ঢাকা, শনিবার, এপ্রিল ২১, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

জাতীয় সংবাদ : সাইবার অপরাধের বিরুদ্ধে কমনওয়েলথের দৃঢ় অবস্থান   |    জাতীয় সংবাদ : প্রধানমন্ত্রী দেশে ফেরার পরই মহার্ঘ্য ভাতা সম্পর্কিত প্রজ্ঞাপন : ইনু * বিসিএসআইআর মডেল রাস্তা নির্মাণে জাপানের টুইস্টার টেকনোলজি ব্যবহার করবে * জাতিসংঘের ৫৪টি শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশের ১ লাখ ৫৬ হাজার ৩২৮ জন শান্তিরক্ষীর অংশ গ্রহণ   |   খেলাধুলার সংবাদ : ইংল্যান্ডের নির্বাচক হিসেবে নিয়োগ পেলেন সাবেক ব্যাটসম্যান স্মিথ *ওয়েস্ট ইন্ডিজ, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দিবা-রাত্রির টেস্ট খেলবে না ভারত * ওয়েঙ্গারের উত্তরসূরী হিসেবে পাঁচজনকে বিবেচনা করা হচ্ছে * ওয়াটসনের সেঞ্চুরিতে জয়ের ধারায় ফিরলো চেন্নাই   |   আবহাওয়া : দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে   |    বিভাগীয় সংবাদ : মেহেরপুরের মোমিনুলের আর্সেনিকমুক্ত প্লান্ট আবিস্কার *পিরোজপুর আধুনিক কারাগারের নির্মাণ কাজ এগিয়ে চলছে    |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : উ. কোরিয়ার প্রতিশ্রুতিতে সন্তুষ্ট নয় জাপান *সিনেট প্যানেলে প্রত্যাখ্যাত হতে পারেন পম্পেও * অশালীন ভিডিও : সৌদি আরবে বন্ধ করে দেয়া হলো নারী শরীরচর্চা কেন্দ্র *পারমাণবিক অস্ত্র নিরস্ত্রীকরণ প্রশ্নে ইতিবাচক পদক্ষেপ উ.কোরিয়ার   |   

বিজয় : প্রবাসী বাংলাদেশ সরকারের মুক্ত ঢাকায় অবতরণ

ঢাকা, ২১ ডিসেম্বর, ২০১৪ (বাসস) : ১৯৭১ সালের ২২ ডিসেম্বর প্রবাসী বাংলাদেশ সরকারের সদস্যরা ঢাকায় আসলে তেজগাঁও বিমানবন্দরে তাদের বিপুল সংবর্ধনা দেয়া হয়।
এই দলে ছিলেন অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমেদ এবং কেবিনেটের অন্যান্য সদস্যবৃন্দ।
এসময় সৈয়দ নজরুল ইসলামের পরনে ছিল সাদা পাজামা ও পাঞ্জাবী। আর তাজউদ্দিনের পরনে যুদ্ধের পোশাক।
নেতাদের অভ্যর্থনা জানাতে আসা বিপুল জনতাকে সামলাতে নিরাপত্তারক্ষীদের চরম বেগ পেতে হয়। একসময় নিরাপত্তা বেষ্টনী ভেদ করে তারা নেতাদের কাছে চলে যায়। জনতা জয় বাংলা ও জয় বঙ্গবন্ধু স্লোগানে বিমানবন্দর মুখরিত করে তোলে।
এরপর মোটর শোভাযাত্রা করে নেতারা বিমানবন্দর ত্যাগ করেন। রাস্তার দুই পাশে হাজার হাজার উৎসুক লোক তাদের হাততুলে ও স্লোগান দিয়ে অভ্যর্থনা জানান। তারাও হাততুলে এর সাড়া দেন। এদিকে পাকিস্তানে জুলফিকার আলী ভুট্টো এক ঘোষণায় বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে কারাগার থেকে সরিয়ে গৃহবন্দী রাখা হবে। উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের ১৭ ডিসেম্বর জুলফিকার আলী ভুট্টো পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট এবং আকস্মিকভাবে প্রধান সামরিক প্রশাসন নিযুক্ত হন।
এদিকে নিউইয়র্কে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে যুদ্ধবিরতি সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব গৃহীত হয়। এর পক্ষে ১৩ ভোট পড়ে। বিরুদ্ধে কেউ ভোট দেয়নি। ভোটদানে বিরত থাকে সোভিয়েত ইউনিয়ন ও পোল্যান্ড।
এদিকে ঢাকায় ভারতীয় সৈন্যরা বাঙ্গালীদের বিরুদ্ধে হত্যাকা-ে জড়িতদের ব্যাপারে তদন্ত শুরু করে। এতে দেখা যায়, একজন জেনারেল, একজন ব্রিগেডিয়ার, ২ জন কর্নেল, ২ জন মেজর ও একজন ক্যাপ্টেন সরাসরি এই হত্যাকা-ের সঙ্গে জড়িত। আরেক তালিকায় আরো ১২ জনের নাম উল্লেখ করা হয়।