ঢাকা, বুধবার, জানুয়ারী ১৭, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

প্রধানমন্ত্রী : উন্নত দেশগুলোকে বাংলাদেশের পাশে দাঁড়ানোর আহবান প্রধানমন্ত্রীর   |   আবহাওয়া : দেশের কিছু স্থানে শৈত্যপ্রবাহ কমবে   |   খেলাধুলার সংবাদ : জুনে ব্যাঙ্গালুরুতে ইতিহাসের প্রথম টেস্ট খেলবে আফগানিস্তান * মিরপুর স্টেডিয়ামের শততম ওয়ানডে ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টস জিতে ফিল্ডিং-এ শ্রীলংকা   |    জাতীয় সংবাদ : ঢাকা উত্তর সিটির উপ-নির্বাচন স্থগিত * নবম ওয়েজ বোর্ডে সাংবাদিকদের স্বার্থ গুরুত্ব পাবে: তারানা হালিম * আপিল শুনানির কার্যতালিকায় যুদ্ধাপরাধী আজহার-কায়সার-সুবহানের মামলা   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : ফিলিস্তিনের জন্য জাতিসংঘ সংস্থা থেকে বরাদ্দকৃত অর্থ প্রত্যাহার যুক্তরাষ্ট্রের * মিয়ানমারে রাখাইন বৌদ্ধদের ওপর পুলিশের হামলা ॥ নিহত ৭ * পেরুর সাবেক প্রেসিডেন্টের হাসপাতাল ত্যাগ * মেক্সিকোয় গণকবর থেকে ৩২টি লাশ উদ্ধার    |   

ভোলা পৌরসভায় ৩৬০টি সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হবে

ভোলা, ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৭ (বাসস) : ভোলা পৌরসভার গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন পয়েন্টে ৩৬০টি আইপি সিস্টেম সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হবে। পৌরসভার উদ্যোগে সাড়ে ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে চলতি অর্থবছরের মধ্যে সিসি ক্যামেরা স্থাপনর কাজ শুরু করা হবে। একইসাথে ১ হাজার পয়েন্টে ১ হাজার স্পিকার (মাইক) লাগানো হবে। পৌর মেয়র মো: মনিরুজ্জামান মনির আজ বাসসকে এ তথ্য জানান।
মেয়র জানান, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ যেভাবে এগিয়ে চলছে তারই ধারাবাহিকতায় ভোলা পৌরসভাকে স্পার্ক সিটি হিসেবে গড়ে তোলার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ফলে শহরে ৩৬০টি পয়েন্টে সিসি ক্যামেরা ও ১ হাজার স্থানে মাইকর আওতায় আনা হবে। এতে করে শহরে ইভটিজিং, মাদক, চুরি, ডাকাতিসহ সব ধরনের অপরাধ নিয়ন্ত্রন করা সম্ভব হবে।
মেয়র মনির আরো বলেন, ১ হাজার মাইক স্থাপনের মাধ্যমে পৌর কতৃপক্ষ তাদের গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন ম্যাসেজ জনসাধারনের কাছে পৌঁছে দিতে পারবে। যেমন পৌর এলাকার কোন নাগরীকের মৃত্যুর খবর, রোজার মাসে সেহেরী ও ইফতারের সময় মাইকিং হবে। সিসি ক্যামেরায় যদি কোন কিছু ধরা পরে এসব মাইকে তাৎক্ষণিক ঘোষণা করা হবে। সিসি ক্যামেরার মূল নিয়ন্ত্রন পৌর কতৃপক্ষের কাছে থাকবে বলে মেয়র জানান।
পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী জসিমউদ্দিন আরজু বলেন, শহরের বাংলা স্কুল মোড়, সদর রোড, কালীবাড়ি মোড়, উকিল পাড়া, যুগির খোল, নতুন বাজার, কালীনাথ রায়ের বাজারসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও স্থানে সিসি ক্যামেরা ও মাইক স্থাপন করা হবে। অত্যাধুনিক এসব ক্যামেরার সাথে নাইট ভিশন ক্যামেরা সংযুক্ত থাকবে। ফলে রাতেও কেউ কোন অপরাধ করলে পার পাবেনা। পৌরসভা ছাড়াও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, জেলা পুলিশ সূপারের কার্যালয় ও সদর থানায় সিসি ক্যামেরার ৩টি বুথ থাকবে।
জেলা পুলিশ সূপার মো: মোকতার হোসেন বাসসকে বলেন, সিসি ক্যামেরা স্থাপন হলে শহরের আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ পুলিশের পক্ষে অনেক সহজ হবে। যে কোন অপরাধ সহজেই শনাক্ত করা যাবে। ফলে মানুষের মধ্যে অপরাধ প্রবণতাও অনেকটা কমে যাবে বলে পুলিশ সূপার মনে করেন।
এদিকে পৌরসভাকে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনার পরিকল্পনাকে স্বাগত জানিয়েছেন সর্বস্তরের মানুষ। এটি একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ উল্লেখ করে ভোলা নাগরিক কমিটির সভাপতি এম এ তাহের বলেন, সিসি ক্যামেরার আওতায় পৌর শহরকে আনা হলে শহরে অনেকটাই সমাজ বিরোধী কার্যকলাপ বন্ধ করা যাবে। জেলা শহরে যদি আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রনে থাকে তবে তার প্রভাব সমগ্র জেলায় পরে। তাই এমন উদ্যোগের জন্য মেয়রকে ধন্যবাদ জানান তিনি।