ঢাকা, মঙ্গলবার, মে ২২, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

জাতীয় সংবাদ : বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ কক্ষপথের অবস্থানে পৌঁছেছে * মুক্তিযোদ্ধার অসম্মানজনক দাফনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা : মোজাম্মেল হক * ৭১তম বিশ্ব স্বাস্থ্য সম্মেলন শুরু   |   শিক্ষা : জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স পরীক্ষার ফরম পূরণ ২৩ মে শুরু   |   প্রধানমন্ত্রী : বাগেরহাট-৩ আসনের উপনির্বাচনে হাবিবুন নাহার আওয়ামী লীগের প্রার্থী * যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, এতিম ও আলেম-ওলামাদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ইফতার * এইচবিআরআই খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন   |    জাতীয় সংবাদ : রাজীবের পরিবারকে কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ : আপিলের আদেশ কাল * খালেদা জিয়ার মুক্তির সঙ্গে আগামী জাতীয় নির্বাচনের কোন সম্পর্ক নেই : ড. হাছান মাহমুদ * বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়ন যেকোনো দেশের জন্যই অনুসরণীয় : মুহিত   |   আবহাওয়া : নৌবন্দরসমূহে এক নম্বর সতর্কতা সংকেত   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : ভারতের দক্ষিণাঞ্চলে নিপা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৯ জনের মৃত্যু * পুতিনের সাথে অনানুষ্ঠানিক বৈঠকের জন্য রাশিয়া সফরে মোদি * মাদুরো বিরোধীদের উচিত নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করা : ভেনিজুয়েলার বিরোধীদল * বাস-ট্রাকে সংঘর্ষে মধ্যপ্রদেশে নিহত ৯   |   খেলাধুলার সংবাদ : রোম মাস্টার্সের অষ্টম শিরোপা জিতে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে ফিরলেন নাদাল * চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফাইনালের জন্য রিয়াল প্রস্তুত : জিদান   |   

পিকেএসএফ উদ্যোক্তাদের জন্য পণ্য প্রদর্শনী ও বিক্রয়কেন্দ্র হচ্ছে

ঢাকা, ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ (বাসস) : পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ)-এর কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারী প্রান্তিক পর্যায়ের উদ্যোক্তাদের উৎপাদিত পণ্যের প্রচার ও বাজারজাতকরণের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রদর্শনী ও বিক্রয়কেন্দ্র স্থাপন করা হচ্ছে। এখানে উদ্যোক্তারা বিনামূল্যে তাদের পণ্যসামগ্রী বাজারজাতকরণের সুযোগ পাবেন। এ লক্ষ্যে সংস্থাটি রাজধানীর শ্যামলীতে পিকেএসএফ প্রদর্শনী ও বিক্রয় ভবন নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে।
এই ভবন নির্মাণের জন্য সম্প্রতি পিকেএসএফ বেসরকারি ডেভলপার কোম্পানি কনকর্ড ইঞ্জিনিয়ার্স এন্ড কনস্ট্রাকশন লিমিটেডের সাথে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। চুক্তি অনুযায়ী পিকেএসএফের নিজস্ব জমিতে ১৩তলা ভবন নির্মাণ করা হবে। আধুনিক বিপনীবিতানের সকল সুযোগ-সুবিধাসম্পন্ন ১৩তলা ভবনের ৯টি তলা প্রান্তিক উৎপাদকের উৎপাদিত পণ্য প্রদর্শনের জন্য ব্যবহৃত হবে।
এ বিষয়ে পিকেএসএফ উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মো. জসীম উদ্দিন বাসসকে বলেন, বর্তমানে পিকেএসএফ সহায়তাপুষ্ট বা কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারী ১৫ লাখ ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা রয়েছেন, যারা অন্তত ৫ থেকে ৭ লাখ টাকার পুঁজি নিয়ে ব্যবসা বা ক্ষুদ্র পর্যায়ের উদ্যোক্তা হিসেবে কাজ করছেন। এসব উদ্যোক্তারা বাজারতথ্যের অভাব এবং বাজারজাতকরণের পর্যাপ্ত সুযোগ-সুবিধা না পাওয়ায় উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্যা মূল্য পাচ্ছেন না। আমরা তাদের বাজারতথ্য প্রদানের পাশাপাশি বাজারজাতকরণের সুযোগ সৃষ্টি করতে চাই। এ লক্ষ্যে পণ্য প্রদর্শনী ও বিক্রয়কেন্দ্র স্থাপনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।
তিনি বলেন, প্রান্তিক পর্যায়ের উদ্যোক্তাদের পর্যাপ্ত বাজারতথ্য এবং বাজারজাতকরণের সুযোগ দেয়া গেলে তারা মানসম্পন্ন পণ্য উৎপাদনে অনুপ্রাণিত হবেন। এতে উদ্যোক্তারা যেমন লাভবান হবেন, তেমনি ভোক্তারা তুলনামূলক সাশ্রয়ীমূল্যে পণ্য ক্রয় করতে পারবেন।
পিকেএসএফের জ্যেষ্ঠ এই কর্মকর্তা জানান, উদ্যোক্তারা বিনামূল্যে বিক্রয়কেন্দ্র ব্যবহার করবেন। কেবলমাত্র তাদের পরিসেবার খরচ বহন করতে হবে। আগামী ৩ বছরের মধ্যে বিক্রয়কেন্দ্র ব্যবহারের উপযোগী হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।
উল্লেখ্য, বর্তমানে পিকেএসএফের কর্মসূচিতে অংশগ্রহগণকারীর মোট সংখ্যা ১ কোটি ২০ লাখ। এর মধ্যে ১৫ লাখ অংশগ্রহণকারী নিজেদেরকে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেছেন।