ঢাকা, শনিবার, জানুয়ারী ২০, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

প্রধানমন্ত্রী : আসাদের আত্মত্যাগে স্বাধীনতা আন্দোলন আরো গতিশীল হয় : প্রধানমন্ত্রী * মাইকেল মধুসূদন দত্ত বাংলা সাহিত্যের আকাশে এক উজ্জ্বল নক্ষত্র : প্রধানমন্ত্রী * সাস্থ্যবান প্রজন্ম গড়তে প্রাণিসম্পদ খাতের গুরুত্ব অপরিসীম : শেখ হাসিনা   |   রাষ্ট্রপতি : শহীদ আসাদের সর্বোচ্চ অবদান তরুণ প্রজন্মকে অনুপ্রেরণা যোগাবে : রাষ্ট্রপতি * প্রাণিস্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতের মাধ্যমে ২০৩০ সালে এসডিজি বাস্তবায়ন সম্ভব হবে : রাষ্ট্রপতি * মধুসূদন দত্ত বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী ছিলেন : রাষ্ট্রপতি   |    জাতীয় সংবাদ : শহীদ আসাদ দিবস কাল * বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় ধাপেও পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে : আসাদুজ্জামান খাঁন * এমপিও ভূক্তির জন্য শিক্ষকদের আন্দোলনের প্রয়োজন নেই : আইনমন্ত্রী   |    বিভাগীয় সংবাদ : যশোরের সাগরদাঁড়িতে আগামীকাল শুরু হচ্ছে সপ্তাহব্যাপী মধুমেলা * মাগুরায় ১০ কিলোমিটার মহাসড়কে চার লেনের কাজ এগিয়ে চলছে   |   শিক্ষা : ঢাবি সিনেটে রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট প্রতিনিধি নির্বাচনে ঢাকা কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ আগামীকাল   |    জাতীয় সংবাদ : বিশ্ব ইজতেমার ২য় পর্ব শুরু, লাখো মুসুল্লির জুমার নামাজ আদায় * নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে বিএনপি জনপ্রিয়তা যাচাই করতে পারে : হানিফ * তারুণ প্রজন্মকেই আধুনিক সমাজ বিনির্মাণে এগিয়ে আসতে হবে : শিরীন শারমিন * আইভীকে দেখতে হাসপাতালে ওবায়দুল কাদের   |   বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি : ড্রোন প্রযুক্তি ব্যবহারে উড়োজাহাজ তৈরি করেছে গোপালগঞ্জের কিশোর আরমানুল ইসলাম   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : দ.কোরিয়ায় অগ্রবর্তী বাদকদল পাঠাবে উ.কোরিয়া * আফগানিস্তানে সরকারি বাহিনীর অভিযানে ৮ জঙ্গি নিহত * ইরানের পারমাণু চুক্তির শর্ত কঠিন করাই মার্কিন আইনপ্রণেতাদের লক্ষ্য   |   আবহাওয়া : আবহাওয়া শুষ্ক এবং রাত ও দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে   |   খেলাধুলার সংবাদ : রেকর্ড ব্যবধানে শ্রীলংকাকে হারিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে বাংলাদেশ *তামিমের ১১, সাকিবের ১০ ও সাব্বিরের ১ হাজার রান *৩শ ম্যাচের মাইলফলক স্পর্শ করলেন মুশফিকুর রহিম   |   

আমার যুদ্ধ এখনো শেষ হয়নি

॥ আশরাফুল হক ও মাহমুদুল হাসান রাজু ॥
ঢাকা, ৭ ডিসেম্বর ২০১৪ (বাসস) : বীর গেরিলা যোদ্ধা এবং ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্টের সাবেক কর্পোরাল শরীফ মাসুদ তাঁর প্রিয় মাতৃভূমি থেকে শত্রুদের বিতাড়িত এবং দেশবাসীকে চরম দুর্ভোগ থেকে সফলভাবে মুক্ত করেছেন। তবে যুদ্ধ শেষে তাঁর স্ত্রীকে খুঁজে ফেরার মানসিক যন্ত্রণা ছিল খুবই কঠিন।
যুদ্ধ শেষে ঢাকা লেডিস ক্লাবের সংলগ্ন মুক্তি বাহিনীর অস্থায়ী কার্যালয়ে নিউইয়র্ক টাইমসর সাংবাদিক ফক্স বাটারফিল্ড কথা বলেন শরীফ মাসুদের সঙ্গে। সহযোদ্ধা কমরেডদের ঘনিষ্ঠজন, পরিবারের সদস্য ও বন্ধু-বান্ধবদের সন্ধানে সহায়তার জন্য যুদ্ধ শেষে মুক্তিবাহিনী এ অফিস চালু করে।
ঢাকা অভিযানের চূড়ান্ত লড়াইয়ে অংশ নেয়া মুক্তিযোদ্ধা মাসুদ বলেন, ২৫ মার্চের পর তিনি তাঁর স্ত্রীকে দেখতে পাননি। ওই সময় রেজিমেন্টের অপর ১৮০০ সদস্যের সঙ্গে তিনি গ্রেফতার হন। তিনি বলেন, আমার যুদ্ধ এখনো শেষ হয়নি।
তিনি বলেন, তারা আমাদের একটি কলেজ ছাত্রাবাসে আটকে রাখে, আমাদের সেকানে কেবল একটি রুটি ও চা দিয়েছে, মাঝে মধ্যে ভাত দিয়েছে... তারা তাদের রাইফেলের বাট দিয়ে প্রায় প্রতিদিনই পিটিয়েছে এবং কখনো কখনো মাথা নিচের দিকে রেখে আমাদের ঝুঁলিয়ে রেখেছে এবং পিটিয়েছে। ১৯৭১ সালের ২৮ ডিসেম্বর গেরিলারা নিখোঁজ স্বজনদের খুঁজছে শিরোনামে এক বিশেষ রিপোর্টে বাটারফিল্ড মাসুদের এ বক্তব্য উদ্ধৃত করেন।
রিপোর্টে বলা হয়, একদিন পাকিস্তানী সৈন্যরা তাকে এবং তার ২শ কমরেডকে ছোট একটি নদীর ব্রিজের ওপর তোলা হয় এবং একই সঙ্গে তাদের ওপর গুলি চালানো হয়। তিনি বলেন, কি ঘটতে যাচ্ছে তা বুঝে ওঠার আগেই তিনি ব্রিজ থেকে নদীতে লাফিয়ে পড়েন।
মৃত্যুর দুয়ার থেকে ফেরার পর তিনি নিজ গ্রামে ফিরে গিয়ে দেখেন তার ঘর ভস্মীভূত অবস্থায় পড়ে আছে এবং তাঁর স্ত্রী নিখোঁজ, সম্ভবত পাকিস্তানী সৈন্যরা তাকে নিয়ে গেছে। ওই অস্থায়ী অফিসে গেরিলা কমান্ডার আবদুল হোসেনকে বিশাল লাইনে দাঁড়ানো লোকদের সাক্ষাৎকার নিতে দেখা যায়, তাদের ঘটনাও মাসুদের মতোই।
হোসেনের ডেস্কে সহযোগিতা চেয়ে ৫ হাজারের বেশি আবেদন পড়েছে। আবেদনকারীদের লাইন তার অফিস ঘিরে লেডিস ক্লাবের বাগান পর্যন্ত পৌঁছেছে। এই ক্লাবে এক সময় ঊর্ধ্বতন পাকিস্তানী কর্মকর্তাদের স্ত্রীদের টি পার্টি হতো।
রিপোর্টে বলা হয়, মুক্তিবাহিনীর এক কোম্পানি কমান্ডার মোহাম্মদ রাজ্জাক সহযোগিতা পাওয়ার আশায় প্রখর তপ্ত রোদে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে দেখা যায়।
তিনি তার ভাইকে খুঁজছিলেন, ওই ভাই যশোরে টেলিগ্রাফ অপারেটর ছিলেন এবং পাকিস্তানী সৈন্যরা ১৯৭১ সালের এপ্রিলের প্রথম দিকে তাকে গ্রেফতার করে। এখন পর্যন্ত তার কোন সন্ধান মিলেনি।