ঢাকা, বুধবার, জানুয়ারী ১৭, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

প্রধানমন্ত্রী : উন্নত দেশগুলোকে বাংলাদেশের পাশে দাঁড়ানোর আহবান প্রধানমন্ত্রীর   |   আবহাওয়া : দেশের কিছু স্থানে শৈত্যপ্রবাহ কমবে   |   খেলাধুলার সংবাদ : জুনে ব্যাঙ্গালুরুতে ইতিহাসের প্রথম টেস্ট খেলবে আফগানিস্তান * মিরপুর স্টেডিয়ামের শততম ওয়ানডে ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টস জিতে ফিল্ডিং-এ শ্রীলংকা   |    জাতীয় সংবাদ : ঢাকা উত্তর সিটির উপ-নির্বাচন স্থগিত * নবম ওয়েজ বোর্ডে সাংবাদিকদের স্বার্থ গুরুত্ব পাবে: তারানা হালিম * আপিল শুনানির কার্যতালিকায় যুদ্ধাপরাধী আজহার-কায়সার-সুবহানের মামলা   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : ফিলিস্তিনের জন্য জাতিসংঘ সংস্থা থেকে বরাদ্দকৃত অর্থ প্রত্যাহার যুক্তরাষ্ট্রের * মিয়ানমারে রাখাইন বৌদ্ধদের ওপর পুলিশের হামলা ॥ নিহত ৭ * পেরুর সাবেক প্রেসিডেন্টের হাসপাতাল ত্যাগ * মেক্সিকোয় গণকবর থেকে ৩২টি লাশ উদ্ধার    |   

বাংলাদেশকে ভারতীয় লোকসভায় স্বীকৃতি প্রদানের ঘোষণায় সম্মিলিত জয়বাংলা ধ্বনি ওঠে

॥ ফজলে নোমানী ॥
ঢাকা, ৯ ডিসেম্বর ২০১৪ (বাসস) : বাংলাদেশকে ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দরা গান্ধীর স্বীকৃতি দানের ঘোষণায় ভারতীয় লোকসভার সদস্যরা সম্মিলিত ভাবে সমস্বরে জয় বাংলা ধ্বনি দিয়ে একে অপরকে আবেগে জড়িয়ে ধরেন।
১৯৭১ সালের ৭ ডিসেম্বর কোলকাতা থেকে প্রকাশিত দৈনিক যুগান্তর-এর এক প্রতিবেদনে এই তথ্য প্রকাশিত হয়। ভারতের বালাদেশকে স্বীকৃতির ৪৩ তম বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির প্রকাশিত সাময়িকীতে মুক্তিযোদ্ধা লেখক রবীন্দ্রনাথ ত্রিবেদী তাঁর ভারতের বাংলাদেশ স্বীকৃতি মুক্তিযুদ্ধে অশ্রু-রক্ত-স্বেদভরা দিনগুলি শীর্ষক প্রবন্ধে এ তথ্য জানান।
দৈনিক যুগান্তরে পরিবেশিত প্রতিবেদনে বলা হয়- ভারত সরকার গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারকে স্বীকৃতি দিয়েছে। এই স্বীকৃতির ফলে এই উপ-মহাদেশে একটি স্বাধীন সার্বভৌম গণতান্ত্রিক প্রজাতন্তের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা হলো। প্রধানমন্ত্রী শ্রীমতি ইন্দিরা গান্ধী আজ সকালে সংসদের যুক্ত অধিবেশনে বাংলাদেশকে স্বীকৃতিদানের গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণাটি করেন এবং উভয় সভার সদস্যগণই দাঁড়িয়ে এই ঘোষণাকে স্বাগত জানান।
প্রতিবেদনে আরো বলা হয়- প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর ঘোষণার পরই সংসদ কক্ষে প্রবল হর্ষধ্বনি উত্থিত হয় এবং সদস্যবর্গ উৎসাহ আবেগে মিলিত ধ্বনি তুলেন-জয়বাংলা,বাংলাদেশ জিন্দাবাদ।
ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেন, অবর্ণনীয় বাধা, বিপত্তি সত্তেও বাংলাদেশের জনগণের বীরত্বপূর্ণ সংগ্রাম, মুক্তিযুদ্ধে বীরত্বের ইতিহাস এক অন্য অধ্যায়ের জন্ম দিয়েছে।
বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয়ার পরই ইন্দিরা গান্ধী এক বিবৃতিতে বলেন, শুধুমাত্র ভাবাবেগে পরিচালিত হয়ে আমরা বাংলাদেশকে স্বীকৃতিদানের সিদ্ধান্তে উপনীত হইনি। স্বাধীন বাংলাদেশ সরকারের নীতি-নির্ধারণী সরকারী ভাষ্য ও বিবৃতি ভারত সরকার পাওয়ার পর গত রাতের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রীসভার বৈঠকে বাংলাদেশকে অনুষ্ঠানিক স্বীকৃতিদানের বিষয়টি চুড়ান্ত করা হয়।
মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক একাধিক গ্রন্থের লেখক রবীন্দ্রনাথ ত্রিবেদী তার প্রবন্ধে বলেন, ৭১ এর ৯ আগষ্ট সম্পাদিত ২০ বছরের জন্য ভারত-সৌভিয়েত মৈত্রী চুক্তির ফলে নিরাপত্তা পরিষদে তৎকালিন সৌভিযেত ইউনিয়ন তিনবার ভেটো দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও চিনকে পাকিস্তানের সমর্থনে ভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণের পথে বাধার সৃষ্টি করে।
৩ ডিসম্বর পাকিস্তান পশ্চিম সীমান্তে বিমান হামলা দিয়ে ভারত আক্রমন করলে ভারতও যুদ্ধ শুরু করে। সে রাতেই ইন্দিরা গান্ধী ঘোষণা করেন-আজ বাংলাদেশের যুদ্ধ ভারতের যুদ্ধ হয়ে দাঁড়াল।
ত্রিবেদী বলেন ,ইন্দিরা গান্ধীর সেই যুদ্ধ ঘোষণার রাতে বাংলাদেশের শরনার্থী শিবিরগুলো থেকেও বিরাট চিৎকার আর জয়বাংলা শ্লোগান ভেসে আসছিলো।