ঢাকা, বুধবার, জানুয়ারী ১৭, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

বিনোদন ও শিল্পকলা : বাচ্চাদের বই পড়ায় আগ্রহী করে তুলতে হবে : সংস্কৃতি মন্ত্রী   |    জাতীয় সংবাদ : আতিকুল ইসলাম ঢাকা উত্তর সিটি কার্পোরেশন উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী * বরেণ্য সঙ্গীতশিল্পী শাম্মী আক্তার আর নেই   |    জাতীয় সংবাদ : বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় উচ্চ শিক্ষায় নতুন মাত্রা যোগ করেছে : শিক্ষামন্ত্রী * সুন্দরবন অঞ্চল নিরাপদ রাখতে আরো ৪টি র‌্যাব ক্যাম্প স্থাপন করা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী * ঝড়-বৃষ্টির মৌসুমে স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা ঝুঁকিতে ৫ লক্ষাধিক রোহিঙ্গা শিশু : ইউনিসেফ   |   জাতীয় সংসদ : একই পরিবারের চারজন পরিচালক রাখার বিধান করে সংসদে ব্যাংক কোম্পানী সংশোধন বিল পাস * বিচারাধীন মামলা দ্রুত নিষ্পত্তিতে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে : আইনমন্ত্রী * সরকারি শূন্য পদ দ্রুত পূরণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে : জন প্রশাসন মন্ত্রী   |   প্রধানমন্ত্রী : প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ উন্নয়ন ফোরামের উদ্বোধন করবেন আগামীকাল * একনেকে ১৪ প্রকল্প অনুমোদন : তিন হাজার বিদ্যালয়ে একাডেমিক ভবন নির্মাণ করা হবে * আবুল খায়েরের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক   |   বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি : ঢাকা শহরের ছাদ ব্যবহার করে ১ হাজার মেগাওয়াট সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদন সম্ভব : নসরুল হামিদ   |    অর্থনীতি : নওগাঁয় রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের ৬ মাসে ৯২ কোটি ৩০ লাখ টাকার ঋণ বিতরণ    |    জাতীয় সংবাদ : এই অঞ্চলের স্বাধীনতার নেতাদের হত্যার কারণ খুুঁজে বের করতে হবে : প্রণব মুখোপাধ্যায় * ২ বছরের মধ্যে রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তন সম্পন্নে রূপরেখা চূড়ান্ত * ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলা : আরো দুই আসামীর পক্ষে যুক্তিতর্ক পেশ    |   খেলাধুলার সংবাদ : পুলিশ বর্ষসেরা খেলোয়াড় দ্বীন ইসলাম, লতা পারভীন ও আকলিমা *মাঠে খারাপ আচরণের জন্য কোহলিকে জরিমানা   |   শিক্ষা : বাংলাদেশের জন্মের পেছনে ঢাবির অবদান রয়েছে : ঢাবি উপাচার্য   |    বিভাগীয় সংবাদ : জয়পুরহাটে বোরো ধানের চারা রক্ষা করতে পলিথিনে ঢেকে রাখার পরামর্শ * নীলফামারীতে কৃষক নেমেছে বোরো আবাদের মাঠে : লক্ষ্যমাত্রা ৮৪ হাজার হেক্টর জমি   |   আবহাওয়া : আগামীকাল থেকে দক্ষিণাঞ্চলের শৈতপ্রবাহ কেটে যেতে পারে   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : ট্রানজিট বিষয়ে সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ার মধ্যে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি স্বাক্ষর * আফগানিস্তানে আইএসের ২১ যোদ্ধা নিহত * জাপানের জলসীমায় ভেসে আসা নৌকা থেকে ৮ জনের লাশ উদ্ধার * লিবিয়ার পশ্চিম উপকূল থেকে অবৈধ ৩৬০ শরণার্থী উদ্ধার   |   

আত্মসমর্পণের দলিল নিয়ে দেশে ফিরবে না, ভুট্টোকে তার পুত্র

॥ আশরাফুল হক ও মাহমুদুল হাসান রাজু ॥
ঢাকা, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৪ (বাসস) : তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে চাপিয়ে দেয়া যুদ্ধের বিষয় জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে যোগদানের আগে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জুলফিকার আলী ভুট্টোকে তার এক শিশু পুত্র তাকে আত্মসমর্পণের দলিল নিয়ে দেশে না ফেরার অনুরোধ জানিয়েছিলেন।
তার কন্ঠস্বর প্রায়শই জড়িয়ে যাচ্ছিলো এ অবস্থায় ভুট্টো জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে বলেন, পাকিস্তান থেকে তার ১১ বছর বয়সের ছেলে তাকে বলেছে, আত্মসমর্পণের দলিল নিয়ে যেন দেশে না ফিরি।
ভুট্টো ডিনাউন্সেস দ্য কাউন্সিল অ্যান্ড ওয়াক আউট ইন টিয়ার্স শিরোনামের এক রিপোর্টে একথা বলা হয়।
ঢাকায় পাকিস্তানী বাহিনীর আত্মসমর্পণের একদিন আগে হেনরি টানারের এই রিপোর্টটি ১৯৭১ সালের ১৫ ডিসেম্বর নিউইয়র্ক টাইমস প্রকাশ করে।
রিপোর্টে বলা হয়, আগ্রাসন কে বৈধতা দেয়ার দাবির পর পাকিস্তানের চড়া মেজাজি পররাষ্ট্রমন্ত্রী জুলফিকার আলী ভুট্টোর চোখে অশ্রুজল চিকচিক করছিল এবং ক্ষুব্ধ অবস্থায় নিরাপত্তা পরিষদ বয়কট করেন।
পরিষদ চেম্বারের বাইরে তিনি বলেন, এই সংস্থাকে তিনি নিন্দা জানান। আমি তাদের মুখ পুনরায় দেখতে চাই না। বরং আমি ধ্বংসপ্রাপ্ত পাকিস্তানে ফিরে যেতে চাই।
স্থায়ী প্রতিনিধি আগা শাহীসহ ৭ সদস্যের প্রতিনিদিদলসহ কূটনীতিকদের বিস্ময় সৃষ্টি করে প্রধান হলের কার্পেটে আঘাত করে বেরিয়ে যান।
ভুট্টো জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যদের তার অভিযানের ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট ও তাৎক্ষণিক কারণ বুঝাতে ব্যর্থ হয়েছেন। তবে ভারতের সমর্থক সোভিয়েত ইউনিয়নের ধারাবাহিক ভেটোর উল্লেখ করে সেনা প্রত্যাহারের জন্য আহ্বান জানিয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।
পরিষদে বিদায়ী বক্তব্যের পর তার নোট ছিঁড়ে তার চেয়ারের পেছনে ছুঁড়ে ফেলেন এবং চেয়ার ছেড়ে দাঁড়িয়ে ভুট্টো বলেন, জনাব সভাপতি আমি ইঁদুর নই, আমার জীবনে কখনো ইঁদুর ধরিনি। আমি হত্যা প্রচেষ্টার মুখোমুখি হয়েছি, আমি কারাজীবন মোকাবেলা করেছি। আজ আমি ইঁদুর ধরতে আসিনি তবে আমি আপনাদের নিরাপত্তা কাউন্সিল ত্যাগ করছি।
তিনি বলেন, এখানে দীর্ঘ সময় থেকে আমি আমার জনগণ ও আমার দেশকে অপমানিত করছি। আরোপিত যে কোন সিদ্ধান্ত ভাসাইলস চুক্তির চেয়েও ভয়ঙ্কর, আগ্রাসনকে বৈধতা, দখলদারিত্ব কে বৈধতা দেয়ায় আমি অংশ নেব না। আমরা লড়াই করবো।
জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে ভুট্টো বলেন, আমি এখানে নিরাপত্তা কাউন্সিলে আমি আমার সময় অপচয় করবো? আমার দেশের একটি অংশের আত্মসমর্পণে আমি অংশ নেব না। আপনার নিরাপত্তা পরিষদ এখানে রইলো। আমি চললাম।
তিনি (ভুট্টো) চেম্বার ত্যাগ করার সময় গোলাকার টেবিল ঘিরে থাকা প্রতিনিধিগণ ভাবলেশহীনভাবে তা অবলোকন করেন।
ব্রিটেন ও ফ্রান্সের প্রতিনিধি স্যার কলিন ক্রাওয়ে ও জ্যাকুইস কসসিউস্কো মরিজেট যুদ্ধ বিরতি এবং পাকিস্তান ও পূর্ব পাকিস্তানের যুদ্ধরত বাঙালিদের মধ্যে একটি সমন্বিত রাজনৈতিক সমাধানের যৌথ প্রস্তাব উত্থাপন করেন।
সোভিয়েত ইউনিয়নের ইয়াকোভ এ মালিক যুদ্ধবিরতি এবং একটি যুগপত রাজনৈতিক সমাধানের প্রস্তাব দেন।
আমি অনুভব করি যে, এখানে আসা আমার জন্য জরুরি ছিল এবং নিরাপত্তা পরিষদে সুবিচার চেয়েছি। ভুট্টো কাঁদো কাঁদোভাবে বলেন, আমি অবশ্যই বলবো নিরাপত্তা পরিষদ আমার দেশ এবং সুবিচারকে প্রত্যাখান করেছে।
ভুট্টো চিৎকার করে তার ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমি এখানে আসার পর থেকে দীর্ঘ সূত্রতার মাধ্যমে আমাকে ফাঁদে ফেলা হচ্ছে। ভেটোতে আমি হতাশ হয়েছি।