ঢাকা, বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ১৮, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

রাষ্ট্রপতি : বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের চমৎকার সম্পর্ক রয়েছে : রাষ্ট্রপতি   |    বিভাগীয় সংবাদ : দিনাজপুরে নাশকতার মামলায় ৪ জেএমবি সদস্যের জামিন আবেদন নামঞ্জুর   |   জাতীয় সংসদ : বঙ্গবন্ধু সেতুতে ডুয়েলগেজ রেললাইনসহ পৃথক রেল সেতু নির্মাণ প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী * আগামী বাজেটে বেসরকারি বিদ্যালয়ের এমপিও অন্তর্ভুক্তির বিষয়ে সরকার সিদ্ধান্ত নিবে : প্রধানমন্ত্রী *সকল জেলায় হাইটেক পার্ক স্থাপন করা হবে : প্রধানমন্ত্রী   |   জাতীয় সংসদ : সরকার প্রতিবন্ধী শিশুদের শিক্ষার প্রতি অত্যন্ত যত্নশীল : প্রধানমন্ত্রী * ২০০৯ সাল থেকে অদ্যাবধি রেলওয়ের বিভিন্ন পদে ১০ হাজার ৩৯১ জনকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে : রেলপথ মন্ত্রী * কিছু রাজনীতিবিদ নির্বাচন এলে বক্রপথে ক্ষমতায় যাবার স্বপ্ন দেখে : প্রধানমন্ত্রী   |   শিক্ষা : শর্ত পূরণ না করা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে : শিক্ষামন্ত্রী   |   বিনোদন ও শিল্পকলা : প্রাচ্যনাটের অ্যাকটিং স্কুলের নতুন নাটক নৈশভোজ মঞ্চস্থ হলো   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : ট্রাম্পের স্বাস্থ্যগত জটিলতা নেই : চিকিৎসক   |   প্রধানমন্ত্রী : উন্নত দেশগুলোকে বাংলাদেশের পাশে দাঁড়ানোর আহবান প্রধানমন্ত্রীর   |   আবহাওয়া : দেশের কিছু স্থানে শৈত্যপ্রবাহ কমবে   |   খেলাধুলার সংবাদ : মিরপুর স্টেডিয়ামের শততম ওয়ানডে ম্যাচে শ্রীলংকাকে ২৯১ রানের টার্গেট দিলো জিম্বাবুয়ে *আমাদের পেস বোলাররাই সেরা : রুবেল   |    জাতীয় সংবাদ : ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন বন্ধে সরকারের কোন হাত নেই : ওবায়দুল কাদের *ঢাকা উত্তর সিটির উপ-নির্বাচন স্থগিত * নবম ওয়েজ বোর্ডে সাংবাদিকদের স্বার্থ গুরুত্ব পাবে: তারানা হালিম * আপিল শুনানির কার্যতালিকায় যুদ্ধাপরাধী আজহার-কায়সার-সুবহানের মামলা   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : ফিলিস্তিনের জন্য জাতিসংঘ সংস্থা থেকে বরাদ্দকৃত অর্থ প্রত্যাহার যুক্তরাষ্ট্রের * মিয়ানমারে রাখাইন বৌদ্ধদের ওপর পুলিশের হামলা ॥ নিহত ৭ * পেরুর সাবেক প্রেসিডেন্টের হাসপাতাল ত্যাগ * মেক্সিকোয় গণকবর থেকে ৩২টি লাশ উদ্ধার    |   

সর্বোচ্চ ৯ শতাংশ সুদে উদ্যোক্তাদের ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত জামানতবিহীন ঋণ দিচ্ছে এসএমই ফাউন্ডেশন

ঢাকা, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৭ (বাসস) : ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের উন্নয়নের লক্ষ্যে এসএমই ফাউন্ডেশনের ক্রেডিট হোলসেলিং প্রোগ্রাম-এর আওতায় নির্বাচিত ব্যাংক ও নন-ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের সম্ভাবনাময় এসএমই সেক্টর বা ক্লাষ্টার অথবা ক্লায়েন্টেল গ্রুপকে তথা শিল্প উদ্যোক্তাদের সর্বোচ্চ ৯ শতাংশ সুদে জামানতবিহীন ঋণ প্রদান করা হয়।
ফাউন্ডেশন ৩১ অক্টোবর ২০১৭ পর্যন্ত সর্বমোট ১১টি ব্যাংক ও অব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়ে ১৯টি ক্লাস্টার বা ক্লায়ান্টেল গ্রুপে মোট ১০১ কোটি ২৫ লাখ টাকা বরাদ্দ অনুমোদন করেছে।
এসএমই ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক পরিচালক মোঃ শফিকুল ইসলাম বাসসকে এসব কথা জানান।
তিনি বলেন, সহজ শর্তে সিঙ্গেল ডিজিট রেটে সর্বোচ্চ ৯ শতাংশ সুদে, জামানত বিহীন ৫০ হাজার টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋন দেওয়া হচ্ছে। সর্বোচ্চ মেয়াদ পাঁচ বছর মেয়াদী এই ঋন সুবিধাজনক কিস্তিতে পরিশোধযোগ্য।
মোঃ শফিকুল ইসলাম বলেন, চলতি বছরের অক্টোবর পর্যন্ত এসএমই অর্থায়ন সুবিধা প্রাপ্ত উদ্যোক্তার সংখ্যা ১ হাজার ২৬৩ জন। এদের মধ্যে নারী উদ্যোক্তার সংখ্যা ৪৫০ জন এবং পুরুষ উদ্যোক্তার সংখ্যা ৮১৩ জন।
এসএমই ঋনের ফলে এ পর্যন্ত প্রত্যক্ষভাবে প্রায় ৫ হাজার লোকের এবং পরোক্ষভাবে আরও প্রায় ১০ হাজার লোকের সর্বমোট কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, শিল্প উন্নয়ন ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে আরও অধিক জনগোষ্ঠিকে এতে সম্পৃক্ত করা দরকার।
ঋন বরাদ্দ এবং এর পরিধি সম্প্রসারনের উপর গূরুত্বারোপ করে তিনি আরও বলেন, আরও অধিক সংখ্যক শিল্প উদ্যোক্তাকে এ খাতে বরাদ্দ বৃদ্ধি করা প্রয়োজন। এ লক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে আমরা আবেদন করেছি এবং আরও ৫০ কোটি টাকা পাওয়া যাবে বলে আশা করছি।
ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, এসএমই ফাউন্ডেশন দেশের দশলক্ষ ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প প্রতিষ্ঠানসমূহের সাথে সপৃক্ত কোটি মানুষের সামগ্রিক উন্নয়নের লক্ষ্যে সরকার প্রণীত বাংলাদেশ সরকারের সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা (২০১৬-২০২০), রূপকল্প-২০২১, জাতীয় শিল্প নীতি ২০১৬, এসডিজি এর পাঁচটি অভীস্ট লক্ষ্যমাত্রা (১,৪,৫,৮ এবং ৯) এবং অন্যান্য নীতিমালা ও কৌশলপত্র অনুসারে নির্ধারিত লক্ষ্য অর্জনের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।
এসএমই ফাউন্ডেশন সূত্রে জানা যায়, ২০০৯ সালে একটি পাইলট প্রোগ্রাম হিসেবে মাইডাস ফ্যাইনান্সিং লিমিটেডের মাধ্যমে বগুড়া লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং ক্লাস্টারে ৫০ লক্ষ টাকা বিতরণের মাধ্যমে ক্রেডিট হোলসেলিং প্রোগ্রাম শুরু করে। পরবর্তীতে বগুড়া লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং ক্লাস্টার পরিদর্শন করে ঋণপ্রাপ্ত উদ্যোক্তাদের সঙ্গে কথা বলে এই প্রোগ্রামের ইতিবাচক প্রভাব লক্ষ্য করে ফাউন্ডেশন ক্রেডিট হোলসেলিং প্রোগ্রামটি নিয়মিতভাবে শুরু করে।
সূত্র জানায়, ফাউন্ডেশনের ক্রেডিট এন্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস উইং হতে ক্রেডিট হোলসেলিং প্রোগ্রামের আওতায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের সম্ভাবনাময় এসএমই সেক্টর বা ক্লাষ্টার বা ক্লায়েন্টেল গ্রুপকে সর্বোচ্চ ৯% সুদে জামানতবিহীন ঋণ প্রদান করা হয়। এর আওতায় সারাদেশে স্বাভাবিকভাবে গড়ে ওঠা ১৭৭টি এসএমই ক্লাস্টার চিহ্নিতকরণ এবং ক্লাস্টার সমূহের উন্নয়ন চাহিদা নিরূপণ করা হয়।
বিভিন্ন ক্লাস্টারের চাহিদার ভিত্তিতে ক্লাস্টারভিত্তিক উদ্যোক্তাদের প্রশিক্ষণ প্রদান, স্বল্প সুদে অর্থায়ন, নতুন উদ্যোক্তা তৈরি ইত্যাদি কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। এছাড়াও, নারী উদ্যোক্তাদের জন্য তিনটি বিশেষায়িত ঋণ কর্মসূচি-গুণবতী, সুকন্যা এবং নীলিমা চলমান রয়েছে।
মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেডের মাধ্যমে পরিচালিত এমটিবি-গুণবতী ঋণ প্রকল্পের মাধ্যমে সারাদেশের উৎপাদন ও সেবা খাতের ব্যবসার সাথে জড়িত যেকোন নারী উৎদ্যোক্তা এ ঋণ সুবিধা পেতে পারেন। এমটিবি গুণবতী ঋণ প্রকল্পের আওতায় উদ্যোক্তাদের মধ্যে ঋণ বিতরণ চলমান রয়েছে।
ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেডের মাধ্যমে পরিচালিত ট্রাস্ট সুকন্যা ঋণ প্রকল্পের মাধ্যমে যশোর ও পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের বুটিক ও সূচীঁ শিল্প ব্যবসার সাথে জড়িত ১৯৯ জন উদ্যোক্তার মধ্যে ৯% সুদে জামানতবিহীন ঋণ বিতরণ করা হয়েছে।
ব্যাংক এশিয়া লিঃ এর মাধ্যমে পরিচালিত ব্যাংক এশিয়া-নীলিমা ঋণ প্রকল্পের মাধ্যমে সারাদেশের (ঢাকা ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ব্যতিত) উৎপাদন ও সেবা খাতের ব্যবসার সাথে জড়িত যেকোন নারী উৎদ্যোক্তা এ ঋণ সুবিধা পেতে পারেন। প্রকল্পের আওতায় উদ্যোক্তাদের মধ্যে ঋণ বিতরণ চলমান রয়েছে।
এসএমই ফাউন্ডেশনের অংশীদার আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা বর্তমানে ১১টি। এগুলো হলো- মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিঃ, এনসিসি ব্যাংক লিঃ, ইস্টার্ন ব্যাংক লিঃ, ট্রাস্ট ব্যাংক লিঃ, ব্যাংক এশিয়া লিঃ, ঢাকা ব্যাংক লিঃ, মাইডাস ফাইন্যান্সিং লিঃ, আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিঃ, এনআরবি ব্যাংক লিঃ, সাউথইস্ট ব্যাংক লিঃ, ব্র্যাক ব্যাংক লিঃ।
মূলতঃ নির্বাচিত ব্যাংক ও নন-ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে এই সকল ঋণ প্রদান করা হয়; ফাউন্ডেশন হতে সরাসরি কোন ঋণ প্রদান করা হয়না। এছাড়া এসএমই খাতে অর্থায়ন বৃদ্ধিকল্পে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে বিভিন্ন বিভাগীয় বা জেলা শহরে নিয়মিতভাবে এসএমই ঋণ মেলা (ফাইন্যান্সিং ফেয়ার), ব্যাংকার-উদ্যোক্তা সম্মেলন, সেমিনার, ঋণ সম্পর্কিত ম্যাচমেকিং, ব্যাংকারদের প্রশিক্ষণ ইত্যাদি কর্মসূচি আয়োজন করা হয়।
সম্প্রতি ভারতের নয়াদিল্লীতে অনুষ্ঠিত ২১তম আন্তর্জাতিক ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প সম্মেলন-এ শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেন, বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও বাংলাদেশে ক্ষুদ্র ও মাঝারী শিল্পের প্রসার ঘটছে। মোট কর্মসংস্থানের ৮০ থেকে ৮৫ভাগই হয়ে থাকে ক্ষুদ্র ও মাঝারী শিল্পে।
বর্তমান সরকার বাংলাদেশের এসএমইখাতে ভ্যালু চেইন উন্নয়নের মাধ্যমে জাতীয় প্রবৃদ্ধি ও কর্মসংস্থান বৃদ্ধির কৌশল গ্রহণ করেছে তিনি বলেন, এসএমই শিল্পখাত জিডিপি প্রবৃদ্ধির শতকরা ২৫ ভাগ, শিল্প কর্মসংস্থানের শতকরা প্রায় ৮৫ ভাগ এবং গৃহস্থালি আয়ের শতকরা ৭৫ ভাগ যোগান দিয়ে থাকে।
শিল্পমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে এসএমইখাত মূল চালিকাশক্তি হিসেবে অবদান রাখছে। বর্তমানে বাংলাদেশে প্রায় ১০ লাখ ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প রয়েছে, যেগুলো জিডিপি প্রবৃদ্ধি, কর্মসংস্থান ও দারিদ্র্য বিমোচনে ভূমিকা রাখছে। দেশের শিল্প উদ্যোগ ও ব্যবসার প্রায় শতকরা ৯০ ভাগ এসএমই খাতের আওতাভুক্ত।