ঢাকা, শুক্রুবার, ফেব্রুয়ারী ২৩, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

আবহাওয়া : সারাদেশে আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে   |   খেলাধুলার সংবাদ : আইসিসির অনুমোদন পেল কানাডার টি-২০ লীগ * কেনিয়া ক্রিকেট দলের অধিনায়ক, কোচ ও বোর্ড সভাপতির পদত্যাগ   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : পদত্যাগ করছেন অস্ট্রেলিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী * আর্জেন্টিনার রুশ দূতাবাস থেকে ৪০০ কিলো কোকেন উদ্ধার * মধ্যপ্রাচ্য শান্তি প্রস্তাব প্রায় প্রস্তুত : জাতিসংঘে মার্কিন দূত   |   

এফডিআই বাড়াতে ওয়ান স্টপ সার্ভিস চালুর পরামর্শ

ঢাকা, ১৮ জানুয়ারি, ২০১৮ (বাসস) : প্রত্যক্ষ বৈদেশিক বিনিয়োগ (এফডিআই) বাড়াতে ওয়ান স্টপ সার্ভিস চালু,কর ব্যবস্থাপনা সহজীকরণ, প্রাতিষ্ঠানিক সংস্কার এবং অবকাঠামোখাতের উন্নয়নের সুপারিশ করেছে ব্যবসায়ী, বিশেষজ্ঞ এবং উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার কর্মকর্তারা।
বাংলাদেশ উন্নয়ন ফোরামের (বিডিএফ) সভায় এফডিআই এবং বেসরকারি বিনিয়োগ আকর্ষণের জন্য উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টিবিষয়ক এক কর্মঅধিবেশনে এই সুপারিশ তুলে ধরা হয়। এর জবাবে প্রধানমন্ত্রীর পররাষ্ট্রবিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী বলেছেন, বাংলাদেশে আর্থিক খাতের সূচকগুলোর অবস্থা বেশ ভালো। এর পাশাপাশি ব্যবসা ও বিনিয়োগবান্ধব নীতির পর্যাপ্ততা রয়েছে। আবার শিগগিরই দৃশ্যমান হবে ওয়ান স্টপ সার্ভিস (এক দরজায় সব সেবা)। তাই আমি মনে করি-বিদেশীরা এখানে এখন বিনিয়োগ করতে পারেন।
বুধবার রাজধানীর একটি পাঁচতারকা হোটেলে দুদিনব্যাপী বিডিএফ সভা শুরু হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকালে এর উদ্বোধন করেন।
গওহর রিজভীর সভাপতিত্বে কর্মঅধিবেশনে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবীর, পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক, জাপান আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার (জাইকা) দক্ষিণ এশীয় বিভাগের মহাপরিচালক কিশুরো নাকাজায়া, ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স করপোরেশনের (আইএফসি) জ্যেষ্ঠ অর্থনীতিবিদ ও প্রোগ্রাম ব্যবস্থাপক ড. মো. মাশরুর রিয়াজ, মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির (এমসিসিআই) সভাপতি ব্যারিস্টার নিহাদ কবীর, অর্থ মন্ত্রণালয়ের সাবেক সিনিয়র সচিব ড. মোহাম্মদ তারেক আলোচনায় অংশ নেন।
অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. কাজী এম আমিনুল ইসলাম।
গওহর রিজভী বলেন, বাংলাদেশের বিনিয়োগ পরিবেশ ভাল নয় অনেকের মধ্যে এমন ধারনা আছে। তবে এটি সঠিক নয়। এফডিআইসহ অভ্যন্তরীণভাবে বেসরকারি বিনিয়োগ বাড়াতে বিভিন্ন ধরনের সংস্কার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। বাংলাদেশে বিনিয়োগ করে তুলনামূলকভাবে বেশি রিটার্ন পাওয়া যায় বলে তিনি মন্তব্য করেন।
বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবীর বলেন, গত কয়েক বছরে বাংলাদেশের আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের সক্ষমতা অনেক বেড়েছে। অধিকাংশ অর্থনৈতিক সূচক এখন ভালো অবস্থায় রয়েছে। এই অবস্থায় তরুণ জনগোষ্ঠী বা জনআধিক্যের সুবিধা কাজে লাগিয়ে বিদেশী বিনিয়োগকারী লাভবান হতে পারেন।
এমসিসিআই সভাপতি ব্যারিস্টার নিহাদ কবীর বলেন, বাংলাদেশে নীতিসমূহ যথেষ্ট ভালো কিন্তু এর কার্যকারিতা দুর্বল। এখান থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে। ব্যবসা সহজ করতে ওয়ান স্টপ সার্ভিস দ্রুত চালু করার আহবান জানান তিনি।
তিনি এফডিআই বাড়াতে প্রাতিষ্ঠানিক সংস্কার, অবকাঠামোখাতের উন্নয়ন এবং কর ব্যবস্থাপনা ও বৈদেশিক মুদ্রানীতি সহজ করার পরামর্শ দেন।
অনুষ্ঠানে জাইকার দক্ষিণ এশীয় বিভাগের মহাপরিচালক কিশুরো নাকাজায়া বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতির প্রশংসা করে বলেন, গত কয়েক বছরে বাংলাদেশের বৈশ্বিক প্রতিযোগিতা সক্ষমতা বাড়ার পাশাপাশি উচ্চ হারে প্রবৃদ্ধি অর্জণে সক্ষম হয়েছে। তবে এফডিআই বাড়ানোর পূর্বশর্ত হলো অভ্যন্তরীণ বেসরকারি বিনিয়োগ আগে বাড়ানো। এর জন্য বেসরকারিখাতের উপযুক্ত বিনিয়োগ নিশ্চিত করতে হবে। উৎপাদন ও বিপনণ ব্যবস্থাপনার মধ্যে সংযোগ বৃদ্ধি, ভৌত অবকাঠামো খাতের উন্নয়ন এবং পর্যাপ্ত নীতি সহায়তা দিতে হবে।
আমিনুল ইসলাম তার মূল প্রবন্ধে বলেন, সহজে ব্যবসা পরিচালনা বা ডুয়িং বিজনেস সূচকে বাংলাদেশ বর্তমানে ১৮৯ দেশের মধ্যে ১৭৭তম। ২০২১ সালের মধ্যে ৯৯তম স্থানে উন্নীত হতে চাই। বিনিয়োগকারীদের দ্রুত সেবা দিতে দ্রুত ওয়ান স্টপ সার্ভিস চালু করার প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।
আমিনুল ইসলাম বলেন, ২০১০-১১ অর্থবছরে বাংলাদেশে মোট এফডিআইয়ের পরিমাণ ছিল ৭৭৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, গত ২০১৬-১৭ অর্থবছরে এটি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৪৫৪ মিলিয়ন ডলার। সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা অনুযায়ী এসডিজি অর্জণে ২০৩০ সালের মধ্যে আমরা এফডিআইকে ৩২ ট্রিলিয়ন ডলারে উন্নীত করতে চাই।
তিনি জানান, এফডিআইয়ের পাশাপাশি বেসরকারি বিনিয়োগ বাড়াতে সরকার অর্থনৈতিক অঞ্চল, ইকোনমিক করিডোর, আইটি পার্ক প্রতিষ্ঠা করছে। এখানে ওয়ান স্টপ সার্ভিসহ প্রয়োজনীয় অবকাঠামো সেবা নিশ্চিত করা হচ্ছে।