শুরুর কয়েক ঘন্টার মধ্যে এক উজবেক তুরস্কের ইস্তাম্বুলের একটি নাইটক্লাবে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে নির্বিচারে গুলি চালিয়ে ৩৯ জনকে হত্যা করে। হামলাকারী নিজেকে খিলাফতের সৈনিক হিসেবে পরিচয় দেয়। খবর এএফপির।
সরাসরি অস্ত্রে সজ্জিত করে অথবা অনলাইন প্রপাগান্ডা চালিয়ে আইএস বছরের প্রথম ছয় মাসে পাকিস্তান, ইরাক, সিরিয়া, আফগানিস্তান, মিশর, সোমালিয়া ও গ্রেট ব্রিটেনসহ বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে হামলা চালাতে জিহাদিদের উদ্বুদ্ধ করে। এসব হামলায় বিপুল সংখ্যক লোক হতাহত হয়।
এই হামলাকারীদের একজন লিবীয় বংশদ্ভুত ব্রিটিশ নাগরিক সালমান আবেদী। ২২ মে ম্যানচেষ্টারে অ্যারিয়ানা গ্রান্ডের পপ কনসার্ট চলাকালে আবেদীর বোমা হামলায় বেশ কয়েকজন শিশুসহ ২২ জন প্রাণ হারায়।
আইএসর নির্দেশে উৎসাহিত হয়ে জিহাদিরা লন্ডন, স্টকহোম, নিউইয়র্ক ও বার্সেলোনায় গাড়ির নিচে পিষ্ট করে মানুষকে হত্যা করেছে। ভিড়ের মধ্যে গাড়ি চালিয়ে এই সব হত্যাকা- চালানো হয়েছে। এ ধরনের হামলা ঠেকানো খুবই কঠিন হয়ে পড়েছে।
২০১৬ সালের শরৎকালে ইরাক ও সিরিয়ায় জিহাদি সংগঠনটির বিরুদ্ধে সমন্বিত অভিযান শুরু হয়। এতে আইএস অনেকাংশে দুর্বল হয়ে পড়ে। কিন্তু তা সত্ত্বেও আইএস সমর্থিত জিহাদিরা বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে হামলা চালিয়ে কয়েক হাজার মানুষকে হত্যা করে।
আইএস বিদেশে নেটওয়ার্ক পরিচালনা, সদস্য সংগ্রহ, অর্থ যোগান ও তাদের অভিযানগুলোর মধ্যে সমন্বয় সাধনের জন্য একটি ঘাঁটি স্থাপন করেছে।
কিন্তু দৃশ্যমানভাবে জিহাদি সংগঠনটির এই নেটওয়ার্কের কোন অস্তিত্ব না থাকায় হামলাগুলোর লাগাম টেনে ধরা বা এর অবসান করা যাচ্ছে না।