ঢাকা, বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ১৮, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

আন্তর্জাতিক সংবাদ : আফগানিস্তানে সরকারি বাহিনীর অভিযানে ৮ জঙ্গি নিহত * ক্যালিফোর্নিয়ায় ১৩ শিশুকে আটকে রাখা দম্পতিকে আদালতে তোলা হচ্ছে * মুক্ত হওয়ার এক মাস পর ইরাকে আইএসের হুমকি * অস্ট্রেলিয়ার উলুরুর কাছে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত : আহত ৪   |    জাতীয় সংবাদ : বেসরকারি মেডিকেল কলেজের নীতিমালাকে আইনে রূপান্তরিত করার প্রক্রিয়া দ্রুত সম্পন্ন করার নির্দেশ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর * মেধাসম্পদের অনলাইন নিবন্ধন সেবা চালু * জ্ঞানভিত্তিক সমাজ ও দেশপ্রেমিক মানুষ গড়ার তাগিদ দিলেন শিক্ষামন্ত্রী   |   জাতীয় সংসদ : ছয় মাসে ১২২.৬৪ একর রেলভূমি দখলমুক্ত করা হয়েছে : রেলপথ মন্ত্রী * দেশে সাক্ষরতার হার শতকরা ৭১ ভাগ : পরিকল্পনামন্ত্রী   |   প্রধানমন্ত্রী : প্রধানমন্ত্রীকে সেনাবাহিনীর এসডব্লিউও কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন দুটি প্রকল্প সম্পর্কে অবহিতকরণ   |    জাতীয় সংবাদ : মরতুজা আহমদ নতুন প্রধান তথ্য কমিশনার * মুন সিনেমা হলের মালিককে ৯৯ কোটি টাকা দেয়ার নির্দেশ * রিট করেছে বিএনপি, দোষ পড়েছে আওয়ামী লীগের : ওবায়দুল কাদের * প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত হয়েছে : তোফায়েল আহমেদ   |   বিনোদন ও শিল্পকলা : ঝিনাইদহে ১৫ দিনব্যাপী যাত্রা উৎসব শুরু   |    বিভাগীয় সংবাদ : বরগুনায় দুদকর আয়োজনে শিক্ষার্থীদের মধ্যে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ *জয়পুরহাটে প্রবীণদের কম্বল, বয়স্ক ভাতা, উপকরণ প্রদান *হবিগঞ্জে ১১ জন আসামি গ্রেফতার * ভোলায় ৫টি বদ্ধভূমির সংস্কার ও উন্নয়ন করা হচ্ছে   |   খেলাধুলার সংবাদ : পিএসজির আট গোলের বিশাল জয়ে নেইমারের চার গোল *কোপা ডেল রে : মেসির পেনাল্টি মিসে বার্সেলোনার হার * হাথুরুসিংহের পরিকল্পনা ভুলে গেছে বাংলাদেশ : মাশরাফি * শ্রীলংকার বিপক্ষেও জয়ের লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামবে বাংলাদেশ * বর্ষসেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হলেন কোহলি   |   আবহাওয়া : দেশের কিছু স্থানে শৈত্যপ্রবাহ কেটে যেতে পারে   |    জাতীয় সংবাদ : বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব আগামীকাল থেকে শুরু * নির্বাচন বন্ধের জন্য বিএনপিকে অভিযুক্ত করা উচিত * জ্ঞান ও প্রযুক্তি রপ্তানিতেও সক্ষমতা অর্জন করতে হবে : শিক্ষামন্ত্রী * শিশু আলপনা হত্যা মামলায় ২ আসামির ফাঁসির রায় বহাল   |   প্রধানমন্ত্রী : রংপুর সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরদের শপথ গ্রহণ * প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে ২০ প্রতিষ্ঠানের অনুদান প্রদান * ওপেক বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক সম্প্রসারণে আগ্রহী   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : কাজাখস্তানে বাস দুর্ঘটনায় ৫২ জন নিহত * নির্ধারিত সময়ে কম্বোডিয়ার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে : কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী * কান্দাহারে অনলাইনে শিক্ষা নিচ্ছে আফগান তরুণীরা * ট্রাম্পের এক বছরে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া সম্পর্কোন্নয়নে ব্যর্থ   |   

রোড টু ভিক্টোরি : বিজয়ের প্রাক্কালে নির্মমতা

ঢাকা, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৪ (বাসস) : মুক্তিযুদ্ধের শেষ সময়ে ১৯৭১ সালের ১৪ ডিসেম্বর পাকিস্তানী সেনাবাহিনী দেশের বুদ্ধিজীবীদের হত্যার সিদ্ধান্ত নেয় যাতে নতুন বাংলাদেশ ঠিকমত মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে না পারে।
লন্ডন টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়- ১২ ডিসেম্বর রোববার জানা গেল ভারতীয় মিত্রবাহিনী ঢাকার কাছাকাছি চলে আসায় পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সিনিয়র এক দল কর্মকর্তা এবং এ দেশে তাদের সহযোগীরা নগরীর রাষ্ট্রপতির বাসভবনে এক বৈঠকে মিলিত হয়। যারা ইতোমধ্যে মুক্তি যুদ্ধে জড়িয়ে না পড়েছে ঢাকার এমন ধরনের বিভিন্ন পেশার সেরা ২৫০ জন ব্যক্তিকে গ্রেফতার ও হত্যা করার তালিকা করে। আল-বদর বাহিনীর সহায়তায় সোম ও মঙ্গলবার তাদের গ্রেফতার করা হয়। ১৬ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিক আত্মসমর্পনের আগ মুহুর্তে তাদের গ্রেফতার ও হত্যা করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের বিভিন্ন গ্রুপ করে শহরের বাইরে নিয়ে যাওয়া হয় এবং তাদের হত্যা করা হয়।-দ্য টাইমস, ডিসেম্বর ২৩, ১৯৭১।
বুদ্ধিজীবীদের হত্যার বিষয়টি দেখভাল করার মূল দায়িত্ব পালন করেন পাকিস্তানের দুই সেনা কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার কাশেম এবং ক্যাপ্টেম কাইউম। তৎকালীন মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির সভাপতি মাওলানা আব্দুল মান্নানের সঙ্গে তারা বৈঠক করেন। এর আগে নভেম্বরের কোন এক সময় মান্নানের বাসায় তাদের সঙ্গে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সম্ভবত এই বৈঠকেই বুদ্ধিজীবীদের হত্যার পরিকল্পনা করা হয়।
ইসলামিক সার্কেল অব নর্থ আমেরিকা (আইসিএনএ) প্রধান তৎকালীন ইসলামী ছাত্র সংস্থার কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আশরাফুজ্জামানের গাড়ির চালকদের একজন মফিজুদ্দিনের স্বীকারোক্তি অনুসারে তার নিজ হাতে সাতজন শিক্ষককে হত্যা করা হয়েছে। মফিজুদ্দিনের স্বীকারোক্তি অনুসারে ওই হতভাগ্য শিক্ষকদের মৃত দেহগুলো রায়েরবাজার বধ্যভূমি ও মিরপুরের শিয়ালবাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়। তার ডাইরিতে ২০ জন শিক্ষক ও বাংলাদেশী অন্য অনেকের নাম ছিল। পাকিস্তানী ও রাজাকারদের সহায়তায় নিহত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৬ শিক্ষকের নাম ছিল তার ডাইরিতে।
শহীদ মুক্তিযোদ্ধা : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক- এ এন এম মুনীর চৌধুরী, ড: জি সি দেব, মোফাজ্জল হায়দার চৌধুরী, আনোয়ার পাশা, জ্যোতির্ময় গুহঠাকুরতা, ড: আব্দুল মুক্তদির, ড. এস এম রাশিদুল হাসান, ড. এ এন এম ফাইজুল মিয়া, ফজলুর রহমান খান, এ এন এম মুনিরুজ্জামান, ড. সিরাজুল হক খান, ড. শাহাদাত আলী, ড. এম এ খায়ের, এ আর খান কাদিম, মুহাম্মদ সিদ্দিক, শরাফত আলী, গিয়াসউদ্দিন আহমেদ ও আনন্দ পবন।
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক : অধ্যাপক কাইউম, হাবিবুর রহমান ও শ্রী সুখরঞ্জন সমাদ্দার।
এমসিএএস : মশিউর রহমান, আমজাদ হোসেন, আমিন উদ্দিন, নাজমুল হক সরকার, সৈয়দ আনোয়ার আলী, আবদুল হক ও এ কে সরদার।
সাংবাদিকদের নাম : সিরাজউদ্দিন হোসেন, শহীদুল্লাহ কায়সার, খন্দকার আবু তালেব, নিজামউদ্দিন আহমেদ, আ ন ম গোলাম মোস্তফা, শহিদ সাবের, শেখ আবদুল মান্নান (লাডু), নাজমল হক, এম আখতার, আবুল বাশার, চিশতি হেলালুর রহমান, শিব সদন চক্রবর্তী ও সেলিনা আক্তার।
ডাক্তারদের নামের তালিকা : মো. ফজলে রাব্বি, আবদুল আলিম চৌধুরী, শামসুদ্দিন আহমেদ, আজহারুল হক, হুমায়ুন কবীর, সোলায়মান খান, কায়সার উদ্দিন, মনসুর আলী, গোলাম মর্তুজা, হাফেজউদ্দিন খান জাহাঙ্গীর, আবদুল জব্বার, এস কে লাল, হেমচন্দ্র বসাক, কাজী ওবায়দুল হক, আয়েশা বেদৌরা চৌধুরী, আলহাজ্ব মমতাজউদ্দিন, হাসিময় হাজরা, নরেন ঘোষ, জিকরুল হক, শামসুল হক, এম রহমান, এ গফুর, মনসুর আলী, এস কে সেন, মফিজউদ্দিন, অমূল্য কুমার চক্রবর্তী, আতিকুর রহমান, গোলাম সরোয়ার, আর সি দাস, এ কে এম গোলাম মোস্তফা, মকবুল আহমেদ, এনামুল হক, মনসুর (কানু), আশরাফ আলী তালুকদার, লে. জিয়াউর রহমান, লে. কর্নেল জাহাঙ্গীর, বদরুল আলম, লে. কর্নেল হাই, মেজর রেজাউর রহমান, মেজর নাজমুল ইসলাম, আসাদুল হক, নাজিরউদ্দিন, লে. নূরুল ইসলাম, কাজল ভদ্র ও মনসুর উদ্দিন।
শিল্পী ও পেশাজীবীদের তালিকা : আলতাফ মাহমুদ, দানবীর রনদা প্রসাদ সাহা, জোগেশ চন্দ্র ঘোষ, ধীরেন্দ্র নাথ দত্ত, শামসুজ্জামান, মাহবুব আহমেদ, খুরশিদ আলম, নজরুল ইসলাম, পূর্ণেন্দু দস্তিদার, ফেরদৌস দৌলা, ইন্দু সাহা ও মেহেরুন্নেসা।