ঢাকা, বুধবার, মে ২৩, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

রাষ্ট্রপতি : শিল্প প্রবৃদ্ধি অব্যাহত রাখতে দেশী বিদেশী বিনিয়োগ বাড়াতে হবে : রাষ্ট্রপতি   |    অর্থনীতি : রাষ্ট্রপতির শিল্প উন্নয়ন পদক পেলেন রানার গ্রুপের চেয়ারম্যান   |    অর্থনীতি : রাষ্ট্রপতির শিল্প উন্নয়ন পদক পেলেন রানার গ্রুপের চেয়ারম্যান   |   প্রধানমন্ত্রী : প্রধানমন্ত্রী শুক্রবার কলকাতা যাচ্ছেন * একনেকে ৩৯ হাজার ২৪৬ কোটি টাকা ব্যয়ে পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের অনুমোদন   |   আবহাওয়া : ঢাকাসহ দেশের দক্ষিণাঞ্চলে আরও ২ থেকে ৩ দিন বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকতে পারে    |    বিভাগীয় সংবাদ : লোহাগড়া ইতনা গণহত্যা দিবস আগামীকাল * নাটোরে দুই জেএমবি সদস্য গ্রেফতার   |    জাতীয় সংবাদ : বাংলাদেশ ও অস্ট্রিয়ার মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বিমান চলাচল চুক্তি স্বাক্ষরিত * রাজীবের ভাইদের ক্ষতিপূরণে আদেশ স্থগিত, তদন্তের নির্দেশ * স্থায়ী প্রতিনিধির সঙ্গে মিয়ানমারে নিযুক্ত জাতিসংঘ মহাসচিবের বিশেষ দূতের সৌজন্য সাক্ষাৎ   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : করাচিতে হিটস্ট্রোকে ৬৫ জনের মৃত্যু * পুতিন ও মোদি কৌশলগত অংশীদারিত্ব নিয়ে আলোচনা করেছেন : লাভরভ *রাশিয়ায় দাবানলে ২৩ হাজার হেক্টর বনাঞ্চল ধ্বংস   |   

জাপানে কিশোর হত্যাকারীসহ ২ জনের মৃত্যুদন্ড কার্যকর

টোকিও, ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৭ (বাসস ডেস্ক) : জাপানে মঙ্গলবার দুই হত্যাকারীর মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা হয়েছে। এদের মধ্যে একজন কিশোর বয়সে এ অপরাধ করে। সর্বোচ্চ এ সাজা বন্ধে আন্তর্জাতিক মানবাধিকর গ্রুপের আহবান উপেক্ষা করে তাদের সাজা কার্যকর করা হয়েছে। বিচার মন্ত্রণালয় একথা জানায়। খবর এএফপির।
রক্ষণশীল প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবে ২০১২ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে এ নিয়ে জাপানে মোট ২১ জনের মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা হল। মঙ্গলবার ফাঁসি দিয়ে তারুহিকো সেকি ও কিয়োশি মাতসুইয়ের মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা হয়।
মন্ত্রণালয় জানায়, ১৯৯২ সালে টোকিওর দক্ষিণপূর্ব চিবায় চারজনকে হত্যা করায় সেকিকে (৪৪) দোষী সাব্যস্ত করা হয়। এ অপরাধ সংঘটনের সময় তার বয়স ছিল ১৯ বছর।
স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, ১৯৯৭ সালের পর এই প্রথমবারের মতো কিশোর বয়সে অপরাধ করা কোন আসামির মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা হলো।
জাপানে ২০ বছর বয়সী কোন মানুষকে প্রাপ্ত বয়স্ক বিবেচনা করা হয়।
১৯৯৪ সালে মেয়ে বন্ধু ও তার বাবা-মাকে হত্যা করার দায়ে মাতসুইকে (৬৯) মৃত্যুদন্ড দেয়া হয়।
স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, উভয় জনই সাজা পুনর্বিবেচনার আবেদন করেছিল।
উন্নত দেশগুলোর মধ্যে কেবলমাত্র জাপান ও যুক্তরাষ্ট্রে এখনো সর্বোচ্চ শাস্তি বহাল রয়েছে।