ঢাকা, শুক্রুবার, এপ্রিল ২০, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

প্রধানমন্ত্রী : বাণিজ্য ব্যবস্থাকে অধিকতর টেকসই করতে কমনওয়েলথের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান * নীল অর্থনীতির সুফল পেতে প্রযুক্তি ও গবেষণা বিনিময়ের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর * প্রত্যাশা পূরণে চাই কমনওয়েলথ সংস্কার : প্রধানমন্ত্রী   |   প্রধানমন্ত্রী : রোহিঙ্গা সংকট মোকাবেলায় শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসা করলেন জাস্টিন ট্রুডো * ব্রিটেনের রাণী এলিজাবেথের ২৫তম সিএইচওজিএম উদ্বোধন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর যোগদান * লন্ডনে প্রধানমন্ত্রীর ১৩ গুরুত্বপূর্ণ ফাইলে স্বাক্ষর   |    জাতীয় সংবাদ : দেশের প্রয়োজন সৎ ব্যবসায়ী উদ্যোক্তা : তথ্যমন্ত্রী * প্রবাসীদের ভোটার করার ক্ষেত্রে দ্বৈত নাগরিকত্ব প্রধান সমস্যা : সিইসি * মৌলভীবাজারে আগর শিল্পপার্ক স্থাপন করা হবে : আমু   |   রাষ্ট্রপতি : পাঁচটি বিলে রাষ্ট্রপতির সম্মতি   |    অর্থনীতি : অর্থবছরের প্রথম ৮ মাসে যুক্তরাষ্ট্রে রফতানিতে ১.৬২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি * সিএনজি-থ্রী হুইলার্স করের আওতায় আসছে   |    জাতীয় সংবাদ : উৎসব কেন্দ্রিক পর্যটন গড়ে তোলা এখন সময়ের দাবি : বিমান ও পর্যটনমন্ত্রী * এক মাসের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা শুরু : মোজাম্মেল হক * ২০২০ সালের মধ্যে দেশের বনাঞ্চল ২০ শতাংশে উন্নীত করা হবে   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : আর্মেনিয়ায় সরকার বিরোধী বিক্ষোভকারী আটক   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : রাসায়নিক অস্ত্র বিশেষজ্ঞদের নিরাপত্তা বিষয়ে সিরিয়া ও রাশিয়ার সাথে জাতিসংঘের আলোচনা * ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিকম্পে ২ জনের মৃত্যু, আহত ২১ *উ.কোরিয়ায় আটক জাপানী নাগরিকদের দেশে ফিরিয়ে আনতে সহযোগিতার অঙ্গীকার ট্রাম্পের   |   খেলাধুলার সংবাদ : শনিবার শুরু হচ্ছে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক ভলিবল *আইপিএল : রানার অলরাউন্ড নৈপুণ্যে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠলো কলকাতা    |    বিভাগীয় সংবাদ : বানিয়াচংয়ে বাস খাদে, আহত ১০ * জয়পুরহাটে শিশু খাদ্য আইন ও বিধিমালা বিষয়ক অবহিতকরণ সভা *ভোলায় ভুট্টার বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা * নকলায় কৃষি ইকোপার্ক গড়ে উঠেছে   |   

হালাল শিল্পের বিকাশ ঘটিয়ে বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা আয় সম্ভব : আমু

ঢাকা, ১৯ জুন ২০১৭ (বাসস) : অভ্যন্তরীণ চাহিদা পূরণের পাশাপাশি হালাল খাদ্য ও পর্যটন শিল্পের বিকাশ ঘটিয়ে বিপুল পরিমাণে বৈদেশিক মুদ্রা আয় করা সম্ভব বলে মন্তব্য করেছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।
তিনি বলেন, হালাল শিল্প বিশ্বব্যাপী একটি উদীয়মান শিল্পখাত। নিরাপদ ও স্বাস্থ্যসম্মত হওয়ায় জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে বিশ্বব্যাপী হালাল খাদ্য ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে ওঠছে। মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশ হালাল খাদ্য ও পর্যটন শিল্পের বিকাশ ঘটিয়ে বিশ্ববাজারে রপ্তানি বাড়াতে পারে।
শিল্পমন্ত্রী রোববার ঢাকায় বাংলাদেশ হালাল এক্সপো-২০১৭ এর সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ মন্তব্য করেন। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে রাজধানীর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ প্রাঙ্গণে তিন দিনব্যাপী এ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়।
ইসলামিক ফউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে প্রতিষ্ঠানের সাবেক পরিচালক আবু হেনা মোস্তফা কামাল বক্তব্য রাখেন।
শিল্পমন্ত্রী বলেন, হালাল শিল্প এখন বিশ্ব ইসলামিক অর্থনীতির গুরুত্বপূর্ণ অনুসঙ্গে পরিণত হয়েছে। ২০১৪ সালে বিশ্বে হালাল শিল্পের পরিমাণ ছিল ৭শ ৯৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। বর্তমানে প্রতিবছর হালাল খাদ্য ও পণ্যের চাহিদা ১০.৮ শতাংশ হারে বাড়ছে। ২০১৯ সাল নাগাদ বিশ্বে হালাল শিল্পের পরিমাণ ৩.৭ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলারে উন্নীত হবে। হালাল খাদ্যের মত বিশ্বে হালাল পর্যটন শিল্পখাতও দ্রুত বিকশিত হচ্ছে। বর্তমানে বিশ্ব পর্যটন শিল্পখাতের শতকরা ১১.৬ ভাগ হালাল পর্যটন শিল্পের আওতাভূক্ত। ২০১৯ সাল নাগাদ এ শিল্প ২শ ৩৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে উন্নীত হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
শিল্পমন্ত্রী বলেন, খাদ্য নিরাপত্তা জোরদারে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের অনুকরণীয় মডেল। কৃষি উৎপাদনে বাংলাদেশ ইতোমধ্যে ব্যাপক সাফল্য অর্জন করেছে। সবজি উৎপাদনে বাংলাদেশ বর্তমানে বিশ্বে তৃতীয় এবং চাল, মিঠে পানির মাছ ও ছাগল উৎপাদনে চতুর্থ স্থানে রয়েছে। তৈরি পোশাকের পর বাংলাদেশ রপ্তানি পণ্য বহুমুুখীকরণ ও রপ্তানির জন্য নতুন বাজার খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে। এ লক্ষ্যে উদ্যোক্তাদের নগদ প্রণোদনাসহ সরকারি নীতিসহায়তা জোরদার করা হয়েছে। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে তিনি রপ্তানিমুখী হালাল খাদ্য ও পর্যটন শিল্প গড়ে তুলতে তরুণ উদ্যোক্তাদের প্রতি আহবান জানান।
ইসলামিক ফাউন্ডেশন ২০০৭ সাল থেকে হালাল সনদ বিভাগ চালু করেছে। এর আওতায় এ পর্যন্ত বাংলাদেশে উৎপাদিত শতাধিক খাদ্য, ভোগ্য পণ্য, প্রসাধন সামগ্রী, ফার্মাসিউটিক্যাল ও অন্যান্য পণ্যের অনুকূলে হালাল সনদ ইস্যু করা হয়েছে।
তিন দিনব্যাপী এ প্রদর্শনীতে হালাল সনদপ্রাপ্ত ১৬টি খাদ্য ও পণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। বাংলাদেশে প্রথমবারের মত আয়োজিত এ প্রদর্শনী হালাল খাদ্যের পরিচিতি বৃদ্ধির পাশাপাশি বাজার প্রসারে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে।