ঢাকা, বুধবার, জানুয়ারী ১৭, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

প্রধানমন্ত্রী : উন্নত দেশগুলোকে বাংলাদেশের পাশে দাঁড়ানোর আহবান প্রধানমন্ত্রীর   |   আবহাওয়া : দেশের কিছু স্থানে শৈত্যপ্রবাহ কমবে   |   খেলাধুলার সংবাদ : জুনে ব্যাঙ্গালুরুতে ইতিহাসের প্রথম টেস্ট খেলবে আফগানিস্তান * মিরপুর স্টেডিয়ামের শততম ওয়ানডে ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টস জিতে ফিল্ডিং-এ শ্রীলংকা   |    জাতীয় সংবাদ : ঢাকা উত্তর সিটির উপ-নির্বাচন স্থগিত * নবম ওয়েজ বোর্ডে সাংবাদিকদের স্বার্থ গুরুত্ব পাবে: তারানা হালিম * আপিল শুনানির কার্যতালিকায় যুদ্ধাপরাধী আজহার-কায়সার-সুবহানের মামলা   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : ফিলিস্তিনের জন্য জাতিসংঘ সংস্থা থেকে বরাদ্দকৃত অর্থ প্রত্যাহার যুক্তরাষ্ট্রের * মিয়ানমারে রাখাইন বৌদ্ধদের ওপর পুলিশের হামলা ॥ নিহত ৭ * পেরুর সাবেক প্রেসিডেন্টের হাসপাতাল ত্যাগ * মেক্সিকোয় গণকবর থেকে ৩২টি লাশ উদ্ধার    |   

অপারেশন ওমেগা : বিদেশী বন্ধুদের ত্যাগ ও বীরত্বের গল্প

ঢাকা, ৬ ডিসেম্বর ২০১৫ (বাসস) : ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশের (তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান বা পূর্ব বাংলা) নিরিহ, নিরপরাধ মানুষের আর্তনাদে কোন কোন দেশ কান না দিয়ে আঞ্চলিক রাজনীতি ও লাভ-ক্ষতির হিসাব-নিকাশ করছিল, তখন দূর থেকে একদল সাহসি মানুষ তাদেরকে রক্ষার লক্ষ্যে অপারেশন ওমেগা নামে একটি স্বেচ্ছাসেবি সংগঠন গঠন করে।
এফওআর- এর একজন ফেলো রেনে ওয়াডল তার লেখা একটি নিবন্ধে লিখেছেন সেইসময়কার একটি ইংরেজি সংবাদপত্র পিস নিউজ এর সম্পাদক ও পাঠকরা অপারেশন ওমেগা গঠন করেন।
এদের অধিকাংশই যুদ্ধ বিরোধী সংগঠন ওয়ার রেজিটারস ইন্টারন্যাশনাল (ডব্লিউআরআই) এর সাথে জড়িত ছিলেন। কয়েকজন জড়িত ছিলেন ইংলিশ ফেলোশিপ অব রিকনশিলিয়েশন এর সাথে। আর নামটি নেয়া হয়েছিল ফরাসি জেসুইট পিয়েরে টেইলহার্ড দ্য চ্যার্ড-এর লেখনি থেকে। এখানে ওমেগা এমন একটি শক্তির প্রতীক যা মানবতাকে সর্বোচ্চ গূরুত্ব দেয়।
এই সংগঠনের মূল উদ্দেশ্য ছিল তৎকালিন যুদ্ধবিধ্বস্ত পূর্ব বাংলায় সাধারন জনগনের কাছে সহায়তা পৌঁছানোর ক্ষেত্রে দখলদার পাকিস্তান সেনাবাহিনী যে কৃত্রিম, অপ্রয়োজনীয় ও অনৈতিক প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছিল তা ভেঙ্গে ফেলা।
এরই সূত্র ধরে ওই দলে চারজন সদস্য- বেন ক্রো, জয়সে কেনিওয়েল, ক্রিস প্র্যাট ও ড্যান ডিউ এবং তাদের দুইটি গাড়ি পূর্ব পাকিস্তানের ভিতরে প্রবেশ করে একটি গূরুত্বপূর্ন ক্রসিং পয়েন্ট অতিক্রম করার সময় পাকিস্তান বাহিনীর হাতে আটক হন।
এক পর্যায়ে বন্দী অবস্থায় এই স্বেচ্ছাসেবিরা টানা ৫ দিন অনশন ধর্মঘট করেন। তাদেরকে তৎকালিন ব্রিটিশ হাইকমিশনের দ্বিতীয় সচিব পরামর্শ দিয়েছিলেন যাতে তারা দোষ স্বীকার করে ক্ষমা চান এবং পুনরায় এ ধরনের কাজ করবেন না- এই মর্মে প্রতিজ্ঞা করেন। কিন্তু এই স্বেচ্ছাসেবিরা এ প্রস্তাবে সাড়া দেননি। বরং এই বলে প্রত্যাখ্যান করেন যে, তারা নৈতিকভাবে কোন ভুল করেননি এবং ওই শাসকগোষ্ঠিকে তারা বৈধ বলে স্বীকার করেন না।
এ ব্যাপারে ১ অক্টোবর ১৯৭১ তারিখে লন্ডনের দ্য হ্যাম্পস্টেড ও হাইগেট এক্সপ্রেস- এর সম্পাদকীয়র শিরোনাম ছিল ভলেনটিয়ারস হু রিস্ক অল টু সেইভ লাইভস ইন বাংলাদেশ।
উল্লেখ্য, ওই সময় শুধুমাত্র অপারেশন ওমেগার মাধ্যমে তৎকালীন বাংলাদেশে (পূর্ব পাকিস্তানে) সরাসরি জনগনের কাছে সরাসরি ত্রান পৌঁছে দিয়েছিল। লন্ডনের কিংস ক্রসে ছিল এর অফিস।
ওই সম্পাদকীয়তে লেখা হয়, ওমেগা টিমের একজন সদস্য- সাবেক ক্যামডেন ট্রাফিক ইঞ্জিনিয়ার বেন ক্রো (২৩) পশ্চিম পাকিস্তানের কারাগারে ১১ দিন বন্দী থাকার পর গত সপ্তাহে লন্ডনে ফিরে এসেছে। বেন জানান, তাকে বলা হয়েছে ২০ লাখ মানুষ নিহত হয়েছেন (পূর্ব পাকিস্তানের)। কারাগারে বহু নারী ও শিশু বন্দী রয়েছে যাদের স্বামী ও বাবাকে বাংলাদেশ সমর্থন করার জন্য গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।
ব্রিটিশ পত্রিকার সম্পাদকীয়তে বলা হয়, যদিও এই চারজন ধরা পড়েছেন, কিন্তু আরেকটি ওমেগা টিম বাংলাদেশে প্রবেশ করে সাফল্যের সাথে তাবু, উচ্চমানের আমিষযুক্ত বিস্কুট, চাল ও অন্যান্য সামগ্রি বিতরন করে- যা একহাজার লোকের তিনদিন চলার জন্য যথেষ্ট। এছাড়াও তারা সাতশ মানুষের মধ্যে পরিধেয় কাপড় বিতরন করেন।
প্রতিবেদনে বলা হয়, আরেকটি ওমেগা টিম সম্প্রতি (অক্টোবর ১৯৭১) সহায়তা সামগ্রি সংগ্রহের জন্য ইউরোপে গেছে। দলটি হল্যান্ড ও জার্মানিতে গেছে।
এই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, যেসব অনুদান পাওয়া গেছে তার অধিকাংশই ২০ পাউন্ডের কম। কিন্তু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বন্দী এক ব্যক্তির কাছ থেকে পাঁচহাজার ডলারের একটি চেক পাওয়া গেছে, যিনি ভিয়েতনাম যুদ্ধে যেতে অস্বীকার করেছিলেন।