ঢাকা, বুধবার, জানুয়ারী ১৭, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

বিনোদন ও শিল্পকলা : বাচ্চাদের বই পড়ায় আগ্রহী করে তুলতে হবে : সংস্কৃতি মন্ত্রী   |    জাতীয় সংবাদ : আতিকুল ইসলাম ঢাকা উত্তর সিটি কার্পোরেশন উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী * বরেণ্য সঙ্গীতশিল্পী শাম্মী আক্তার আর নেই   |    জাতীয় সংবাদ : বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় উচ্চ শিক্ষায় নতুন মাত্রা যোগ করেছে : শিক্ষামন্ত্রী * সুন্দরবন অঞ্চল নিরাপদ রাখতে আরো ৪টি র‌্যাব ক্যাম্প স্থাপন করা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী * ঝড়-বৃষ্টির মৌসুমে স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা ঝুঁকিতে ৫ লক্ষাধিক রোহিঙ্গা শিশু : ইউনিসেফ   |   জাতীয় সংসদ : একই পরিবারের চারজন পরিচালক রাখার বিধান করে সংসদে ব্যাংক কোম্পানী সংশোধন বিল পাস * বিচারাধীন মামলা দ্রুত নিষ্পত্তিতে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে : আইনমন্ত্রী * সরকারি শূন্য পদ দ্রুত পূরণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে : জন প্রশাসন মন্ত্রী   |   প্রধানমন্ত্রী : প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ উন্নয়ন ফোরামের উদ্বোধন করবেন আগামীকাল * একনেকে ১৪ প্রকল্প অনুমোদন : তিন হাজার বিদ্যালয়ে একাডেমিক ভবন নির্মাণ করা হবে * আবুল খায়েরের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক   |   বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি : ঢাকা শহরের ছাদ ব্যবহার করে ১ হাজার মেগাওয়াট সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদন সম্ভব : নসরুল হামিদ   |    অর্থনীতি : নওগাঁয় রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের ৬ মাসে ৯২ কোটি ৩০ লাখ টাকার ঋণ বিতরণ    |    জাতীয় সংবাদ : এই অঞ্চলের স্বাধীনতার নেতাদের হত্যার কারণ খুুঁজে বের করতে হবে : প্রণব মুখোপাধ্যায় * ২ বছরের মধ্যে রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তন সম্পন্নে রূপরেখা চূড়ান্ত * ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলা : আরো দুই আসামীর পক্ষে যুক্তিতর্ক পেশ    |   খেলাধুলার সংবাদ : পুলিশ বর্ষসেরা খেলোয়াড় দ্বীন ইসলাম, লতা পারভীন ও আকলিমা *মাঠে খারাপ আচরণের জন্য কোহলিকে জরিমানা   |   শিক্ষা : বাংলাদেশের জন্মের পেছনে ঢাবির অবদান রয়েছে : ঢাবি উপাচার্য   |    বিভাগীয় সংবাদ : জয়পুরহাটে বোরো ধানের চারা রক্ষা করতে পলিথিনে ঢেকে রাখার পরামর্শ * নীলফামারীতে কৃষক নেমেছে বোরো আবাদের মাঠে : লক্ষ্যমাত্রা ৮৪ হাজার হেক্টর জমি   |   আবহাওয়া : আগামীকাল থেকে দক্ষিণাঞ্চলের শৈতপ্রবাহ কেটে যেতে পারে   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : ট্রানজিট বিষয়ে সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ার মধ্যে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি স্বাক্ষর * আফগানিস্তানে আইএসের ২১ যোদ্ধা নিহত * জাপানের জলসীমায় ভেসে আসা নৌকা থেকে ৮ জনের লাশ উদ্ধার * লিবিয়ার পশ্চিম উপকূল থেকে অবৈধ ৩৬০ শরণার্থী উদ্ধার   |   

পিরোজপুর বধ্যভূমি : গড়ে প্রতিদিন ২৫ জন করে মানুষ হত্যা করে কর্ণেল আতিকের বাহিনী

পিরোজপুর, ২২ ডিসেম্বর ২০১৫ (বাসস) : একাত্তরে পাঁচ হাজারেরও বেশি মুক্তিকামী নারী-পুরুষ হত্যা আর নির্মম নির্যাতনের নীরব সাক্ষী পিরোজপুর শহরের শেষপ্রান্তে অবস্থিত খরস্রোতা বলেশ্বর নদের বধ্যভূমি।
একাত্তরের ৩ মে থেকে ৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত ২১৭ দিনে গড়ে প্রতিদিন এই বধ্যভূমিতে ২৫ জন করে মানুষ হত্যা করে পাকিস্তানী দখলদার কর্ণেল আতিকের বাহিনী।
প্রয়াত জনপ্রিয় ঔপন্যাসিক হুমায়ন আহম্মেদ এবং অধ্যাপক ও লেখক ডঃ জাফর ইকবালের পিতা সে সময়কার পিরোজপুর মহকুমা পুলিশ প্রধান ফয়জুর রহমান আহম্মেদকেও এই বধ্যভূমিতেই হত্যা করে পাকবাহিনী।
মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক এ্যাডভোকেট এম এ মান্নান জানান, বলেশ্বর ঘাটের এই বধ্যভূমিতে কম করে হলেও ৫ সহস্রাধিক নারী-পুরুষ-তরুণ-তরুণীকে হত্যা করা হয়।
এছাড়া, বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা ও মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গ্রন্থের তথ্য এবং সে সময়কার স্থানীয় জনগণের ভাষ্য অনুযায়ী,পিরোজপুরের ৯ থানা সদরে ৯টি বধ্যভূমি ছাড়াও মহকুমায় প্রায় শতাধিক বধ্যভূমি ও গণহত্যার স্মৃতি চিহ্ন রয়েছে। এসব স্থানে প্রায় ৩৫ হাজার মুক্তিকামী নারী-পুরুষকে হত্যা করা হয়। স্বরূপকাঠীর বরছাকাঠী, শর্র্ষিনা, গাবতলা, অলংকারকাঠী, ছৈলাবুনিয়া, বাঁশতলা, খালিয়া, গুয়ারেখা, গনকপাড়া, দৈহারী, করফা এবং বলদিয়ায় পিরোজপুরের হুলারহাট, তেজদাসকাঠী, সিকদার মল্লিক, জুজখোলা কাউখালীর লঞ্চ টার্মিনাল, আমড়াঝুড়ি, দাসেরকাঠী, কাঁঠালিয়া, নাজিরপুরের পাজরাপাড়া, গাবতলা, শ্রীরামকাঠী, দীর্ঘা এবং মাটিভাঙ্গা, মঠবাড়িয়ার সাপলেজা, সূর্যমনি, নলী এবং ভান্ডারিয়ার পশারীবুনিয়া সবচেয়ে বেশী মানুষ হত্যা করা হয়।
বলেশ্বর নদের ওপারের নিভৃত পল্লী হোগলাবুনিয়া ও চিংড়াখালী গ্রামের বাসিন্দারা সন্ধ্যা হলেই গুলির শব্দ গণনা করে পরদিন ভাসমান লাশের সংখ্যা মিলিয়ে দেখতে পেত, রাতের ছোঁড়া গুলি আর মৃতদেহের সংখ্যা নির্ভুলভাবে মিলে গেছে ।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের পর বঙ্গবন্ধুরই নির্দেশে ১০ মার্চ পিরোজপুরে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে মহকুমা সংগ্রাম পরিষদ গঠন করা হয়েছিল । প্রতিটি থানায় এবং গ্রামেও সংগ্রাম পরিষদ গঠিত হয়েছিল। এই সংগ্রাম পরিষদের নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধারা বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতা ঘোষণার পর ৪০ দিন পর্যন্ত পিরোজপুরের আকাশে স্বাধীন বাংলার পতাকা উড্ডীয়মান রাখতে সক্ষম হয়েছিল। অবশেষে ৩ মে বরিশাল থেকে গানবোট বোঝাই ৩২ পাঞ্জাব রেজিমেন্টের ৪ প্লাটুন পাকিস্তানী সৈন্য এসে পিরোজপুর শহর দখল করেই শুরু করে গণহত্যা, নারী নির্যাতন, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাট।
বলেশ্বর নদের খেয়াঘাটের ২৮ ফুট দীর্ঘ এবং ৮ ফুট প্রশস্ত পাকা সিঁড়িটিতে শতাধিক মানুষ হত্যা করে খুনের সূচনা করে। ৪ মে স্বরূপকাঠী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী সামসুল হকসহ ৬০ জনকে এবং ৫ মে মহকুমা প্রশাসক আব্দুর রাজ্জাক, প্রথম শ্রেণীর ম্যাজিষ্ট্রেট সাঈফ মিজানুর রহমান, মহকুমা পুলিশ প্রধান ফয়জুর রহমান আহম্মেদ (প্রয়াত উপন্যাসিক হুমায়ন আহম্মেদ ও ডঃ জাফর ইকবালের পিতা) মহকুমা দুর্নীতি দমন কর্মকর্তা হিরেন্দ্র মহাজন সহ অর্ধশতাধিক সরকারি কর্মকর্তা ও সাধারণ মানুষকে এখানে হত্যা করা হয়। ৮ মে হত্যা করা হয় যশোর শিক্ষা বোর্ড থেকে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যামিক পরীক্ষায় মেধা তালিকায় প্রথম স্থান অর্জন করা মঠবাড়িয়ার গণপতি হালদার সহ ১০ মেধাবী ছাত্রকে।
পিরোজপুর শহরতলীর আলমকাঠী গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান জানান, পাকিস্তানের এদেশীয় দোসর রাজাকার বাহিনী তাকে ধরিয়ে দেয়ার পর নির্মম নির্যাতন শেষে বলেশ্বরের পারে নিয়ে গুলি করে। এসময় তিনি অলৌকিকভাবে পালিয়ে প্রাণে বাঁচাতে সক্ষম হন।
তিনি বলেন, বলেশ্বরের বধ্যভূমিতে রাতের বেলা আমার হাত পিছনে বেধে গুলি করার সময় আমি পিছন দিকে লাফ দিয়ে বলেশ্বর নদের পানিতে পড়ি। ঘুটঘুটে অন্ধকারে ডুবসাতার কেটে কিছুদুর গিয়ে ভেসে উঠেই ভাসমান লাশের সন্ধান পাই। এই লাশ জড়িয়ে ধরে অনেকটা পথ সাঁতরিয়ে চরের একটি জঙ্গলে পালিয়ে থাকি।
বধ্যভূমির অদূরের বাসিন্দা আব্দুল বারেক সেসব দিনের স্মৃতিচারণে বলেন, সন্ধ্যা হলেই ঘরের বাতি নিভিয়ে বেড়ার ফাঁক দিয়ে তাকিয়ে দেখতে পেতাম চোখ বেঁধে- হাত বেঁধে স্বাধীনতাপ্রিয় মানুষদের কর্ডন করে বধ্যভূমিতে নিয়ে যাচ্ছে রাজাকাররা।
তিনি মর্মস্পর্শী বর্ণনায় জানান,দিনের বেলা বলেশ্বর নদের আকাশ শত শত শকুনে ছেয়ে যেত । নদের দুধারের চরে আটকে থাকা মানুষের লাশ দিনে কুকুরে আর রাতে শিয়ালেরা ছিঁড়ে ছিঁড়ে খেত। সে দৃশ্য যে দেখেছে, কোনদিনও ভুলতে পারবে না।
দেশ স্বাধীন হবার পরে বলেশ্বর নদের বধ্যভূমিতে শহীদদের স্মরণে স্মৃতিসৌধ নির্মাণ করা হয়েছে।