ঢাকা, বুধবার, জানুয়ারী ১৭, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

বিনোদন ও শিল্পকলা : বাচ্চাদের বই পড়ায় আগ্রহী করে তুলতে হবে : সংস্কৃতি মন্ত্রী   |    জাতীয় সংবাদ : আতিকুল ইসলাম ঢাকা উত্তর সিটি কার্পোরেশন উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী * বরেণ্য সঙ্গীতশিল্পী শাম্মী আক্তার আর নেই   |    জাতীয় সংবাদ : বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় উচ্চ শিক্ষায় নতুন মাত্রা যোগ করেছে : শিক্ষামন্ত্রী * সুন্দরবন অঞ্চল নিরাপদ রাখতে আরো ৪টি র‌্যাব ক্যাম্প স্থাপন করা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী * ঝড়-বৃষ্টির মৌসুমে স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা ঝুঁকিতে ৫ লক্ষাধিক রোহিঙ্গা শিশু : ইউনিসেফ   |   জাতীয় সংসদ : একই পরিবারের চারজন পরিচালক রাখার বিধান করে সংসদে ব্যাংক কোম্পানী সংশোধন বিল পাস * বিচারাধীন মামলা দ্রুত নিষ্পত্তিতে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে : আইনমন্ত্রী * সরকারি শূন্য পদ দ্রুত পূরণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে : জন প্রশাসন মন্ত্রী   |   প্রধানমন্ত্রী : প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ উন্নয়ন ফোরামের উদ্বোধন করবেন আগামীকাল * একনেকে ১৪ প্রকল্প অনুমোদন : তিন হাজার বিদ্যালয়ে একাডেমিক ভবন নির্মাণ করা হবে * আবুল খায়েরের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক   |   বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি : ঢাকা শহরের ছাদ ব্যবহার করে ১ হাজার মেগাওয়াট সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদন সম্ভব : নসরুল হামিদ   |    অর্থনীতি : নওগাঁয় রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের ৬ মাসে ৯২ কোটি ৩০ লাখ টাকার ঋণ বিতরণ    |    জাতীয় সংবাদ : এই অঞ্চলের স্বাধীনতার নেতাদের হত্যার কারণ খুুঁজে বের করতে হবে : প্রণব মুখোপাধ্যায় * ২ বছরের মধ্যে রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তন সম্পন্নে রূপরেখা চূড়ান্ত * ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলা : আরো দুই আসামীর পক্ষে যুক্তিতর্ক পেশ    |   খেলাধুলার সংবাদ : পুলিশ বর্ষসেরা খেলোয়াড় দ্বীন ইসলাম, লতা পারভীন ও আকলিমা *মাঠে খারাপ আচরণের জন্য কোহলিকে জরিমানা   |   শিক্ষা : বাংলাদেশের জন্মের পেছনে ঢাবির অবদান রয়েছে : ঢাবি উপাচার্য   |    বিভাগীয় সংবাদ : জয়পুরহাটে বোরো ধানের চারা রক্ষা করতে পলিথিনে ঢেকে রাখার পরামর্শ * নীলফামারীতে কৃষক নেমেছে বোরো আবাদের মাঠে : লক্ষ্যমাত্রা ৮৪ হাজার হেক্টর জমি   |   আবহাওয়া : আগামীকাল থেকে দক্ষিণাঞ্চলের শৈতপ্রবাহ কেটে যেতে পারে   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : ট্রানজিট বিষয়ে সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ার মধ্যে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি স্বাক্ষর * আফগানিস্তানে আইএসের ২১ যোদ্ধা নিহত * জাপানের জলসীমায় ভেসে আসা নৌকা থেকে ৮ জনের লাশ উদ্ধার * লিবিয়ার পশ্চিম উপকূল থেকে অবৈধ ৩৬০ শরণার্থী উদ্ধার   |   

পাক হানাদার বাহিনীর আত্মসমর্পনের কথা শুনে আমার বাহিনীর কেউ কেউ আকাশে গুলি ছুঁড়েছিল : নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু

॥ সৈয়দ সোহরাব ॥
ঢাকা, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৪ (বাসস) : ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর পাক হানাদার বাহিনীর আত্মসমর্পনের কথা শুনে এতই খুশি হয়েছিলাম যে আমার বাহিনীর কেউ কেউ তখন আকাশে গুলি ছুড়েছিল।
ঢাকা উত্তর মুক্তিবাহিনীর কমান্ডার ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু স্বাধীনতার ৪৩ বছর পর নিয়াজীর আত্মসমর্পন ও বাংলাদেশের বিজয়ের মুহুর্তের স্মৃতিচারণ করলেন এভাবেই।
তিনি বলেন, তখন বয়স ২১। এ বয়সে তারুণ্যের যে উচ্ছ্বাস থাকে, তার সবটাই নিজের অজান্তে একের পর এক বের হয়ে আসছিল। বিজয়ের আনন্দের খবর শোনার পর আমাদের অনেকেরই চোখে জল এসে পড়েছিল। একজন অন্যজনকে ধরে কোলাকোলি করেছি, প্রিয় মাতৃভূমিকে চুমু খেয়েছি, জয়বাংলা স্লোগান দিয়েছি, কেউ শোকরানা নামাজ আদায় করেছে, এমন আরো কত কি যে করেছি।
তিনি বলেন, ওই সময়টায় নিজের চারদিকের সবকিছুকেই সুন্দর ও স্বাধীন মনে হচ্ছিল। আকাশের পাখিটাকেও মনে হচ্ছিল এটা আমার দেশের পাখি, আমার স্বজন। বঙ্গবন্ধুর ডাকে সারা দিয়ে লাখো যুবকের মত আমিও এ স্বাধীনতা অর্জনে অবদান রাখতে পেরেছি এটা ভেবেও তখন নিজেকে বেশ গর্বিত মনে হচ্ছিল।
মহান মুক্তিযুদ্ধের বিজয় দিবসের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু নিজের উচ্ছ্বাস, আনন্দ ও গর্বের কথা বাসসকে জানাতে গিয়ে আরো বলেন, ১৫ ডিসেম্বর বিকালেই সাভার রেডিও স্টেশন থেকে রেডিও পাকিস্তানের খবরে শুনেছিলাম আগামীকাল (১৬ ডিসেম্বর, ১৯৭১) পাক হানাদার বাহিনী আত্মসমর্পন করবে। তখন সাভার রেডিও স্টেশন আমাদের দখলে ছিল।
তিনি বলেন, ১৩ ও ১৪ ডিসেম্বর আমাদের বাহিনী পাক আর্মি ও শান্তি কমিটির বাহিনীর সঙ্গে তুমুল যুদ্ধের মাধ্যমে তাদের পরাজিত করে কালিয়াকৈইর, ধামরাই, সাভার মুক্ত করে। মিরপুর-গাবতলী ব্রিজ পর্যন্ত তখন মুক্ত এলাকা হিসাবে আমাদের নিয়ন্ত্রনে ছিল। তবে আমরা ঢাকায় ঢুকতে পারিনি। এ যুদ্ধে আমার বন্ধু মানিক ও টিটু শহীদ হন।
মুক্তিবাহিনী কমান্ডার বাচ্চু বলেন, ১৬ ডিসেম্বর সকালে জেনারেল নাগরার মাধ্যমে নিশ্চিত হয়েছিলাম আজই পাকিস্তান সেনাবাহিনী আত্মসমর্পন করছে। তখনই মুক্তিযোদ্ধা জামালের নেতৃত্বে একটি টিম গঠন করে তাদের ঢাকায় ঢোকার অর্ডার দিলাম। পরে আমরাও ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিলাম।
তিনি বলেন, আমরা খুব ধীর গতিতে ঢাকায় ঢুকছিলাম। যেন কোন আক্রমণের সম্মুখিন হতে না হয়। এ জন্য গাড়ির হেডলাইট বন্ধ করে এগুচ্ছিলাম। ঢাকায় ঢোকার পথে কোথাও আমাদের পাক আর্মি বা রাজাকারের সঙ্গে সম্মুখ যুদ্ধে অবতীর্ণ হতে হয়নি, তবে মিরপুরের বিভিন্ন স্থান থেকে গুলির শব্দ শুনছিলাম।
বাচ্চু বলেন, সন্ধ্যা পাড় হয়ে যাওয়ার পর আমরা সায়েন্স ল্যাবরেটরী এসে পৌঁছি এবং তখন গাড়ির হেডলাইট জ্বালাই। ধীর গতিতে আসার কারণে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের (তৎকালীন রেসকোর্স ময়দান) আত্মসমর্পনের সময়টিতে উপস্থিত হতে পারিনি। তবে সেখানে গিয়ে জেনারেল শফিউল্লাহসহ অনেককেই দেখেছি।
তিনি বলেন, ঢাকার সেক্টর কমান্ডার জেলারেল শফিউল্লাহ তখন আমার বাহিনীর উপর ঢাকার আইন শৃক্সক্ষলা রক্ষার দায়িত্ব দেন। আমার বাহিনী ৬ দিন ঢাকার আইন শৃক্সক্ষলা রক্ষার দায়িত্ব পালন করে। আমরা ঢাকার ১০টি স্থানে ক্যাম্প স্থাপন করেছিলাম। মাইকিং করে বলেছিলাম দেশ স্বাধীন, কেউ আইন নিজের হাতে তুলে নিবেন না। কোন অপরাধী ধরা পড়লে তাকে আমাদের হাতে তুলে দেয়ারও আহবান জানিয়েছিলাম।
তিনি আরো বলেন, সে রাতেই জেনারেল শফিউল্লাহর কাছ থেকে কয়েক ঘন্টার ছুটি নিয়ে মার সঙ্গে দেখা করতে পল্টনের বাড়িতে গিয়েছিলাম। তখন জোনাকী-পল্টনে মানুষের বাধঁভাঙ্গা বিজয় উল্লাস দেখেছি।