ঢাকা, বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ১৮, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

বিনোদন ও শিল্পকলা : ঝিনাইদহে ১৫ দিনব্যাপী যাত্রা উৎসব শুরু   |    বিভাগীয় সংবাদ : বরগুনায় দুদকর আয়োজনে শিক্ষার্থীদের মধ্যে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ *জয়পুরহাটে প্রবীণদের কম্বল, বয়স্ক ভাতা, উপকরণ প্রদান *হবিগঞ্জে ১১ জন আসামি গ্রেফতার * ভোলায় ৫টি বদ্ধভূমির সংস্কার ও উন্নয়ন করা হচ্ছে   |   খেলাধুলার সংবাদ : পিএসজির আট গোলের বিশাল জয়ে নেইমারের চার গোল * রাশিয়া বিশ্বকাপের আগে আরো তিনটি প্রীতি ম্যাচের ঘোষণা দিল নাইজেরিয়া   |   আবহাওয়া : দেশের কিছু স্থানে শৈত্যপ্রবাহ কেটে যেতে পারে   |    জাতীয় সংবাদ : বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব আগামীকাল থেকে শুরু * নির্বাচন বন্ধের জন্য বিএনপিকে অভিযুক্ত করা উচিত   |   প্রধানমন্ত্রী : রংপুর সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরদের শপথ গ্রহণ * প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে ২০ প্রতিষ্ঠানের অনুদান প্রদান   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : কাজাখস্তানে বাস দুর্ঘটনায় ৫২ জন নিহত * নির্ধারিত সময়ে কম্বোডিয়ার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে : কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী * কান্দাহারে অনলাইনে শিক্ষা নিচ্ছে আফগান তরুণীরা   |   

রোকেয়ার পথ অনুসরণে মাঙ্গলিক সমাজ প্রতিষ্ঠা করতে হবে : রোকেয়া দিবসে বক্তারা

ঢাকা, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৭ (বাসস) : রোকেয়া দিবস ২০১৭ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনায় বক্তারা বলেন, রোকেয়া সাখাওয়াৎ হোসেনের কালজয়ী আদর্শের পথ অনুসরণ করে আমাদের নারী-পুরুষ উভয়ের জন্য একটি মাঙ্গলিক সমাজ প্রতিষ্ঠা করতে হবে।
বক্তারা বলেন, রোকেয়া সভ্যতা নির্মাণে যে আলোক শিখা জ্বেলে গেছেন তা আজও সার্বিক মুক্তির পথে অনিঃশেষ প্রেরণা দিয়ে যাচ্ছে। শুধু মুসলমান নয়, সব ধর্মে বৈষম্যহীন সমাজ প্রতিষ্ঠার জন্য অবরোধ ভেঙ্গে সংগ্রামে লিপ্ত হবার উৎসাহ যুগিয়েছেন তিনি।
রোববার বাংলা একাডেমির কবি শামসুর রাহমান সেমিনার কক্ষে আয়োজিত এক বক্তৃতা অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন।
এতে সভাপতিত্ব করেন সেন্ট্রাল উইমেন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক পারভিন হাসান। জ্ঞানতত্ত্ব ও নারীমুক্তি : আমাদের প্রতিকৃতি (উনিশ-বিশ শতক)-শীর্ষক আলোচনায় বিষয় ভিত্তিক বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক সোনিয়া নিশাত আমিন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান।
অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান বলেন, কোন দেশকে উন্নত করতে হলে নারী-পুরুষ একযোগে সামাজিক, রাজনৈকি, অর্থনৈতিক উন্নয়নে অংশগ্রহন করতে হয়ে।
তিনি, রোকেয়া নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সবাইকে দিয়ে গেছেন সম্মুখ যাত্রার দিশা। রোকেয়ার সংগ্রাম শুরু হয়েছিল গ্রাম থেকে। সেখান থেকেই তিনি যে নারীমুক্তির আলোর শিখা জ্বেলে গেছেন তা আজও আমাদের সার্বিক মুক্তির পথে প্রেরণা যোগাচ্ছে।
অধ্যাপক সোনিয়া নিশাত আমিন বলেন, রোকেয়া তার বস্তুবাদী ও জ্ঞানতাত্ত্বিক নারী-ভাবনায় বঞ্চিত নারীদের মর্যাদা দিয়েছেন। নারীদের অবরোধ ভেঙ্গে পুরুষের সঙ্গে সংগ্রাম করে উভয়ের জন্য উন্নত সমাজ প্রতিষ্ঠার জন্য কাজ করে গেছেন। রোকেয়া বাঙালি মুসলমান সমাজের পরিসরে অবস্থান করে এই বিভাজনের সংস্কৃতির বিরুদ্ধে তাত্ত্বিক ও প্রায়োগিক উভয় দিক থেকে লড়াই করেছেন।
তিনি বলেন, উনিশ ও বিশ শতকে সাবিত্রী দেবী ফুলে, প-িতা রমাবাঈ, সরলা দেবী ও রোকেয়া নারী মুক্তির জন্য বৈপ্লবিক পথরেখা নির্ধারণ করে পৃথিবীতে নারীর অনগ্রসরতার বিষয়গুলো চিহ্নিত করে কাজ করেছেন।
অধ্যাপক পারভীন হাসান বলেন, রোকেয়ার কালজয়ী আদর্শের পথ ধরেই আমরা নারী-পুরুষ উভয়ের জন্য একটি মাঙ্গলিক সমাজ প্রতিষ্ঠা করতে সচেষ্ট হবো। রোকেয়া তাঁর ব্যক্তি ও সাহিত্য জীবনে ছিলেন চিন্তাশীল এবং মনিষীরূপে। রক্ষণশীল সমাজের ভেতর অবস্থান করেও অনেক সংগ্রাম করে বৈষম্যহীন সমাজ প্রতিষ্ঠার পথ দেখিয়ে গেছেন।